ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৮ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

স্মার্ট বাংলাদেশ পুরস্কার পেলেন যারা

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭০৩ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৮, ২০২৩
স্মার্ট বাংলাদেশ পুরস্কার পেলেন যারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত থেকে পুরস্কার নিচ্ছেন নাসিমা আক্তার নিশা

ঢাকা: তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে মানুষের জীবনমান উন্নয়ন ও সমস্যার সমাধানে অবদানের জন্য ২০২৩ সালের স্মার্ট বাংলাদেশ পুরস্কার দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (১৮ অক্টোবর) রাজনীতিতে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

জাতীয় পর্যায়ে পুরস্কার

সাধারণ ব্যক্তিগত সরকারি ক্যাটাগরিতে পর্যটন নগরী কক্সবাজার শহরে যানবাহন চালকদের স্মার্ট ডাটাবেজ ‘কক্সক্যাব’ চালু করার জন্য ওই জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার +ট্রাফিক) মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন চৌধুরী এবং যুব ও যুব নারী উদ্যোক্তা ও দক্ষতা উন্নয়নে লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাসুদ আলম পুরস্কার পেয়েছেন।

সাধারণ দলগত সরকারি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। অনলাইন ওয়ান স্টপ সার্ভিসের জন্য এই পুরস্কার দেওয়া হয়। দলনেতা হিসেবে বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান লোকমান হোসেন মিয়া, নির্বাহী সদস্য ড. খন্দকার আজিজুল ইসলাম, মহাপরিচালক জীবন কৃষ্ণ সাহা রায়, সহকারী পরিচালক আবুজার গিফারী তমাল, সহকারী নেটওয়ার্ক ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ তাজমিলুর রহমান।

সাধারণ প্রাতিষ্ঠানিক সরকারি ক্যাটাগরিতে
অনলাইন পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সিস্টেমের জন্য পুলিশ মহাপরিদর্শক চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন পুরস্কৃত হয়েছেন।

সাধারণ প্রাতিষ্ঠানিক বেসরকারি ক্যাটাগরিতে
উইমেন অ্যান্ড ই-কমার্স (উই) এর প্রেসিডেন্ট জন্য নাসিমা আক্তার নিশা পুরস্কার পেয়েছেন।

কারিগরি ব্যক্তিগত সরকারি ক্যাটাগরিতে স্থানীয় ভারী শিল্পসমূহের যন্ত্রপাতির কন্ট্রোল সিস্টেম, ইলেকট্রনিক্স, ফার্মওয়্যার, হার্ডওয়ার ও সফটওয়্যার তৈরি উৎপাদনের জন্য চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ আরিফ ইফতেখার মাহমুদ পুরস্কার পেয়েছেন।

কারিগরি ব্যক্তিগত বেসরকারি ক্যাটাগরিতে
সব ওয়াইফাইয়ের একক পাসওয়ার্ড এর জন্য প্লেক্সাস ক্লাউড লিমিটেডের সিইও মোবারক হোসেনকে পুরস্কৃত করেছে সরকার।

কারিগরি দলগত সরকারি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছে বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট। সেন্সর ভিত্তিক ধানের রোগ বালাই ব্যবস্থাপনার জন্য। দলনেতা হিসেবে সিএসও ড. মো. ইসমাইল হোসেন ও সদস্য হিসেবে প্রোগ্রামার মোহাম্মদ মাহফুজ বিন ওয়াহাবকে পুরস্কৃত করা হয়।

কারিগরি দলগত বেসরকারি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছে মানু ফার্মস। প্রতিষ্ঠানের সিইও ও ফাউন্ডার মোহাম্মদ শাহিন, কোপাউডার আলিফ বিনতে শাহীন, টেকনোলজি অফিসার মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ, চিফ অপারেশন অফিসার রুমানা আক্তার, চিফ কমিউনিকেশন অফিসার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম পুরস্কার পেয়েছেন।

কারিগরি প্রাতিষ্ঠানিক সরকারি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছে ন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন মনিটরিং সেন্টার-এনটিএমসি। এনটিএমসির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল জিয়াউল আহসান। সিকিউরিটি অপারেশনস সেন্টারের জন্য এই পুরস্কার দেওয়া হয়।

কারিগরি প্রাতিষ্ঠানিক বেসরকারি ক্যাটাগরিতে টেক গার্লিক লি. এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ওবায়দুর রহমান পুরস্কৃত হয়েছেন। আইওটিভিত্তিক স্মার্ট ইরিগেশন সিস্টেমের জন্যই পুরস্কার দেওয়া হয়।

জেলা পর্যায়ে পুরস্কার

সাধারণ ব্যক্তিগত সরকারি ক্যাটাগরিতে প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রাণিসম্পদ বিভাগের অনলাইন রিপোর্টিং এর জন্য নওগাঁর হাঁস প্রজনন খামারের প্রাণিসম্পদ অফিসার কাজী আবু সাঈদ পুরস্কার পেয়েছেন। সাধারণ ব্যক্তিগত বেসরকারি ক্যাটাগরিতে আইডি টাচ ইন কওমি মাদ্রাসার জন্য শেরপুরের জামিয়া সিদ্দিকা মাদ্রাসার শিক্ষক ও ফ্রিল্যান্সার মো. মিনহাজ উদ্দিন পুরস্কৃত হন।

স্মার্ট জনবান্ধব হাসপাতালের জন্য সাধারণ দলগত সরকারি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। দলনেতা হিসেবে হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ফেরদৌস, সদস্য হিসেবে উপ-পরিচালক ডা. মো. জাকিরুল ইসলাম, রেজিস্টার ডা. মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম খান। এছাড়া আনন্দ সফট বিডির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জিনিয়া রহমান ও পরিচালক মো. মোখলেসুর রহমানকে পুরস্কার দেওয়া হয়।

সাধারণ প্রাতিষ্ঠানিক সরকারি ক্যাটাগরিতে সরকারি সকল অনুদান ওটিপির সাহায্যে বিতরণের জন্য জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুন নাহার শেফাকে পুরস্কার দেওয়া হয়।

সাধারণ প্রাতিষ্ঠানিক বেসরকারি ক্যাটাগরিতে ফ্রিল্যান্সিং-এর মাধ্যমে ৪০০ জনের কর্মসংস্থানে এসইও এক্সপোর্ট বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মিজানুর রহমানকে পুরস্কার দেওয়া হয়।

কারিগরি ব্যক্তিগত সরকারি ক্যাটাগরিতে
নয়টি অ্যাপস উদ্ভাবনের মাধ্যমে কৃষকদের নিরাপদ খাদ্য উৎপাদনের সহায়তার জন্য উপসহকারী কৃষি অফিসার সুভাষ চন্দ্র দত্ত। কারিগরি ব্যক্তিগত বেসরকারি ক্যাটাগরিতে বেবিটিউবের জন্য বেবি টিউবের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী মো. শামীম আশরাফকে পুরস্কার দেওয়া হয়।

কারিগরি দলগত সরকারি ক্যাটাগরিতে পোল্ট্রি ফার্মিং শেডে অ্যাপ্লিকেশনের জন্য একাধিক সেন্সর নেটওয়ার্কসহ স্মার্ট অ্যামোনিয়া দূষণ হ্রাসকরণ, সিস্টেম ডিজাইনের জন্য পুরস্কার পেয়েছে হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। দলনেতা হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মাহবুব হোসেন, সদস্য মোহাম্মদ সেলিম হোসেন, শিক্ষার্থী মো. রিফাত হোসেন, মোহাম্মদ আজিজুল হাকেম বাপ্পি এবং  মুজতুবা রাফিদ।

কারিগরি দলগত বেসরকারি মানব কল্যাণে হিউম্যান রোবট বঙ্গবন্ধুর জন্য পুরস্কার পেয়েছে আদমজী ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুলের শিক্ষার্থী মো. জগলুল করিম, চট্টগ্রাম ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক কলেজের শিক্ষার্থী আবরার শহীদ ও তোয়াহা জুবায়ের এবং আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজের শিক্ষার্থী শাহরিয়ার করিম ফাহাদ।

কারিগরি প্রাতিষ্ঠানিক বেসরকারি ক্যাটাগরিতে অ্যান অর্গানাইজেশন ফর সোসিও ইকনোমিক ডেভেলপমেন্টের নির্বাহী পরিচালক শামীম আরফিন।  

বাংলাদেশ সময়: ১৬৫৯ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৮, ২০২৩
এমআইএইচ/এসআইএস  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।