ঢাকা, রবিবার, ১৬ আশ্বিন ১৪৩০, ০১ অক্টোবর ২০২৩, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

সিলেটে সবজি বিক্রেতা হত্যার হোতা আটক

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪২২ ঘণ্টা, জুন ৪, ২০২৩
সিলেটে সবজি বিক্রেতা হত্যার হোতা আটক র‌্যাবের হাতে আটক হত্যাকাণ্ডের হোতা সার্কিট

সিলেট: সিলেটে ছিনতাইকালে সবজি বিক্রেতা গোবিন্দ দাস হত্যার হোতা হৃদয় আহমদ ওরফে সার্কিটকে আটক করেছে র‌্যাব-৯’র একটি টিম। এ নিয়ে হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় চারজনকে আটক করা হয়েছে।

এরআগে পুলিশ আরও তিনজনকে আটক করে।

রোববার (৪ জুন) ভোর সাড়ে ৪টার দিকে সিলেটের সীমান্তবর্তী গোয়াইনঘাট উপজেলার ফতেহপুর ইউনিয়নের গোসাইনপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়।

আটক হৃদয় আহমদ ওরফে সার্কিট (১৯) নগরের শাহপরান থানাধীন শিবগঞ্জ সাদিপুর এলাকার রফিক মিয়ার ছেলে।

র‌্যাব-৯ এর মিডিয়া অফিসার (সিনিয়র এএসপি) আফসান আল আলম স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত বৃহস্পতিবার (১ জুন) ভোরে নগরের সুবহানীঘাট কাঁচাবাজার থেকে সবজি কিনতে রওনা হন গোবিন্দ দাস (৩৫)। নগরের ধোপাদিঘীর পূর্বপারে পৌঁছামাত্র ছিনতাইকারীরা ধারাল চাকু দিয়ে তার ডান বগলের নিচে আঘাতে গুরুতর জখম করে ৭ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে পথচারীরা তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সকাল সাড়ে ৮টায় চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত গোবিন্দ দাস সুনামগঞ্জ জেলার শাল্লা উপজেলার বড়গাঁও এলাকার গৌরাঙ্গ দাসের ছেলে। বর্তমানে তিনি নগরের আখালিয়া নতুন বাজার রাংকু দাসের বাসায় স্ত্রী-সন্তান নিয়ে ভাড়া বাসায় থেকে দীর্ঘদিন ধরে ভ্যানে করে সবজি বিক্রি করে দিনাতিপাত করতেন।

এ ঘটনায় নিহতের বড় ভাই জনারধন সরকার বাদী হয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা করেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে আসামিদের আইনের আওতায় নিয়ে আসতে র‌্যাব-৯ তার গোয়েন্দা তৎপরতা জোরদার করে।

ছায়া তদন্তের এক পর্যায়ে র‌্যাব গোয়েন্দা তথ্য ও তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলার অন্যতম হত্যাকারী হৃদয় ওরফে সার্কিটকে আটক করা হয়।

র‌্যাব হত্যাকাণ্ডের ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ পর্যালোচনা করে দেখতে পায় আসামি হৃদয় আহমেদ ওরফে সার্কিট ধারালো চাকু দিয়ে গোবিন্দ দাসকে গুরুতর জখম করে দৌড়ে পালিয়ে যায়। এছাড়া প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটক সার্কিট হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করে। তাকে কোতোয়ালি থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

এরআগে বৃহস্পতিবার (০১ জুন) ঘটনার দিন রাত সাড়ে ৮টার দিকে হত্যাকান্ডে জড়িত ৪ ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এ হত্যাকাণ্ডে আটক বাকিরা হলেন-সিলেটের শিবগঞ্জ সাদিপুর গ্রামের সেলিম মিয়ার ছেলে রাহাত রাব্বি (২০), একই এলাকার রিন্টু দাসের ছেলে সৌরভ দাস (১৯) ও নগরের টিলাগড় ১নং সড়কের ভাটাটিকর এলাকার আলমাছ মিয়ার ছেলে আতিকুর রহমান শুভ (১৯)।

বাংলাদেশ সময়: ১৪২২ ঘণ্টা, জুন ০৪, ২০২৩
এনইউ/জেএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa