ঢাকা, শুক্রবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৪ মে ২০২৪, ১৫ জিলকদ ১৪৪৫

রাজনীতি

টাঙ্গাইলে পুলিশি বাধায় আ. লীগের কোনো পক্ষই সমাবেশ করতে পারেনি

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০১২৪ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৯, ২০২৪
টাঙ্গাইলে পুলিশি বাধায় আ. লীগের কোনো পক্ষই সমাবেশ করতে পারেনি আদালতপাড়ায় সংসদ সদস্য তানভীর হাসানের বাসার সামনে সংক্ষিপ্ত সভা

টাঙ্গাইল: পুলিশি বাধার মুখে টাঙ্গাইল শহীদ স্মৃতি পৌর উদ্যানে আওয়ামী লীগের কোনো পক্ষই সমাবেশ করতে পারেনি। উভয়পক্ষই পৃথক স্থানে সংক্ষিপ্ত সভা করেছে।

আওয়ামী লীগের ‘ঈগল প্রতীকের’ সমর্থকেরা সচেতন নাগরিক সমাজের ব্যানারে বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল)  টাঙ্গাইল শহীদ স্মৃতি পৌর উদ্যানে সমাবেশের আহ্বান করেন। তাদের দাবি ছিল, ধর্ষণ মামলার আসামি শহর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি পদ থেকে অব্যাহতিপ্রাপ্ত গোলাম কিবরিয়া ওরফে বড় মনির গ্রেপ্তার ও বিচার।

অপরদিকে শ্রমিক ফেডারেশনের ব্যানারে একই দিন একই সময়ে একই স্থানে শ্রমিক সমাবেশের আয়োজন করা হয়। এর সমর্থনে ছিলেন বিগত নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের সমর্থকেরা। শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক সংসদ সদস্য তানভীর হাসান ওরফে ছোট মনির আওয়ামী লীগ নেতা বড় মনির ভাই।

প্রশাসন কোনো পক্ষকেই শহীদ স্মৃতি পৌর উদ্যান ব্যবহার করার অনুমতি না দিলেও উভয়পক্ষই সেখানে সমাবেশ করার প্রস্তুতি নিতে থাকে। নৌকা প্রতীকের সমর্থকেরা সংসদ সদস্য তানভীর হাসানের আদালতপাড়ার বাসভবনের সামনে সকাল থেকে সমবেত হতে থাকেন। আর ঈগল প্রতীকের সমর্থকেরা পৌরসভা ও থানাপাড়া এলাকায় জড়ো হন।

সকাল থেকেই বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্য পৌর উদ্যান এলাকায় অবস্থান নেন। বেলা ১১টার দিকে সংসদ সদস্য তানভীর হাসানের বাড়ির সামনে থেকে মিছিল বের করার চেষ্টা করা হলে পুলিশ বাধা দেয়। পরে সমর্থকেরা সেখানেই সংক্ষিপ্ত সভা করেন।  

এতে সংসদ সদস্য তানভীর হাসান, বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টাঙ্গাইল-৫ (সদর) আসনের নৌকা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী কেন্দ্রীয় যুবলীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মামুন অর রশিদ, জেলা শ্রমিক ফেডারেশনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বালা মিয়া, পৌরসভার কাউন্সিলর আতিকুর রহমান ওরফে মোর্শেদ, আমিনুর রহমান, মাওলানা ভাসানীর নাতি হাসরত খান ভাসানী প্রমুখ বক্তব্য দেন।

বক্তারা বলেন, শান্ত টাঙ্গাইলকে অশান্ত করার মধ্য দিয়ে কিছু চক্রান্তকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলা কার্যক্রমকে বিলম্বিত করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। তারা খুনি চক্রের ক্রীড়নক হয়ে উসকানিমূলক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে টাঙ্গাইলের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ নষ্ট করছে। এদের প্রতিহত করা হবে বলেও ঘোষণা করেন বক্তারা।

অপরদিকে একই সময়ে টাঙ্গাইল পৌরসভা ভবনের সামনে থেকে আওয়ামী লীগ নেতা বড় মনির বিচারের দাবিতে মিছিল বের করার উদ্যোগ নেওয়া হয়। পৌরসভা মেয়র এস এম সিরাজুল হক আলমগীরের নেতৃত্বে মিছিলটি পৌরসভা চত্বর থেকে রাস্তার নামার পরই পুলিশ বাধা দেয়। পরে সমর্থকেরা পৌর ভবনের সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন।  

এতে বক্তব্য দেন পৌর মেয়র এস এম সিরাজুল হক আলমগীর, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আকরাম হোসেন ও মানবাধিকারকর্মী মাহবুদা শেলী। বক্তারা বলেন, বড় মনির বিরুদ্ধে একাধিক ধর্ষণ মামলা রয়েছে। তার কারণে দলের ভাবমুর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে। তাকে গ্রেপ্তার করে বিচারের দাবি জানানো হয়।

বাংলাদেশ সময়: ০১১৩ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৯, ২০২৪
আরএইচ 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।