ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৩০ মে ২০২৪, ২১ জিলকদ ১৪৪৫

রাজনীতি

৩০ ডিসেম্বর ভোটাধিকার হরণ করা হয়েছে

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫২৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৯, ২০২০
৩০ ডিসেম্বর ভোটাধিকার হরণ করা হয়েছে

ঢাকা: ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের নামে প্রহসনের মাধ্যমে জনগণের ভোটাধিকার হরণ করা হয়েছিল বলে মন্তব্য করেছেন ২০ দলীয় জোটের শরিক বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সৈয়দ এহসানুল হুদা ও মহাসচিব মো. রফিকুল ইসলাম।

দেশে গণতান্ত্রিক পরিবেশ না থাকায় সরকার যা ইচ্ছা তাই করছে—এ জন্য সরকারকে জবাবদিহিও করতে হয় না বলেও মন্তব্য করেন তারা।

মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বাংলাদেশ জাতীয় দলের নেতারা এসব কথা বলেন।

তারা বলেন, আওয়ামী লীগ পৃথিবীর সব রেকর্ড ভঙ্গ করে পার্লামেন্ট বহাল রেখে, পুরো একটি রাষ্ট্রের বিচার বিভাগ, সিভিল প্রশাসন, একদল নির্বাচন কমিশনারসহ লক্ষাধিক আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী নিয়ে, সব ক্ষমতায় ক্ষমতাবান হয়ে, সরকারি সব সুযোগ-সুবিধা ভোগ করে ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একটি ভোট ডাকাতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত করে বাংলাদেশের ইতিহাসে এক কালো অধ্যায় রচনা করেছে।

নেতৃদ্বয় বলেন, দেশের সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে বিশ্বের সব শ্রেণির মানুষ এবং সংস্থা এ নির্বাচনকে একটি ভোট ডাকাতির নির্বাচন ও প্রহসনের নির্বাচন হিসাবে আখ্যায়িত করছে। নির্বাচনের নামে এ সরকার বার বার প্রহসন করছে, জাতিকে বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৫১৯ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৯, ২০২০
এমএইচ/এমজেএফ 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।