ঢাকা, বুধবার, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

আন্তর্জাতিক

খেরসানের একাধিক গ্রাম পুনরুদ্ধার ইউক্রেনীয় বাহিনীর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২০৩ ঘণ্টা, অক্টোবর ৩, ২০২২
খেরসানের একাধিক গ্রাম পুনরুদ্ধার ইউক্রেনীয় বাহিনীর ফাইল ছবি

রাশিয়া দখলকৃত খেরসনের দক্ষিণাঞ্চলের দিনিপ্রো নদীর পশ্চিম তীরের একাধিক গ্রাম পুনরুদ্ধার করেছে ইউক্রেনীয় বাহিনী। গত ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে রাশিয়ার অভিযান শুরু হওয়ার পর এই প্রথম ইউক্রেনীয় বাহিনী দক্ষিণাঞ্চলের দিকে এতটা দ্রুত অগ্রসর হচ্ছে।

সোমবার (৩ অক্টোবর) এসব এলাকা থেকে রুশ বাহিনী পিছু হটতে বাধ্য হয়েছে। খেরসনকে রুশ ফেডারেশনে অন্তর্ভুক্ত করার ঘোষণার কয়েক দিনের মাথায় এমন খবর প্রকাশ পেল।

খেরসনের রুশসমর্থিত প্রশাসনিক প্রধানের বরাত দিয়ে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম এ তথ্য জানিয়েছে। ইউক্রেনীয় বাহিনীর কাছে রাশিয়া দোনেৎস্কের গুরুত্বপূর্ণ শহর লিমানের নিয়ন্ত্রণ হারানোর একদিনের মাথায় এমন খবর পাওয়া গেছে। শনিবার (১ অক্টোবর) শহরটির নিয়ন্ত্রণ নেয় ইউক্রেনের বাহিনী।

খেরসন প্রদেশে রাশিয়া সমর্থিত প্রশাসনিক প্রধান ভ্লাদিমির সালদো রুশ রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনকে বলেন, ইউক্রেনীয় বাহিনী দিনিপ্রো নদীর তীরবর্তী বেশ কিছু এলাকা দখলমুক্ত করেছে। তারা দুদচানি গ্রাম পর্যন্ত পৌঁছে গেছে। এর মানে হলো, ইউক্রেনীয় বাহিনী এক দিনে প্রায় ৪০ কিলোমিটার অগ্রসর হয়েছে।

তবে, ইউক্রেনীয় বাহিনী এখন পর্যন্ত কতটুকু অগ্রসর হয়েছে, সে ব্যাপারে তারা কিছু নিশ্চিত করেনি। ওই এলাকার পরিস্থিতি নিয়ে কিয়েভ পুরোপুরি নীরব রয়েছে।

এদিকে রাশিয়ার সামরিক বাহিনী নিয়ে ব্লগ লেখেন এমন ব্যক্তিরা বলছেন, তারা একটি ইউক্রেনীয় ট্যাংককে ওই নদীর তীরবর্তী বেশ কয়েক কিলোমিটার এলাকা পর্যন্ত অগ্রসর হতে দেখেছেন।

আনতোন গেরাশশেনকো নামের ইউক্রেনের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা একটি ভিডিও প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন, ভিডিওতে যাকে দেখা যাচ্ছে, তিনি একজন ইউক্রেনীয় সেনা। জোলোতা বালকা এলাকায় ওই সেনা পতাকা ওড়াচ্ছেন।

এদিকে ইউক্রেনীয় বাহিনী ইতোমধ্যে দিনিপ্রো নদী পারাপারের গুরুত্বপূর্ণ পথগুলো ধ্বংস করে দিয়েছে। তীরবর্তী এলাকাগুলো ইউক্রেনীয় সেনারা পুনরুদ্ধার করায় নদীর অপর পাশে থাকা কয়েক হাজার রুশ সেনা আটকে পড়তে পারেন। সব ধরনের সরবরাহ থেকেও বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়তে পারেন তারা।

উল্লেখ্য, শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনের খেরসন, জাপোরিঝঝিয়া, দোনেৎস্ক ও লুহানস্ক অঞ্চলের প্রায় ৯০ হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকা রুশ ফেডারেশনে যুক্ত করতে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

তবে সেই ঘোষণার দিনই ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছিলেন, রাশিয়ার দখলে থাকা ভূখণ্ড পুনরুদ্ধারে তাঁরা যুদ্ধ চালিয়ে যাবেন।

বাংলাদেশ সময়: ২১৫৯ ঘণ্টা, অক্টোবর ৩, ২০২২
এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa