ঢাকা, শনিবার, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

আন্তর্জাতিক

নাতি-নাতনির খেতাব কেড়ে ‘দুঃখিত’ ডেনিশ রানি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯০৫ ঘণ্টা, অক্টোবর ৪, ২০২২
নাতি-নাতনির খেতাব কেড়ে ‘দুঃখিত’ ডেনিশ রানি

চার নাতি-নাতনির রাজকীয় খেতাব কেড়ে নেওয়ার পরে ক্ষমা চেয়েছেন ডেনমার্কের রানি দ্বিতীয় মার্গ্রেথে। যদিও এ সিদ্ধান্ত তিনি ফিরিয়ে নেননি।

রানির ভাষ্য, তিনি সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে রাজতন্ত্র কায়েম করতে চেয়েছিলেন।

দীর্ঘ সময় ধরে চিন্তার পর তিনি এ সিদ্ধান্ত নেন। এর ফলাফল কি হবে, তা ‘ভবিষ্যৎ প্রমাণ’ করবে। রানি বলেন, আমি এ ব্যাপারে আমার পরিবারের প্রতিক্রিয়ার অমূল্যায়ন করেছি, যার জন্য আমি দুঃখিত।

নাতি-নাতনির রাজকীয় খেতাব কেড়ে নেওয়ার প্রাথমিক এ সিদ্ধান্ত গত সপ্তাহে ঘোষণা করা হয়েছিল। এটি বাস্তবায়ন তবে আগামী বছর থেকে। রাজপুত্র এবং রাজকুমারীর যে উপাধিগুলো তারা এখন পর্যন্ত ধরে রেখেছে তা বন্ধ করা হবে। প্রিন্স জোয়াকিমের বংশধরদের ভবিষ্যতে ‘এক্সিলেন্সিস’ হিসেবে সম্বোধন করতে হবে।

রানির ছোট ছেলে প্রিন্স জোয়াকিম এ বিষয়টি নিয়ে বেশ বিরক্ত। এ ব্যাপারে একস্ট্রা ব্লাডেট ট্যাবলয়েডকে তিনি বলেন, আপনার সন্তানের সঙ্গে এমন দুর্ব্যবহার করা কখনই মজার নয়। তারা এমন পরিস্থিতিতে পড়ে যায়, না নিজেদের বুঝতে পারে, না খুঁজে পায়।

জোয়াকিমের স্ত্রী প্রিন্সেস মেরি জানিয়েছেন, খেতাব কেড়ে নেওয়ার নোটিশ পাওয়ার পর তার ছোট সন্তানকে স্কুলে উত্যক্ত করা হয়েছিল।

জোয়াকিম-মেরি জানান, এ পরিবর্তনগুলো ঘোষণার ব্যাপারে রানি মার্গ্রেথে তাদের সঙ্গে কোনো আলোচনা করেননি। রানির নাতি প্রিন্স নিকোলাই বলেছেন, তিনি তার পরিবারের এমন সিদ্ধান্তে চমকে গেছেন।

২০২৩ সালের শুরু থেকে জোয়াকিমের চার সন্তান প্রিন্স নিকোলাই (২৩), প্রিন্স ফেলিক্স (২০), প্রিন্স হেনরিক (১৩) এবং প্রিন্সেস অ্যাথেনা (১০) প্রিন্স এবং প্রিন্সেসের পরিবর্তে মনপেজটের কাউন্ট এবং কাউন্টেস উপাধির মাধ্যমে পরিচিত হবেন।

ডেনমার্কে রানির প্রাসাদ জানায়, ডেনিশ রাজার রাজতন্ত্রকে হ্রাস করার জন্য এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

গত সপ্তাহে এ ব্যাপারে দেওয়া বিবৃতিতে বলা হয়, মহামান্য রানি তার চার নাতি-নাতনির জীবনকে বড় করে তোলার লক্ষ্যে একটি কাঠামো তৈরি করে দিতে চান। যে কারণে আর তাদের খেতাব থাকবে না।

এর বিরূপ প্রতিক্রিয়া হওয়ায় পরে আরও একটি বিবৃতি জারি করেন ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের তৃতীয় চাচাতো বোন দ্বিতীয় মার্গ্রেথে। তিনি বলেন, আমার সন্তান, পুত্রবধূ এবং নাতি-নাতনিরা যে আমার বড় আনন্দ এবং গর্বের এ বিষয়ে কারোরই সন্দেহ থাকা উচিত নয়। আমি এখনও আশা করি, পরিবার হিসেবে আমরা এই পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে আমাদের পথ ও শান্তি খুঁজে পাব।

তাকে সমর্থন করেন তার জ্যেষ্ঠ সন্তান ক্রাউন প্রিন্স ফ্রেডেরিকের স্ত্রী ক্রাউন প্রিন্সেস মেরি। তিনি বলেন, পরিবর্তন কঠিন হতে পারে এবং সত্যিই আঘাত করতে পারে। কিন্তু এর মানে এই নয় যে সিদ্ধান্তটি সঠিক নয়।

উল্লেখ্য, ক্রাউন প্রিন্স ফ্রেডেরিক চার সন্তান তাদের পদবী রাখতে পারবে। কারণ ফ্রেডেরিকে ডেনিশ সিংহাসনের উত্তরাধিকারী।

সূত্র: বিবিসি

বাংলাদেশ সময়: ১৯০৪ ঘণ্টা, অক্টোবর ৪, ২০২২
এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa