ঢাকা, বুধবার, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

আন্তর্জাতিক

টুইটারে ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর উদ্দাম নাচ ভাইরাল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০১১ ঘণ্টা, আগস্ট ১৯, ২০২২
টুইটারে ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর উদ্দাম নাচ ভাইরাল

ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী সানা মারিন, সম্প্রতি তার একটি ভিডিও মাইক্রো ব্লগিং সাইট টুইটারে ভাইরাল হয়েছে। এ নিয়ে চলছে জোর সমালোচনা।

তোপের মুখে পড়েছেন বিরোধী দলগুলোর নেতাদের।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি’র খবরে বলা হয়, নিজ দেশের কয়েকজন সেলিব্রেটি ও বন্ধুদের নিয়ে একটি পার্টির আসর জমিয়েছিলেন ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী সানা মারিন। কালো ক্রপ টপ ও সাদা লেগিংসে তাকে মোহনীয় দেখতে লাগছিল। বন্ধুদের সঙ্গে একটি গানে উদ্দাম নাচছিলেন তিনি। গানও গাচ্ছিলেন।

ফিনল্যান্ডের বিরোধী দলগুলোর নেতারা তার এই ভাইরাল ভিডিও নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তাদের দাবি, সরকার প্রধান হয়ে সানার এমন নাচ কাম্য নয়। তিনি আদর্শ হতে পারেন না। তার ড্রাগ টেস্ট করা উচিৎ।

অবশ্য, সানা মারিন মাদক গ্রহণের বিষয়ে অস্বীকার করেছেন। ওই পার্টিতে শুধু অ্যালকোহল পান করেছেন বলে দাবি তার।

বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) ভাইরাল হওয়া ভিডিও নিয়েও মন্তব্য করেছেন তিনি। বলেন, আমি ভিডিওটির কথা জানতাম। তবে, প্রকাশ্যে আসার আমি হতাশ। আমার নাচ-গান ও পার্টি করা ব্যক্তিগত বিষয় ও আইন সম্মত। মাদক ব্যবহার করে এমন কাউকে আমি চিনি না বা এমন পরিস্থিতিতেও ছিলাম না।

প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পাশাপাশি আমার একটি পারিবারিক জীবন, একটি কর্মজীবন রয়েছে। আমি বন্ধুদের সঙ্গে সময়ও কাটাতে পারি, এবং তা আমার আছে। আমার বয়সী একজন মানুষের তা প্রয়োজনও। নিজ আচরণে পরিবর্তন আনার কোনো প্রয়োজন আমি অনুভব করি না। আমি যা আছি তা-ই থাকতে পছন্দ করি। আশা করি দেশের মানুষের কাছে তা গ্রহণযোগ্য হবে।

খবরে আরও বলা হয়, ফিনিশ প্রধানমন্ত্রী নিজের সাফাই গাইলেও গায়ে মাখছেন না বিরোধীদলীয় নেতা রিকা পুরা। তার দাবি, দেরি না করে সানার ড্রাগ টেস্ট করা উচিৎ। কারণ প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে তার সন্দেহ আরও ঘনীভূত হচ্ছে।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে সবচেয়ে কনিষ্ঠ সরকার প্রধান হিসেবে ফিনল্যান্ডের মসনদে বসেছিলেন সানা মারিন। সাধারণ নাগরিকের মতোই নিজের জীবন যাপন করতে পছন্দ করেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী হলেও ব্যক্তিগত জীবন বলে কিছু একটা আছে তার- এ কথা সোজা সাপটা বলতে পছন্দ করেন তিনি। তাই কখনও কোথাও পার্টি করলে সেটিও প্রকাশ করে দেন। তাকে অনেক সময় সঙ্গীতের আয়োজনেও দেখা যায়।

২০২১ সালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এক ব্যক্তির সংস্পর্শে এসেছিলেন সানা। পরে ক্লাবে গিয়ে পার্টিতে অংশ নেন। পরবর্তীতে বিষয়টি নিয়ে প্রকাশ্যে ক্ষমাও চান তিনি।

জার্মান ম্যাগাজিন বিল্ড সম্প্রতি সানাকে ‘কুলেস্ট প্রাইমিনিস্টার ইন দ্যা ওয়ার্ল্ড’ বা বিশ্বের আকর্ষণীয় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে অভিহিত করে।

বাংলাদেশ সময় : ১০১০ ঘণ্টা, আগস্ট ১৯, ২০২২
এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa