ঢাকা, বুধবার, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

অন্যান্য দল

সিপিবির ১১তম কংগ্রেস শুরু শুক্রবার, প্রস্তুতি সম্পন্ন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৪৫ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৫, ২০১৬
 সিপিবির ১১তম কংগ্রেস শুরু শুক্রবার, প্রস্তুতি সম্পন্ন ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঢাকা: বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) চার দিনব্যাপী কংগ্রেস অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৮ থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত।

শুক্রবার (২৮ অক্টোবর) ১১তম এ কংগ্রেসের উদ্বোধন শেষে শনিবার (২৯ অক্টোবর) থেকে সাংগঠনিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চের কাজী বশির মিলনায়তনে।

মঙ্গলবার (২৫ অক্টোবর) সংবাদ সম্মেলনে কংগ্রেস প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক ও সিপিবির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী সাজ্জাদ জহির চন্দন জানান, ইতোমধ্যে কংগ্রেসের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

রাজধানীর পুরানা পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবু জাফর আহমেদ, রুহিন হোসেন প্রিন্স, লক্ষ্মী চক্রবর্তী, অনিরুদ্ধ দাশ অঞ্জন প্রমুখ।

লিখিত বক্তব্যে সাজ্জাদ জহির চন্দন জানান, ইতোমধ্যে দেশের সব শাখা, উপজেলা এবং জেলা কমিটির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জেলা কমিটিগুলোর সম্মেলনে কংগ্রেসে যোগদানের জন্য ৬৮৩ জন প্রতিনিধি নির্বাচিত হয়েছেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন ২১৭ জন নারী ও ১৭ জন আদিবাসী। এছাড়া ১০৮ জন পর্যবেক্ষক মনোনীত হন।

কংগ্রেসের উদ্বোধনী সমাবেশ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ২৮ অক্টোবর দুপুর ২টায় অনুষ্ঠিত হবে। শুরুতেই উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী পরিবেশন করবে গীতি-আলেখ্য ‘দিন বদলের পালা’। এরপর সংহতি জানাতে আসা বিদেশি প্রতিনিধিদের উদ্বোধনী মঞ্চে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হবে।

সমাবেশ শেষে র‌্যালি বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গিয়ে শেষ হবে।

এরপর ২৯ অক্টোবর থেকে কাজী বশির মিলনায়তনে রুদ্ধদ্বার বৈঠক চলবে ৩১ অক্টোবর বিকেল ৩টা পর্যন্ত। এ সময়ের মধ্যে কংগ্রেসে পার্টির কৌশলগত লাইন অর্থাৎ কেন্দ্রীয় কমিটির রাজনৈতিক প্রস্তাব এবং সাংগঠনিক রিপোর্টের ওপর আলোচনা ও সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে। কংগ্রেসে গঠনতন্ত্রের সংশোধনী, অডিট কমিটির রিপোর্ট, কন্ট্রোল কমিশনের রিপোর্ট, ক্রেডেনশিয়াল কমিটির রিপোর্ট উত্থাপিত এবং অনুমোদিত হবে।

শেষ অধিবেশনে আগামী ৪ বছরের জন্য কেন্দ্রীয় কমিটি ও কন্ট্রোল কমিশন নির্বাচন করা হবে এবং ঘোষিত হবে জাতীয় পরিষদ।

দলের নেতা সাজ্জাদ জহির চন্দন বলেন, ‘সাম্প্রদায়িকতা, সাম্রাজ্যবাদ, লুটপাটতন্ত্র, গণতন্ত্রহীনতা নিপাত যাক’ এ স্লোগান নিয়ে এবারের কংগ্রেস অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

এতে ১০টি দেশের ২৬ জন বিদেশি রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধি উপস্থিত থাকবেন। ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিআই), ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী) ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী-লেলিনবাদী, অল ইন্ডিয়া ফরোয়ার্ড পার্টি, নেপালের কমিউনিস্ট পার্টি, ভিয়েতনামের কমিউনিস্ট পার্টি, জার্মানির এমএলপিডি, রুশ ফেডারেশনের কমিউনিস্ট পার্টি, পাকিস্তানের কমিউনিস্ট পার্টি, শ্রীলংকার কমিউনিস্ট পার্টি, চীনা কমিউনিস্ট পার্টি, উত্তর কোরিয়ার ওয়ার্কার্স পার্টিসহ অন্যান্য দলের প্রতিনিধিরা কংগ্রেসে উপস্থিত থাকবেন।

এর আগে ২০১২ সালের ১১ থেকে ১৩ অক্টোবর পর্যন্ত দলটির দশম কংগ্রেস অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৪৩ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৫, ২০১৬

ইইউডি/এএটি/এএসআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa