ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

শিল্প

নিউ টাচের ফায়ার ডিটেকশন ও প্রটেকশন মেশিন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৮১৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২১, ২০১৭
নিউ টাচের ফায়ার ডিটেকশন ও প্রটেকশন মেশিন নিউ টাচের ফায়ার ডিটেকশন ও প্রটেকশন মেশিন- ছবি জিএম মুজিবুর

ঢাকা: বাংলাদেশে প্রায়শই গার্মেন্টসে ভয়াবহ আগুন লাগার খবর শোনা যায়। আগুনের হাত থেকে রক্ষায় বেশিরভাগ গার্মেন্টসে নেই আধুনিক যন্ত্রপাতির ব্যবহার।

গামের্টস খাততে আধুনিকায়ন ও কর্মীদের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে আগুনের দুর্ঘটনা থেকে বাঁচতে গার্মেন্টস বিল্ডিংয়ের জন্য তৈরি হয় দেশি-বিদেশি নানা মেশিনারিজ। সেরকম দু’টি মেশিন ফায়ার ডিটেকশন ও ফায়ার প্রোটেকশন।

যুক্তরাষ্ট্রে তৈরি এসব মেশিন প্রদর্শিত হচ্ছে গার্মেন্টটেক ২০১৭-তে।

শনিবার (২১ জানুয়ারি) আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিটি, বসুন্ধরার (আইসিসিবি) সেন্টার ১ নং হলের ১০২ নং স্টলে আনগুন নিয়ন্ত্রণের বিভিন্ন যন্ত্রপাতি প্রদর্শিত হচ্ছে।

এসব যন্ত্রপাতির বিপণন প্রতিষ্ঠান নিউ টাচের অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার মিজানুর রহমান বাংলানিউজকে জানান, এবারের মেলায় প্রদর্শিত হচ্ছে ডিজেল ইঞ্জিন চালিত পাম্প। যাকে বলা হচ্ছে ফায়ার প্রোটেকশন সিস্টেম মেশিন। বিদ্যুৎ ছাড়াই পানির পাম্প চালানোর সুবিধা রয়েছে এ মেশিনের। সাধারণত আগুন লাগলে সবার প্রথমে বৈদ্যুতিক লাইনগুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়। কিন্তু এ সিস্টেমে পানি রিজার্ভ থাকে। ডিজেল ইঞ্জিনের সাহায্যে পানি ফ্লো করবে। এজন্য আলাদা বৈদ্যুতিক লাইন দরকার হয় না।

‘এ সিস্টেমে প্রতিটি পাইপের মুখে সংযুক্ত থাকবে স্পিংকলার। রুমের তাপমাত্রা নির্দিষ্ট তাপের ঊর্ধ্বে গেলে পাইপের মুখ ফেটে গিয়ে পানি চারদিকে ছড়িয়ে যেতে থাকবে। প্রতিটি স্পিংকলার ১শ’ বর্গফুট জায়গা জুড়ে পানি ছড়াতে সক্ষম। ’

মিজান বলেন, আগুনকে চিহ্নিত করতে রয়েছে ফায়ার ডিটেকশন সিস্টেম। এ সিস্টেমটি কাজ করবে ৫ ভাগে। স্মোক, হিট, মাল্টি, ম্যানুয়াল কল পয়েন্ট ও হর্ন পদ্ধতিতে। রুম বা আশপাশের এলাকায় ধোঁয়া থাকলে স্মোক সিস্টেমটি কাজ করবে। ম্যানুয়াল সিস্টেমেও আগুন চিহ্নিতকরণের সুবিধা রয়েছে এ মেশিনে। এছাড়াও সবাইকে এলার্ট করতে এই মেশিনারিজে সংযুক্ত রয়েছে হর্ন বা বেল সিস্টেম।

তিনি আরও জানান, গার্মেন্টস ইন্ডাস্ট্রিতে ক্রেতাদের অর্ডার পেতে তাদের দেওয়া ফায়ার সেফটি, ইলেকট্রিক্যাল সেফটিসহ বিভিন্ন শর্তাবলী পূরণ করতে হয়। মূলত তাদের রিকোয়ারমেন্ট বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ফায়ার সেফটি নিয়ে কাজ করি আমরা।

অন্যবারের তুলনায় এবারের মেলায় ক্রেতাদের সাড়া বেশি মিলেছে বলেও জানান মিজান।

ভিইএস ব্রান্ডের এসব মেশিন যু্ক্তরাষ্ট্র থেকে কিনে বাংলাদেশের মার্কেটে বিক্রি হচ্ছে। এবারের মেলায় আগুন থেকে রক্ষা পেতে  সময়পযোগী মেশিনারিজ বিশেষ করে ফায়ার ডিটেকশন ও ফায়ার প্রোটেকশন মেশিন এনেছে নিউ টাচ।
 
১৮ জানুয়ারি থেকে অষ্টমবারের মতো পোশাক খাতের সহায়ক পণ্য বা গার্মেন্টস অ্যাক্সেসরিজ এবং মোড়কীকরণের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বা প্যাকেজিং পণ্যের আন্তর্জাতিক গ্যাপেক্সপো মেলা শরু হয়েছে।

শনিবার মেলার শেষ দিনে গার্মেন্টস সংশ্লিষ্টদের জন্য আধুনিক বিভিন্ন মেশিন প্রদর্শিত হচ্ছে।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৪০৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২১, ২০১৭
জেডএফ/এসআরএস/এমজেএফ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa