ঢাকা, বুধবার, ৪ বৈশাখ ১৪৩১, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৭ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

মেট্রোরেলের সুবিধায় বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে উপচে পড়া ভিড়

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৩৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২৪
মেট্রোরেলের সুবিধায় বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে উপচে পড়া ভিড়

ঢাকা: একুশের চেতনায় গোটা জাতি পালন করছে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস।

২১ ফেব্রুয়ারি সরকারি ছুটির দিন।

ছুটির দিনটিকে একটু ভিন্ন আমেজে কাটাতে নগরবাসী বেছে নিয়েছে বিভিন্ন বিনোদন কেন্দ্র। প্রভাত ফেরির পর থেকে বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে ভিড় বাড়তে থাকে বেলা বাড়ায় সঙ্গে সঙ্গে মিলন মেলায় পরিণত হয়। মেট্রোরেলের কারণে গত কয়েকবছরের তুলনায় বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে ভিড় কয়েকগুণ বেড়েছে।

বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সকাল থেকে একুশে গ্রন্থমেলা, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান, রমনা পার্ক, টিএসসি চত্বর, হাতিরঝিল, চন্দ্রিমা উদ্যান, সংসদ ভবন এলাকা এবং আগারগাঁও বিমান জাদুঘরে ছিল মানুষের ঢল।

রাজধানীর এসব এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ তাদের আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব ও পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে বেড়িয়েছেন বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে।  উত্তরার দিয়াবাড়ি থেকে পরিবার নিয়ে মেট্রোরেলে বই মেলায় ঘুরতে এসেছেন রবিউল ইসলাম। তিনি বাংলানিউজকে বলেন, এদিনে জ্যামের কারণে কখনও বইমেলায় আসার সাহস করিনি। কিন্তু মেট্রোরেল আমাদের কাছে আশীর্বাদ হয়ে এসেছে, ৩০ মিনিটে মিরপুর থেকে চলে আসলাম এবং আশা করছি রমনা টিএসসি ঘুরে আটটায় রওয়ানা দিয়ে সাড়ে ৮টায় বাড়ি ফিরতে পারবো।

ছুটির দিনে মিরপুর ১২ নম্বর সেকশন থেকে পরিবার নিয়ে সংসদ ভবন এলাকায় ঘুরতে এসেছেন রমজান আলী। তিনি বাংলানিউজকে বলেন, পরিবার নিয়ে ১৫ মিনিটে মেট্রোরেলে চলে এলাম এখানে। একটু ভিড় থাকলেও জ্যামের ধকল থেকে আমরা মিরপুরবাসী অনেকটাই মুক্ত বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, মাতৃভাষা দিবসে মনোমুগ্ধকর বাতাসে এখানে এসে ভালোই লাগছে। মেট্রো হয়ে যাওয়ায় ছুটির দিনে নিয়মিত পরিবার নিয়ে একটু ঘুরে বেড়ানোও যায়।

এদিকে ছুটির দিনে দুপুরের পর থেকে হাতিরঝিলে লোকসমাগম বাড়তে থাকে। বিশেষ করে মনোমুগ্ধকর বাতাসে পরিবার নিয়ে কিছুটা সময় কাটাতে ছুটে এসেছেন দর্শনার্থীরা। মতিঝিল ও দিয়াবাড়ী থেকে আসা দর্শনার্থীরা মেট্রোরেলে কাওরান বাজার স্টেশনে নেমে অনেকেই হেঁটে রওয়ানা দেন হাতিরঝিলে। মেট্রোরেলের কারণে সময় কম লাগায় এটুকু পথ হাঁটতে কোনো ক্লান্তি নেই বলেও জানিয়েছেন তারা।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে পুলিশ প্লাজা, মেরুল বাড্ডা, মগবাজার মোড়, মধুবাগ অংশ থেকে হাতিরঝিল উড়াল সড়ক ধরে শুটিং ক্লাব যাওয়ার পথে ফুটপাতসহ সব স্থানেই জনসমুদ্রে পরিণত হয়। তবে দর্শনার্থীদের কারো মধ্যেই কোনো ক্লান্তি দেখা যায়নি। সবাই ছুটির দিনে আনন্দ উপভোগ করতেই পরিবার নিয়ে ছুটে এসেছেন মেট্রোরেলে বলেও জানান তারা।

তবে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে সরকারি ছুটি হলেও জরুরিসেবা হিসেবে বুধবার চালু থাকবে মেট্রোরেল। মঙ্গলবার ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের এমন ঘোষণা নগরবাসীকে স্বস্তি দিয়েছে বলেও মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

বাংলাদেশ সময়: ২০৩৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২৪
এসএমএকে/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad