ঢাকা, শনিবার, ২০ মাঘ ১৪২৯, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১২ রজব ১৪৪৪

ইসলাম

আমলই নির্ধারণ করবে কে উত্তম, কে অধম

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৪৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩, ২০১৭
আমলই নির্ধারণ করবে কে উত্তম, কে অধম আমলই নির্ধারণ করবে কে উত্তম, কে আধম

কাউকে যখন এই পৃথিবীর মায়া ছেড়ে চলে যেতে হয়- তখন সে সত্যিই অসহায়, অপারগ। পৃথিবীর যতোই ক্ষমতাধর কেউ হোন, এই একটা জায়গায় বড় বেশি অক্ষম, চাইলেও কিছু করার থাকে না।

এ প্রসঙ্গে আল্লাহতায়ালা বলেন, ‘জীব মাত্রই মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করবে। আর কিয়ামতের দিনই তোমাদের কর্মফল পূর্ণমাত্রায় প্রদান করা হবে।

যাকে আগুন (জাহান্নাম) থেকে দূরে রাখা হবে এবং যে জান্নাতে প্রবেশ লাভ করবে সেই হবে সফলকাম। আর পার্থিব জীবন ছলনাময় ভোগ-বিলাস ছাড়া আর কিছু নয়। ’ -সূরা আল ইমরান: ১৮৫

পরিচিত বা বিখ্যাতেদের কেউ যখন এই পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করেন, তখন তা মিডিয়াতে খবর হয়ে আসে। যেকোনো মৃত্যু সংবাদে মানুষের মন নরম হয়, মানুষ ব্যাথিত হয়; আল্লাহর কাছে দোয় করে। কেউ কেউ কঠিন বাস্তবটাও উপলব্ধি করেন।  

কখনও কখনও কারও মৃত্যুতে সোশ্যাল মিডিয়ায় হায় হায় রব উঠে। এ যেনো এক মায়াকান্না।

কান্না তখনই মায়াকান্না হয়- যখন এতে থাকে বিভ্রান্তিকর কিছু বিষয়। যেমন অন্যের দৃষ্টি আকর্ষণ। এমনও দেখা যায়, মৃত মানুষের সঙ্গে সেলফি অথবা কবর খুঁড়তে গিয়ে সেলফি। কোনো মানুষ কতোটা অমানবিক এবং বিভ্রান্ত হলে এমন করতে পারে!

এই দুনিয়ায় আমরা সবাই অসহায় এবং অস্থায়ী জীবনের অধিকারী। প্রতিদিন কেউ না কেউ অজানা গন্তব্যে পাড়ি দিয়ে এ কথাটাই আমাদের জানান দিয়ে যান। প্রমাণ দিয়ে যান কোরআনে কারিমের সেই কথাগুলোর, যেখানে বলা হয়েছে, এই দুনিয়ার জীবন খেল-তামাশা ছাড়া আর কিছুই না। আল্লাহতায়ালার কাছেই রয়েছে আসল প্রাপ্তি। একদিন মানুষকে এই পৃথিবী ছেড়ে যেতে হবে এবং আল্লাহর কাছে জবাবদিহি করতে হবে। মানুষকে সৃষ্টি করা হয়েছে তার রবের ইবাদতের জন্য। মানুষকে পরীক্ষা করা হবে কে বেশি তাকওয়া অবলম্বনকারী।  

আল্লাহতায়ালার কাছ থেকে এমন সতর্কবাণী পেয়েও আমরা কানে তুলা গুঁজে, চোখে রঙ লাগিয়ে আত্মপ্রতারণা করে চলেছি। অর্থাৎ খেল-তামাশায় ঢাকা মায়াময় এই পৃথিবীতে আসার অর্থ হচ্ছে, একটা পরীক্ষা কেন্দ্রে আসা; পরীক্ষায় অংশ নেওয়া। এটা জেনেও আমরা তাতে গাফেল হয়ে পড়ে আছি। ভুলে আছি, আমাদের চলে যেতে হবে এবং বাহন হয়ে সাহায্য করবে আমাদের ভালো কর্ম এবং আল্লাহতায়ালার রহমত।

দুনিয়ায় কে কতো বেশি নামি লোক বা কার জানাজায় কতো বেশি লোক জমায়েত হয়েছে, কাকে কতো বেশি লোক ভালো বলে ভোট দেবে তার ওপর কারও সত্যিকারের ভালোত্ব নির্ভর করে না। বরং মানুষের আমলই সেদিন বলে দেবে কে উত্তম আর কে অধম।  

জীর্ণ-শীর্ণ, গরীব, ময়লা পোশাক পরিধানকারী লোকটিও সেদিন হতে পারেন সৌভাগ্যবান; সম্মানিত। আজ যাকে আমি আপনি তুচ্ছ চোখে দেখছি। একমাত্র আল্লাহতায়ালার নির্দেশ মেনেই আমরা স্বচেষ্ট হতে পারি উত্তম কিছু নিয়ে যেতে চূড়ান্ত যাত্রায়, পেতে পারি তার রহমত।  

আল্লাহতায়ালা আমাদের জানা-অজানা সব ভুল ক্ষমা করে সঠিক পথে চালিত করুন, আমিন।

সালমা সাহলি: লস অ্যাঞ্জেলেস, যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী কবি ও লেখক

ইসলাম বিভাগে লেখা পাঠাতে মেইল করুন: [email protected]

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৩, ২০১৭
এমএইউ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa