ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৩১ মে ২০২৪, ২২ জিলকদ ১৪৪৫

ইসলাম

করোনা: হজ ও ওমরাহ এজেন্সির জামানতের ৫০ শতাংশ ফেরত

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮১৮ ঘণ্টা, অক্টোবর ৬, ২০২০
করোনা: হজ ও ওমরাহ এজেন্সির জামানতের ৫০ শতাংশ ফেরত

ঢাকা: করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির কারণে হজ ও ওমরাহ এজেন্সির লাইসেন্সের জামানতের ৫০ শতাংশ অর্থ আগামী এক বছরের জন্য ফেরতের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) হজ ও ওমরাহ এজেন্সিগুলোকে চিঠি দিয়ে এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়।

এতে বলা হয়, কোভিড-১৯ এ ক্ষতিগ্রস্ত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে প্রণোদনা দেওয়া সংক্রান্ত বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা এবং হজ এজেন্সিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (হাব) আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এজেন্সিগুলোকে হজ ও ওমরা লাইসেন্সের জামানতের ৫০ শতাংশ টাকা ‘কর্জে হাসানা’ (ফেরতযোগ্য) হিসেবে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

আগ্রহী হজ ও ওমরাহ এজেন্সিকে এ সংক্রান্ত আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মন্ত্রণালয়ের রক্ষিত ও লিয়েন করা জামানতের ২০ লাখ টাকার ৫০ শতাংশ বা ১০ লাখ টাকা আগামী বছরের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে অবশ্যই ফেরত দিয়ে সমন্বয় করতে হবে বলে চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

আরও বলা হয়, জামানতের ৫০ শতাংশ (ফেরতযোগ্য) অর্থ নির্ধারিত সময়ের মধ্যে (২০২১ সালের ৩১ ডিসেম্বর) যুগ্মসচিব (হজ) বরাবর ফেরত দেওয়ায় ব্যর্থ হলে সংশ্লিষ্ট এজেন্সির লাইসেন্স বাতিল করা হবে।

যেসব হজ ও ওমরা এসেন্সি অদ্যবধি জামানতের অবশিষ্ট ১০ লাখ টাকা দেয়নি বা যেসব এজেন্সির লাইসেন্স বাতিল/স্থগিত বা জামানত বায়েজয়াপ্তসহ বিভিন্ন প্রকার শাস্তি বিদ্যমান রয়েছে বা ধার্য করা জরিমানার অর্থ পরিশোধ করেনি বা আদালতে রিট/মামলা চলমান সেসব এজেন্সির আবেদন বিবেচনা করা হবে না।

আগামী ১৫ অক্টোবর থেকে ১৪ নভেম্বরের মধ্যে মন্ত্রণালয়ের ছকে আগ্রহী হজ ও ওমরা এজেন্সিকে আবেদন করতে হবে বলে জানিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়।

বাংলঅদেশ সময়: ১৮১৪ ঘণ্টা, অক্টোবর ০৫, ২০২০
এমআইএইচ/ওএইচ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।