ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৩০ মে ২০২৪, ২১ জিলকদ ১৪৪৫

রাজনীতি

ছাত্রলীগের শোডাউন, ছাত্রদলের ঝটিকা মিছিল

ইউনিভার্সিটি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৫৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৫, ২০১৫
ছাত্রলীগের শোডাউন, ছাত্রদলের ঝটিকা মিছিল

ঢাকা: পাঁচ জানুয়ারিকে ঘিরে সারাদিন আলাদা কর্মসূচি পালন করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এবং জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল।

সোমবার (০৫ জানুয়ারি) সকাল থেকেই  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় অবস্থান নেয় ছাত্রলীগ।

মিছিলে-স্লোগানে সারাদিন ব্যাপক শোডাউন ও ঝটিকা মিছিল করেন তারা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হল ও মহানগরী থেকে ছাত্রলীগ কর্মীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে সারাদিন অবস্থান নেন ছাত্রলীগ ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা।

অপরদিকে বিকেল ৩টার দিকে শাহবাগ এলাকায় এক ঝটিকা মিছিল বের করে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। মিছিলের নেতৃত্ব দেন ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান।

যে কোনো ধরনের নাশকতা ঠেকাতে প্রতিটি মোড়ে মোড়ে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা ছিল সতর্ক অবস্থায়। এছাড়া সকাল থেকেই বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার বিভিন্ন পয়েন্টে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের অবস্থান নিতে দেখা যায়।

জানা যায়, সকাল ৯টা থেকেই নেতাকর্মীদের মধুর ক্যান্টিনে জড়ো হতে নির্দেশনা দেয় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। নির্দেশনা অনুযায়ী বিভিন্ন হল ও মহানগর শাখার নেতাকর্মীরা সকাল থেকেই ক্যাম্পাসে জড়ো হন।

ছাত্রলীগ সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলমসহ কেন্দ্রীয় নেতারা এসময় উপস্থিত ছিলেন। কেন্দ্রীয় নির্দেশনা অনুযায়ী কার্জন হল, পলাশী মোড়, নীলক্ষেত মোড়সহ বিভিন্ন পয়েন্টে তারা অবস্থান নেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় কোনো ধরনের সংঘর্ষের খবর পাওয়া যায়নি। তবে বিকেলের দিকে নীলক্ষেত মোড়ে একটি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। এ এলাকায় বিএনপি-জামায়াত সমর্থকদের কোনো কর্মসূচি পালন করতে দেখা যায়নি।
 
সকাল থেকেই মাঠে সরব ছিল ছাত্রলীগ। কিছুক্ষণ পর পরই ছাত্রলীগ কর্মীরা মোটরসাইকেল নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে শোডাউন দেয়। এছাড়া কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নির্দেশনা অনুযায়ী ঢাকার বিভিন্ন স্থানে অবস্থানরত কর্মীদের পর্যবেক্ষণে একটি টিম পুরো রাজধানীতে দায়িত্ব পালন করে।

এ ব্যাপারে ছাত্রলীগ সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ  বলেন, সকাল থেকেই রাজধানীর শতাধিক পয়েন্টে ছাত্রলীগ কর্মীরা অবস্থান নেন। যতক্ষণ পর্যন্ত আমরা সংঘর্ষের আশঙ্কা করবো ততক্ষণ পর্যন্ত আমরা অবস্থান কর্মসূচি চালিয়ে যাবো। এছাড়া মঙ্গলবার (০৬ জানুয়ারি) আমাদের অবস্থান কর্মসূচি চলবে।

এদিকে সকাল থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস ও পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হলেও শিক্ষার্থী উপস্থিতি ছিল খুবই কম। আতঙ্কের কারণে শিক্ষার্থীরা আসেনি বলে জানিয়েছেন শিক্ষকরা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক ড. এম আমজাদ বলেন, পুলিশের সহযোগিতায় আমরা ক্যাম্পাসের নিরাপত্তা ব্যাবস্থা জোড়দার করেছি। যে কোনো ধরনের সংঘর্ষ মোকাবেলায় আমাদের প্রস্তুতি রয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৫, ২০১৫

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।