ঢাকা, রবিবার, ১০ আশ্বিন ১৪২৯, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২৭ সফর ১৪৪৪

আইন ও আদালত

ছাত্রীর শ্লীলতাহানি: বিকাশ পরিবহনের ‘সেই চালক’ কারাগারে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০৩ ঘণ্টা, জুলাই ৩০, ২০২২
ছাত্রীর শ্লীলতাহানি: বিকাশ পরিবহনের ‘সেই চালক’ কারাগারে চালক মাহবুবুর রহমান

ঢাকা: রাজধানীতে বিকাশ পরিবহনের একটি চলন্ত বাসে এক ছাত্রীকে যৌননিপীড়নের অভিযোগে গ্রেফতার চালক মাহবুবুর রহমানকে রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। শনিবার (৩০ জুলাই) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট নুরুল হুদা তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

গত ২৮ জুলাই চালক মাহবুবুর রহমানের একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন অপর একটি আদালত। সেই রিমান্ড শেষে তাকে আদালতে হাজির করে তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আজিমপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আছিবুজ্জামান আসিফ। সেই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

এর আগে এ ঘটনায় লালবাগ থানায় একটি মামলা হয়েছে। মামলার পর ঢাকার তুরাগ থানার বালুর মাঠ এলাকা থেকে চালক মাহবুবুর রহমানকে গত ২৭ জুলাই গ্রেফতার করে লালবাগ থানার পুলিশ। পরদিন তার একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়। সেই সঙ্গে বিকাশ পরিবহনের বাসটিও জব্দ করা হয়েছে।

এই মামলায় গত ২৮ জুলাই সাভারের আশুলিয়া থেকে হেলপার কাওসারকে গ্রেফতার করা হয়। শুক্রবার (২৯ জুলাই) তার দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন অপর একটি আদালত।

পুলিশ ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ জুলাই ভুক্তভোগী রাত পৌনে ৯টার দিকে ধানমন্ডি থেকে আজিমপুরে বাসায় যাওয়ার উদ্দেশে বিকাশ পরিবহনের একটি বাসে ওঠেন। বাসে উঠে কানে হেডফোন দিয়ে গান শুনতে শুনতে এক পর্যায়ে তিনি তন্দ্রাচ্ছন্ন হয়ে পড়েন। পরে রাত আনুমানিক ৯টা ১০ মিনিটের দিকে ভুক্তভোগী অনুভব করেন, তার শরীরে কেউ হাত দিয়েছেন। তখন তিনি তাকিয়ে দেখেন বাসে কোনো যাত্রী নেই এবং তার পাশের সিটে বাসটির হেলপার বসা।

তখন ওই ছাত্রী বিপদ আঁচ করতে পেরে বাসের হেলপারকে ধাক্কা দিয়ে  সিট থেকে দাঁড়িয়ে নামার চেষ্টা করেন। এ সময়  হেলপার তাকে পেছন থেকে এক হাতে মুখ চেপে ধরেন। আর ওই ছাত্রী নিজেকে বাঁচানোর জন্য সর্বশক্তি দিয়ে হেলপারের কাছ থেকে ছুটে চালককে চিৎকার করে বাস থামাতে বলেন। কিন্তু চালক বাস না থামিয়ে দ্রুতগতিতে ইডেন কলেজের সামনে দিয়ে আজিমপুরের দিকে যেতে থাকেন। একপর্যায়ে আজিমপুর গার্লস স্কুলের কাছে বাসটি কিছুটা গতি কমালে ওই ছাত্রী লাফ দিয়ে নেমে আত্মরক্ষা করেন।

এরপর ভুক্তভোগী ঘটনাটি ফেসবুকে শেয়ার করে একটি পোস্ট দেন। এর প্রেক্ষিতে লালবাগ থানা পুলিশ প্রাথমিক অনুসন্ধানে ভুক্তভোগীকে চিহ্নিত ও তথ্য সংগ্রহ করে। সেই সঙ্গে তাৎক্ষণিক সিসি ফুটেজ পর্যালোচনা এবং আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে বিকাশ পরিবহনের বাসটি শনাক্ত করা হয়।  

বাংলাদেশ সময়: ১৮০২ ঘণ্টা, জুলাই ৩০, ২০২২
কেআই/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa