ঢাকা, শনিবার, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩ শাবান ১৪৪৫

ইসলাম

রাসূল (সা.)-এর যুগে ব্যবসায়িক কার্যক্রম

ইসলাম ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৪৮ ঘণ্টা, নভেম্বর ১১, ২০১৮
রাসূল (সা.)-এর যুগে ব্যবসায়িক কার্যক্রম রাসূল (সা.)-এর যুগে ব্যবসায়িক কার্যক্রম

ইসলামী জ্ঞান-বিজ্ঞান শিক্ষা ও চর্চা এবং দ্বীনি দাওয়াত এবং আল্লাহর ইবাদতের জন্য রাসূল (সা.) মদিনায় মসজিদ নির্মাণ করেন। পাশাপাশি মানুষের অর্থনৈতিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য মদিনায় তিনি ইসলামী বাজার প্রতিষ্ঠা করেন। 

তিনি নিজেই বনু কায়নুকার বাজারটি পরিচালনার দায়িত্বভার নিয়েছিলেন। এ বাজারটির বৈশিষ্ট্য ছিল, এখানে কোনো রকম ধোঁকা-প্রতারণা, ঠকবাজি, মাপে কম-বেশি করার বা পণ্যদ্রব্য মজুদ অথবা আটক করে কৃত্রিম মূল্যবৃদ্ধি করে জনগণকে কষ্ট দেওয়ার সুযোগই ছিল না।

আবু হোরায়রা (রা.) বর্ণনা করেন, রাসূল (সা.) একদিন এক বিক্রেতার খাদ্যের স্তূপের সামনে দিয়ে যাচ্ছিলেন, তখন তিনি তার হাত ওই খাদ্যের স্তূপে প্রবেশ করান, এতে তার হাত ভিজে গেল এবং অনুপযুক্ত খাদ্যের সন্ধান পেলেন। তখন রাসূল (সা.) ইরশাদ করলেন, ‘হে খাদ্য বিক্রেতা! এগুলো কী?’ তখন সে বলল, হে আল্লাহর রাসূল! খাদ্যগুলো বৃষ্টিতে ভিজে গেছে। রাসূল (সা.) ইরশাদ করলেন, ‘তুমি এই ভিজা খাদ্যগুলো ওপরে রাখনি কেন, যাতে সবাই তা দেখে নিতে পারে? যে ব্যক্তি কাউকে ধোঁকা দেবে সে আমার উম্মত নয়। ’ (মুসলিম, হাদিস নং: ১০২)

নবী করিম (সা.) একদিন নামাজের জন্য বের হয়ে দেখেন, লোকজন কেনাবেচা করছে। তখন তিনি তাদের ডেকে বলেন, ‘হে ব্যবসায়ী লোকেরা! কিয়ামতের দিন কিছু ব্যবসায়ী মহা পাপীরূপে উঠবে; তবে তারা নয়, যারা আল্লাহকে ভয় করে, সততা, বিশ্বস্ততা সহকারে ব্যবসা করে। ’ (তিরমিজি, হাদিস নং: ১২১০)

অন্য হাদিসে রাসূল (সা.) ইরশাদ করেন, ‘হে ব্যবসায়ীরা! তোমরা মিথ্যা কথা ও মিথ্যা কারবার থেকে অবশ্যই দূরে থাকবে। ’ (তিবরানি)

রাসূল (সা.)-এর সার্বিক তত্ত্বাবধান ও সাহাবায়ে কেরামের সততা ও ন্যায়-নিষ্ঠার কারণে মদিনার বাজার ছিল পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ বাজার। যেখানে জগদ্বিখ্যাত সাহাবি ও ব্যবসায়ী উসমান ইবনে আফফান (রা.) ও আবু আউয়ুব আনসারিসহ (রা.) আরো অন্যান্য সাহাবিরা ব্যবসা করতেন। যারা নৈতিকতা ও নিষ্ঠাপূর্ণ ব্যবসার পাশাপাশি ইবাদত-বন্দেগি ও দান-সেবার ক্ষেত্রেও ছিলেন সর্বাগ্রে।

আল্লাহ ব্যবসায়ীদের সঠিকভাবে ব্যবসা-বাণিজ্য করার তাওফিক দান করুন।

ইসলাম বিভাগে লেখা পাঠাতে মেইল করুন: [email protected]

বাংলাদেশ সময়: ০৮৩৩ ঘণ্টা, নভেম্বর ১১, ২০১৮
এমএমইউ/আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।