ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৮ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

প্রথম রমজান শেষে আকাশে অদ্ভুত চাঁদ!

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৫৫ ঘণ্টা, মার্চ ২৪, ২০২৩
প্রথম রমজান শেষে আকাশে অদ্ভুত চাঁদ!

বরগুনা: রমজান শুরু হয়ে গেছে একদিন আগেই। তাই নতুন চাঁদ দেখার যে কৌতূহল-হুড়োহুড়ি, সেটা থাকার কথা না।

তবুও প্রথম রমজানের ইফতার শেষ হতেই বাসার ছাদে কিংবা গলির মোড়ে, সব জায়গাতেই চাঁদ দেখার এক অদ্ভুত ভিড় জমতে দেখা গেল।  

আর আকাশে দেখা গেল চাঁদের অদ্ভুত এক দৃশ্য! দ্বিতীয় রমজানের একফালি চাঁদের ঠিক নিচে জ্বলজ্বল করছে আরেকটি আলোকবিন্দু! হারের নিচে থাকা লকেটের মতো! ঠিক যেন চন্দ্রহার!

আজ শুক্রবার (২৪ মার্চ) দেশের আকাশে এমনই এক অদ্ভুত বিস্ময়কর সুন্দর চাঁদ দেখা গেল।  

কেউ সেই চাঁদের ছবি তুলতে ব্যস্ত, তো কেউ আবার ফেসবুক লাইভে ব্যস্ত! এ যেন এক অদ্ভুতুড়ে ব্যাপার!

আসলে, একফালি এই চাঁদের ঠিক নিচে অবস্থান করছিল একটি উজ্বল তারা। আর এই দুয়ে মিলে যেন তৈরি হয়েছে লকেটযুক্ত চন্দ্রহার! অনেকটা আরবি 'বা' হরফের রূপ ধারণ করেছিল। যা দেখতে হাজার হাজার মানুষ রাস্তায় ভিড় করে এবং ফেসবুকে পড়ে যায় কৌতূহলী পোস্টের হিড়িক।

বরগুনা সদরের ১ নম্বর ওয়ার্ডের চরকলোনী এলাকার বাসিন্দা রমিজ জাবের বলেন, এমন অদ্ভুত চাঁদ আমরা কখনোই দেখিনি। তাই সবাইকে নিয়ে আরবি অক্ষরের মতো এই চাঁদ দেখতে এসেছি।

বরগুনা পৌরসভার বাসিন্দা নুপুর জানান, ফেসবুকে চাঁদের এমন ছবি দেখে রাস্তায় নেমে আসি। এসে দেখলাম হাজারো মানুষের ভিড়, চাঁদ নিয়ে নানা কৌতূহল!

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মূলত দ্বিতীয় রমজানের চাঁদের ঠিক নিচ বরাবর শুক্র গ্রহের অবস্থানের কারণেই এই দৃশ্যকে এমন অদ্ভুত লেগেছে।

শুক্র গ্রহকে অনেকেই পৃথিবীর 'বোন গ্রহ' বলে আখ্যায়িত করে থাকেন। কারণ, বিজ্ঞানীদের গবেষণা অনুযায়ী, পৃথিবী এবং শুক্রের মধ্যে গাঠণিক উপাদান এবং আচার-আচরণে বেশ মিল রয়েছে।

এই গ্রহটি যখন সকাল বেলায় পৃথিবীর আকাশে দেখা যায় তখন, একে লুসিফার বা শয়তান নামেও ডাকা হয়ে থাকে। বাংলায় সকালের আকাশে একে শুকতারা এবং সন্ধ্যার আকাশে একে সন্ধ্যাতারা বলে ডাকা হয়ে থাকে।
 
বাংলাদেশ সময়: ২২৩৩ ঘণ্টা, মার্চ ২৪, ২০২৩
এনএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।