ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

রাজনীতি

একাত্তুরের শান্তি কমিটির আ’লীগ নেতাদের নাম ফাঁস করে দেবো:জামায়াত

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৮১৭ ঘণ্টা, জুলাই ২৬, ২০১০
একাত্তুরের শান্তি কমিটির আ’লীগ নেতাদের নাম ফাঁস করে দেবো:জামায়াত

ঢাকা: একাত্তুরে শান্তি কমিটির আওয়ামী লীগের নেতাদের নাম ফাঁস করে দেওয়ার হুমকি দিয়েছে জামায়াতে ইসলামী। এছাড়া আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনালের বিচার কার্যক্রমকে ‘আন্তর্জাতিক বিচার বিধি’র লংঘন বলেও মন্তব্য করেছেন দলটির নেতারা।



সোমবার বিকেলে মগবাজার আল ফালাহ মিলনায়তনে ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন জামাতপন্থি শ্রমিক সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় দলটির শীর্ষ নেতারা এ হুমকি  দেন। এদিন সারাদেশে শ্রমিক সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বন্দি নেতাদের মুক্তির দাবিতে জনমত গঠনে ২০ থেকে ২৬ জুলাই দেশব্যাপী গণসংযোগের অংশ হিসেবে মহানগর জামায়াতের উদ্যোগে এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়।

নিজামী-মুজাহিদ যুদ্ধাপরাধী নন দাবি করে জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল এটিএম আজহারুল ইসলাম বলেন, ‘একত্তুরে যে সব ডিসি, এসপি ও পুলিশ বাহিনীর সদস্য সরকারের সহযোগী হিসেবে কাজ করেছে তারাই প্রকৃত যুদ্ধাপরাধী। ’  

‘অচিরেই আওয়ামী লীগের যুদ্ধাপরাধীদের (শান্তিকমিটির চেয়ারম্যান) তালিকা প্রকাশ করা হবে’ বলেও হুমকি দেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘যে ট্রাইবুনালকে অবৈধ ঘোষণার জন্য হাইকোর্টে রিট করা হয়েছে। সেই ট্রাইব্যুনালের বিচার কখনো বৈধ হতে পারে না। ’

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনালকে ফকরুদ্দিন-মঈনুদ্দিনের গড়া ট্রাইব্যুনালেরই সম্প্রসারণ (এক্সটেনশন) হিসেবে আখ্যায়িত করে এটিএম আজহারুল ইসলাম।   তিনি ‘আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনালে আন্তর্জাতিক লোক বসানো উচিত’ বলে মন্তব্য করে বলেন, ‘ নিজের দেশের ও নিজের দলের (অনুগত) লোক বসিয়ে ন্যায়বিচার হয় না। এই প্রহসনের বিচার দেশের জনগণ মেনে নেবে না। ’

জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমীর মকবুল আহমাদ বলেন, ‘পাকিস্তানের প্রকৃত যুদ্ধাপরাধীদের বাদ দিয়ে দেশের নিরীহ মানুষের বিচারে আদালত গঠন করে ‘আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল’ হয় না, এটা অসংবিধানিক। ’

তার অভিযোগ, পার্শ্ববর্তী রাষ্ট্রের এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্যই দলীয় লোক দিয়ে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনাল গঠন করা হয়েছে।

হামিদুর রহমান আজাদের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মুজিবুর রহমান, মহানগর শ্রমিককল্যাণ ফেডারেশনের সভাপতি কবির আহমদ, রিকশা চালক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বিটিসিএল শ্রমিক ইউনিয়নের মহাসচিব নজরুল ইসলাম, গার্মেন্টস শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস প্রমুখ।

আগের দিন রোববার ঢাকা শহরের বিভিন্ন পর্যায়ের জামায়াত-সমর্থক শিক্ষকদের সঙ্গে মতবিনিময় করে জামায়াত।   সেখানে জামায়াত নেতারা সরকারের প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে বলেছিলেন,‘‘সাহস থাকলে পাকিস্তানি সেনাদের বিচার করুন’’।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৮০০ ঘণ্টা, জুলাই ২৬, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa