ঢাকা, রবিবার, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২১ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলের বৈজ্ঞানিক গবেষণায় সাব-কমিশনের প্রস্তাব

ডিপ্লোম্যাটিক করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩২৮ ঘণ্টা, মার্চ ২৮, ২০২৩
ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলের বৈজ্ঞানিক গবেষণায় সাব-কমিশনের প্রস্তাব

ঢাকা: ভারত মহাসাগীয় অঞ্চলের বৈজ্ঞানিক গবেষণার লক্ষ্যে একটি সাব-কমিশনের প্রস্তাব দিয়েছে  বাংলাদেশ। এই প্রস্তাব পাস হলে বাংলাদেশসহ ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলে বৈজ্ঞানিক গবেষণায় উন্নয়ন হবে।

মঙ্গলবার (২৮ মার্চ) পররাষ্ট্র সচিব (মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স ইউনিট) রিয়ার অ্যাডমিরাল (অব.)  মো. খুরশেদ আলম সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এ তথ্য জানান।

রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে ইউনেস্কোর ইন্টারগভর্নমেন্টাল ওশনোগ্রাফিক কমিশনের আঞ্চলিক কমিটি ফর দ্য সেন্ট্রাল ইন্ডিয়ান ওশানের নবম সভার উদ্বোধন করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন রিয়ার অ্যাডমিরাল (অব.)  মো. খুরশেদ আলম।

সভার উদ্বোধন শেষে তিনি বলেন, সারা বিশ্বের সমুদ্র পর্যবেক্ষণ করা হয়, সেটা সুনামির জন্য হোক বা অন্য কোনো কারণে। তবে আমাদের এখানে ইন্ডিয়ান ওশানে এটা খুব কম হয়ে থাকে।

তিনি জানান, ইউনেস্কোর ইন্টারগভর্নমেন্টাল ওশনোগ্রাফিক কমিশনের আঞ্চলিক কমিটি ফর দ্য সেন্ট্রাল ইন্ডিয়ান ওশানের বাংলাদেশ চেয়ার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে। আমরা দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে এই কমিটিকে সাব-কমিশন করার চেষ্টা করছি। আমাদের প্রস্তাব পাস হলে  বাংলাদেশসহ ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলে বৈজ্ঞানিক গবেষণায় উন্নয়ন হবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভিডিও বক্তব্য দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

তিনি বলেন, ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলে টেকসই সমুদ্র সুশাসন প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশ অন্যান্য দেশের সঙ্গে একযোগে কাজ করতে আগ্রহী। সমুদ্র খাত উন্নয়নে আমাদের সবার সমান লক্ষ্য। এই খাতে আমরা অন্যন্যাদের সঙ্গে যুবকদেরও সসম্পৃক্ত করতে চাই।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন ইউনেস্কোর ইন্টারগভর্নমেন্টাল ওশনোগ্রাফিক কমিশনের আঞ্চলিক কমিটি ফর দ্য সেন্ট্রাল ইন্ডিয়ান ওশানের নির্বাহী সচিব ভ্লাদিমির রিয়াবিনিন।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ছাড়াও ভারত, পাকিস্তান, মালদ্বীপ, শ্রীলঙ্কা, সংযুক্ত আরব আমিরাত, অস্ট্রেলিয়াসহ ১৮ টি দেশের প্রতিনিধিরা যোগ দিয়েছেন। তিন দিনব্যাপী এই সভা আগামী ৩০ মার্চ শেষ হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৩২৮ ঘণ্টা, মার্চ ২৮,  ২০২৩,
টিআর/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।