ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৩০ মে ২০২৪, ২১ জিলকদ ১৪৪৫

রাজনীতি

ফের সন্ত্রাস করলে বিএনপিকে চরম মূল্য দিতে হবে

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩০১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৫, ২০১৭
ফের সন্ত্রাস করলে বিএনপিকে চরম মূল্য দিতে হবে জনসভায় বক্তৃতা করছেন আমির হোসেন আমু। ছবি: সুমন শেখ

ঢাকা: ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতারা হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, বিএনপিকে আর সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করার সুযোগ দেওয়া হবে না। তারা আবারও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করতে চাইলে চরম মূল্য দিতে হবে এবং আগামী নির্বাচনে বিএনপিকে চূড়ান্তভাবে শিক্ষা দেওয়া হবে। 

‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ উপলক্ষে বৃস্পতিবার (৫ জানুয়ারি) আয়োজিত জনসভায় আওয়ামী লীগের নেতারা এ কথা বলেন। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ এ জনসভার আয়োজন করে।

 

আওয়ামী লীগ নেতারা বলেন, গত দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঠেকাতে বিএনপি সন্ত্রাস, মানুষ হত্যা করে ব্যর্থ হয়েছে। এরপর সরকার উৎখাতের নামে পুনরায় সন্ত্রাস ও মানুষ হত্যা করে ব্যর্থ হয়েছে। এরপরও সন্ত্রাসের চেষ্টা করা হলে বিএনপিকে চূড়ান্ত শিক্ষা দেওয়া হবে।  

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত জাতীয় নির্বাচনের তৃতীয় বার্ষিকী উপলক্ষে বৃহস্পতিবার দেশব্যাপী ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ উদযাপন করে আওয়ামী লীগ। এরই অংশ হিসেবে এ জনসভার আয়োজন করা হয়। জনসভায় ঢাকা মহনগর দক্ষিণের বিভিন্ন থানা, ওয়ার্ড থেকে আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী-ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে সমবেত হন।  

জনসভা মঞ্চে আওয়ামী লীগ নেতারা।  ছবি: সুমন শেখজনসভায় আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, আগামী নির্বাচন সংবিধান অনুযায়ী যথাসময়ে হবে। এসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাই সরকারের দায়িত্বে থাকবেন। নতুন যে নির্বাচন কমিশন গঠন হবে আমরা সেই নির্বাচন কমিশনকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করবো। আবার যদি বিএনপি সন্ত্রাস করে তাহলে তাদের চরম মূল্য দিতে হবে।      

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি নির্বাচন বানচাল করতে বিএনপি নিরীহ মানুষকে হত্যা করেছে। গণতন্ত্র রক্ষার নির্বাচন বিএনপিকে ঠেকাতে দেয়নি মানুষ। তারা আবার গণতন্ত্রকে ধ্বংস করতে সরকার উৎখাতের জন্য মানুষ হত্যা করেছে। জনগণ তাদের প্রতিহত করেছে। তারা ব্যর্থ হয়েছে। দুই দুই বার তারা শিক্ষা পেয়েছে। তাদের আর সন্ত্রাস, মানুষ হত্যা করতে দেওয়া হবে না। এরপরও সন্ত্রাস করতে চাইলে আগামী নির্বাচনে বিএনপিকে চূড়ান্ত শিক্ষা দেওয়া হবে।  

আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, বিএনপি গণতন্ত্রে বিশ্বাসী নয়, তাই নির্বাচনে অংশ নেয়নি। শুধু নির্বাচনে অংশ না নিয়েই ক্ষ্যান্ত থাকেনি, কর্মসূচির নামে সন্ত্রাস চালিয়ে মানুষ হত্যা করেছে। আবারও তারা আন্দোলনের নামে মানুষ হত্যা করেছে। এদেশের মানুষ তাদের ষড়যন্ত্রকে সফল হতে দেয়নি। এখন তারা ব্যর্থতার দায় নিয়ে মিথ্যা কর্মসূচি দিয়েছে। এদেশের মানুষ আর তাদের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করার সুযোগ দেবে না। শক্তভাবে তাদের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড দমন করা হবে। জনসভায় আওয়ামী লীগের কর্মীরা।  ছবি: সুমন শেখঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ দক্ষিণের সভাপতি আবুল হাসনাত জনসভায় সভাপতিত্ব করেন। বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য মোজাফফর হোসেন পল্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, একেএম এনামুল হক শামীম, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন প্রমুখ।  

জনসভায় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দ, বন ও পরিবেশ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন প্রমুখ।  

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৫, ২০১৭ 
এসকে/এইচএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।