ঢাকা, সোমবার, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

রাজনীতি

উন্নয়নের নামে মহালুটপাট চলছে: রেদোয়ান

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০৯ ঘণ্টা, অক্টোবর ১, ২০২১
উন্নয়নের নামে মহালুটপাট চলছে: রেদোয়ান

ঢাকা: বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির একাংশের (এলডিপি) মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমেদ বলেছেন, দেশে মহা উন্নয়নের নামে মহা লুটপাটের মহোৎসব চলছে। এক বছরের কাজে ৫-৬ বছর লেগে যাচ্ছে।

পুরো বাংলাদেশে চলছে দুর্নীতির মহোৎসব।

শুক্রবার(১অক্টোবর) দুপুরে এলডিপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের কেন্দ্রীয় ও ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের সঙ্গে এক বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন।

ড. রেদোয়ান বলেন, সর্বত্র সীমাহীন দুর্নীতি, লুটপাট, স্বেচ্ছাচারিতা ও দলীয়করণ চলছে। নিশিরাতের বিনাভোটের সরকার শুধু জাতীয় নির্বাচনে ভোটের অধিকার ছিনিয়ে নিয়েই ক্ষান্ত হয়নি, এখন তারা বিনাভোটে তাদের দলের ক্যাডারদের সারা দেশের পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের মেয়র চেয়ারম্যান বানাচ্ছে।

তিনি বলেন, আমি ১৯৭৯ সাল থেকে নির্বাচন করছি। বর্তমান সময়ের মতো এমন নির্বাচন কখনও দেখিনি। আগে প্রতিবাদ করা যেতো এখন কোনো প্রতিবাদ করলে শুরু হয় পুলিশি নির্যাতন। দেশটা পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। লাখো মানুষের আত্মত্যাগে দেশটাকে স্বাধীন করা হয়েছিল জনগণের রাষ্ট্র কায়েমের জন্য, পুলিশি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার জন্য নয়। বর্তমান সরকার শুধু ক্ষমতাকে সংহত করার জন্য রাষ্ট্রীয় সব প্রতিষ্ঠানগুলোকে সাংবিধানিক দায়িত্ব পালনের বিপরীতে জনগণের বিরুদ্ধে দাঁড় করিয়েছে।  

বীর মুক্তিযোদ্ধা রেদোয়ান আহমেদ আরও বলেন, স্বাধীনতার পর এ দেশে বড় ধরনের যে কয়টি ব্যাংক লুট, শেয়ারবাজার লুট, ব্যাংক দখল, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের লোকজনসহ সাধারণ মানুষের বাড়িঘর ও জমি দখল, রাষ্ট্রের বিভিন্ন সেক্টরে দুর্নীতি-লুটপাট, খুন-হত্যা, ধর্ষণ, গুম-অপহরণ ও বিরোধী দলের নেতা-কর্মীসহ সাধারণ মানুষের নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে, সবগুলোই হয়েছে আওয়ামী লীগের আমলে। এসব অপকর্মের জন্য আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা প্রতিদিনই সংবাদের শিরোনাম হচ্ছেন। যদিও এসব অপকর্মের দায় তারা ঢালাওভাবে বিএনপি-জামায়াতের ঘাড়ে চাপিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। তবে সরকারের ভেতর থেকেই এখন এসবের বিস্ফোরণ ঘটতে শুরু করেছে। লুটপাট-দুর্নীতির কথা এখন সরকারের মন্ত্রীরাই অকপটে স্বীকার করছেন।

এসময় এলডিপি নেতা ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ড. আওরঙ্গজেব বেলাল, অ্যাডভোকেট সৈয়দ মাহমুদ মোর্শেদ, তমিজ উদ্দিন টিটু, বেলাল হোসেন মিয়াজি, অধ্যক্ষ মাহবুবুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৮১০ ঘণ্টা, অক্টোবর ০১, ২০২১
এমএইচ/এসআইএস 
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa