ঢাকা, শনিবার, ২০ মাঘ ১৪২৯, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১২ রজব ১৪৪৪

ইচ্ছেঘুড়ি

অদ্ভুতুড়ে বিরল ১৩ মাছ

সানজিদা সামরিন, ফিচার রিপোর্টার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০২৩১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১০, ২০১৫
অদ্ভুতুড়ে বিরল ১৩ মাছ

সামুদ্রিক অনেক মাছের সঙ্গেই আমরা পরিচিত। বড়, ছোট, শান্ত ও হিংস্র কতশত মাছই তো রয়েছে।

কিন্তু এমনও অনেক মাছ রয়েছে যাদের হয়তো এখনো আমরা চিনি না। কখনো দেখিই নি। বন্ধুরা, তাহলে চলো দেখে নিই এবার।


ওমা! দেখে মনে হচ্ছে লাল এক দানব হা করে আছে তার গ্রাসকে গিলে ফেলার জন্য। কিন্তু এটা একটা মাছ। নাম ফ্যাঙটুথ। গভীর সমুদ্রে বসবাসকারী এ মাছটি এনোপলগেস্টার কর্নুটা নামেও পরিচিত। মজার ব্যাপার হলো এ মাছের শরীরের তুলনায় তার দাঁতের আকার বড়।


এবড়ো-থেবড়ো মানুষের চেহারার মতো দেখতে এ মাছটির নাম ব্লবফিশ। এটি ১২ ইঞ্চি পর্যন্ত লম্বা হয়। ৯০০ কিলোমিটার গভীর সমুদ্রে থাকে বলে সচরাচর মানুষের চোখে পড়ে না। এরা বিচরণ করে গভীর সমুদ্রের গলদা চিংড়ি ও কাঁকড়ার সঙ্গে।


মাছটিকে কতভাবে দেখা যায়! মেঘের বাড়ির মতো নাকি ফেনার মতো। তার নাম ওরান্ডা গোল্ডফিশ। সারা শরীরজুড়ে ফেনার মতো এই জিনিসগুলোকে বলা হয় প্রমিনেন্ট হুড বা বিশিষ্ট ফণা।


ইন্দোনেশিয়ার কমোডো দ্বীপের বালিতে আধা নিমগ্ন এই হোয়াইটমার্জিন স্টারগজারাটি অপেক্ষা করছে তা প্রত্যাশিত শিকারের।


এশিয়ান শিপশেড রেসি। চীন, উত্তর কোরিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানে এদের দেখা মেলে। শিলমাছ ও চিংড়িভোগী এ মাছটি দেখতে অন্য মাছের মতো হলেও মুখের অংশ বিশেষ করে কপাল ও চিবুকের অংশ পুরোটাই ব্যাতিক্রম।


মাছটার মাথা ও শরীরের অংশের রঙের এত পার্থক্য দেখে মনে হয় যেন নীল রঙের জামা পরে আছে সে। দাঁতগুলো দেখেছো কি ধারালো? আর  এ কারণেই বুঝি তার নাম ড্রাগনফিশ। মজার ব্যাপার হলো ড্রাগনফিশ নিজের শরীরের অভ্যন্তরে আলোক উৎপন্ন করতে পারে।


সবুজ রঙের মাছটা সোনালি চোখে তাকিয়ে আছে। মুখে একরাশ ছোট ছোট ডিম। চোয়াল বড় বলে এর নাম জো ফিশ। ডিম পাড়ার পর নারী জো ফিশ পুরুষ জো ফিশের কাছে ডিম দিয়ে দেয় বাচ্চা ফোটানোর জন্য।


দেখেই বোঝা যাচ্ছে মাছটা ভীষণ রাগী। সত্যিই তাই বন্ধুরা। দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকার এ মাছটি অত্যন্ত বিষধর ও মাংসাশী। নাম তার টেসলড স্কোরপিওনফিশ।


এর নাম রগফিশ। এরা অ্যাঙলার ফিশের এক প্রজাতি। ইন্দেনেশিয়ার বালি ও গ্রীষ্মমণ্ডলীয় সমুদ্রে এদের বসবাস। বিপদ থেকে রক্ষার জন্য ছদ্মবেশ নিতে এরা খুবই পারদর্শী।


ইন্দোনেশিয়ার সুলাওয়েসেল দ্বীপে দেখা মেলে বক্স ফিশের। বাক্সের মতো দেখতে বলে তার নাম বক্স ফিশ। ছোট বক্স ফিশের রং উজ্জল থাকে কিন্তু বয়স বাড়ার সাথে সাথে তাদের রং তামাটে হয়ে পড়ে।


গাইকিডেলিকা নামের এ মাছটি সমুদ্রের রাবার বলের মতো লাফাতে পারে। গভীর জলে বিচরণ করা এ মাছটির গায়ে বাদামি রঙের ডোরাকাটা দাগ আছে। একে ফ্রগফিশও বলা হয়।


মাছটা কি রঙিন তাই না? দেখে মনে হয় এই মাত্র কেউ তার গায়ে রং মাখিয়ে দিয়েছে। রেড স্পটেট ব্লেনি নামের মাছটি বসে তার ডিম পাহারা দিচ্ছে।


এমন সুন্দর মাছ দেখেছো কখনো? যেন মাত্র সাজগোছ করে বেড়াতে বের হলো। অন্য মাছের চেয়ে আকারে বড় মাথা রেডলিপ ব্যাটফিশ নামক এ মাছটির। আর সব মাছের মতো তারা সাঁতার কাটতে পারে না। তাই হেঁটে বেড়ায় সমুদ্রতলে। গালাপাগোস দ্বীপে তাদের রাজত্ব।

বাংলাদেশ সময়: ০২৩০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১০, ২০১৫

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa