ঢাকা, শনিবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৫ মে ২০২৪, ১৬ জিলকদ ১৪৪৫

রাজনীতি

দুদকের মামলায় স্ত্রীসহ জামিন পেলেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলা চেয়ারম্যান

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৪১ ঘণ্টা, এপ্রিল ৪, ২০২৪
দুদকের মামলায় স্ত্রীসহ জামিন পেলেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলা চেয়ারম্যান

কুষ্টিয়া: স্কুল শিক্ষিকা স্ত্রী শাম্মী আরা পারভিনের (৪০) জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনে সহায়তার অভিযোগে করা মামলায় কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা ও তার স্ত্রী জামিন পেয়েছেন।
 
বৃহস্পতিবার (০৪ এপ্রিল) দুপুর সাড়ে ১২টায় আইনজীবীর মাধ্যমে তারা সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালত এবং জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক রুহুল আমীনের আদালতে জামিন আবেদন করেন।

বিচারক জামিন শুনানি শেষে ১০ হাজার টাকার বন্ডে এ মামলায় অভিযোগ দাখিল হওয়া পর্যন্ত তাদের জামিন মঞ্জুর করেন।
 
আসামিপক্ষে মামলাটি লড়ছেন অ্যাডভোকেট হাসানুল আসকার হাসু ও কুষ্টিয়া বারের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শেখ মোহাম্মদ আবু তৈয়ব।

তারা বলেন, দুদকের করা মামলাটি বানোয়াট।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী অ্যাডভোকেট আল মুজাহিদ মিঠু জানান, মামলাটি করার আগে দুদকের কর্মকর্তারা দীর্ঘ সময় ধরে তদন্ত করেছেন। বিবাদিদের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যাদির মধ্যে ব্যাপক গরমিল এবং জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ আয়ের বিষয়টি প্রাথমিক তদন্তে প্রমাণ হওয়ায় দুদক এ মামলাটি করেছে। দুদকের মতো সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান কোনো বিশেষ ব্যক্তির বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যমূলক মামলা করতে যাবে, এমন কথা হাস্যকর।  

তিনি আরও বলেন, জামিন অযোগ্য এ মামলায় সাধারণত উচ্চ আদালতের নির্দেশনা বা এন্টিসিপেটরি বেল পেয়েই সংশ্লিষ্ট নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করা হয়। এ মামলার আসামিরা উচ্চ আদালতে না গিয়ে সরাসরি নিম্ন আদালত থেকে জামিন পেয়েছেন।

২০২২ সালে মার্চে কুষ্টিয়ায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা শাম্মী আরা পারভিনের শত কোটি টাকার সম্পদের উৎসের সন্ধানে নামে দুদক। সেই সূত্র ধরে ওই শিক্ষিকার স্বামী কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতার আরও হাজার কোটি টাকার অবৈধ সম্পদের গন্ধ পায় দুদক। অথচ তদন্ত শেষে মাত্র ৬৩ লাখ ৬৬ হাজার ৫৭৪ টাকার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ রাখার দায়ে মামলা করেছে দুদক।  

দুদক শুরুতেই প্রভাবশালী এ আওয়ামী লীগ নেতার টেন্ডারবাজি, নিয়োগ বাণিজ্য ও চাঁদাবাজির উৎস থেকে প্রায় হাজার কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ খতিয়ে দেখতে শুরু করে।  

এর আগে ২০২৪ সালের ১১ মার্চ বিকেল ৪টায় দুর্নীতি দমন কমিশন, সমন্বিত জেলা কার্যালয় কুষ্টিয়ার সহকারী পরিচালক, নীল কমল পাল বাদী হয়ে কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ (বিশেষ আদালত) মো. আশরাফুল ইসলামের আদালতে মামলা করেন। মামলা নম্বর ০২ তাং ১১/০৩/২০২৪। এ মামলায় আসামি করা হয়েছে কুষ্টিয়া ০৪ নম্বর পৌর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা শাম্মী আরা পারভিন ও তার স্বামী আতাউর রহমান আতাকে।  

আতা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফের সেকেন্ড ইন কমান্ড। তিনি ৭/৬১ মআ রহিম সড়কের বাসিন্দা।

আরও পড়ুন: 
আ. লীগ নেতা ও তার শিক্ষিকা স্ত্রীর হাজার কোটি টাকার সম্পদ!
সেই আ. লীগ নেতা ও তার শিক্ষিকা স্ত্রীর নামে দুদকের মামলা
 

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩৬ ঘণ্টা, এপ্রিল ০৪, ২০২৪
এসআই
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।