ঢাকা, বুধবার, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

মৌলভীবাজারে নদীর পাড়ে তৈরি হচ্ছে বিনোদন কেন্দ্র

ডিভিশনাল সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭০৮ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৩, ২০২১
মৌলভীবাজারে নদীর পাড়ে তৈরি হচ্ছে বিনোদন কেন্দ্র মৌলভীবাজারে নদীর পাড় ঘেঁষে নতুন বিনোদন কেন্দ্র তৈরি। ছবি: বাংলানিউজ

মৌলভীবাজার: নতুন বিনোদনকেন্দ্র তৈরি করতে কাজ চলছে মৌলভীবাজার শহরের মনু নদীর পাড়ে।

জেলা শহরে ছিল না কোনো প্রকার বিনোদনকেন্দ্র।

ফলে দীর্ঘদিন ধরে পর্যটকরা বিনোদনের সুযোগ বঞ্চিত হচ্ছেন। শহর ঘেঁষে বয়ে যাওয়া মনু নদের শান্তিবাগ এলাকার পাড়টিতে বিনোদনকেন্দ্র নির্মাণের কাজ দ্রুতগতিতে চলছে।

পৌরসভা সূত্রে জানা গেছে, মনু নদীর তীরেই গড়ে উঠেছে মৌলভীবাজার জেলা শহরটি। শহরের উত্তর পাশদিয়ে মনু নদী ভাটির দিকে চলে গেছে। মনু নদী চাঁদনীঘাট সেতু থেকে প্রধান ডাকঘর এলাকা পর্যন্ত বিনোদন কেন্দ্রের নির্মাণকাজ চলছে। পাড়ের ওপরে রাস্তা নির্মাণ করা হচ্ছে সঙ্গে গাইডওয়াল। চলছে ক্যান্টিন নির্মাণসহ অন্যান্য কাজও।

পৌর কর্তৃপক্ষ জানায়, শহরের শান্তিবাগ এলাকায় ‘মনু নদীর পাড়ে সড়ক, শিশুপার্ক, হাঁটাপথ ও সৌন্দর্যকরণ’ প্রকল্পের কাজ শুরু করা হয়েছে। এই প্রকল্পে চাঁদনীঘাট মনু সেতু থেকে ডাকঘর পর্যন্ত ৮০০ মিটার আরসিসি ঢালাই সড়ক পথ নির্মাণ করা হবে। সড়কের দু'পাশে থাকবে হাঁটার পথ। একটি ক্যান্টিন, নারী ও পুরুষের জন্য পৃথক দু'টি শৌচাগারও থাকবে। নদের পাড়ের সৌন্দর্য বাড়াতে ফুল ও নানা জাতের স্থানীয় গাছ লাগানো হবে। প্রকল্পে ব্যয় হবে ১০ কোটি ১১ লাখ ১৬ হাজার ২৮৫ টাকা।

মৌলভীবাজার পৌর মেয়র মো. ফজলুর রহমান বলেন, প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে। এরই মধ্যে সড়কের গাইডওয়াল তৈরি হয়েছে। সড়ক ঢালাইয়ের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। পাইলিংয়ের কাজ শুরু হবে শিগগিরই। পূর্ণ কাজ আগামী বছর জুনের মধ্যে শেষ হবে।

প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে শহরের সৌন্দর্য যেমন বাড়বে, তেমনি মানুষ কিছুটা সময় নদীর পাড়ে বসে, আড্ডা দিয়ে তাদের সময় ভালো করে কাটাতে পারবেন। এছাড়াও পর্যটকেরা এ সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারবেন বলে জানান পৌর মেয়র।

বাংলাদেশ সময়: ১৭০৮ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৩, ২০২১
বিবিবি/কেএআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa