ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৬ মে ২০২২, ২৪ শাওয়াল ১৪৪৩

রাজনীতি

ইসি গঠনে উত্থাপিত আইন গণফোরামের প্রত্যাখান

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০৩৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৫, ২০২২
ইসি গঠনে উত্থাপিত আইন গণফোরামের প্রত্যাখান

ঢাকা: নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠনে সংসদে উত্থাপিত প্রস্তাবিত আইন প্রত্যাখ্যান করেছে গণফোরাম।

সোমবার (২৪ জানুয়ারি) এক বিবৃতিতে গণফোরাম সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোস্তফা মোহসীন মন্টু ও সাধারণ সম্পাদক সিনিয়র অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী বলেন, এই বিল আওয়ামী লীগ ও তাদের শরিক দলের নির্বাচনী কারচুপির একটি কৌশল মাত্র।

যদি তাদের সদিচ্ছা থাকতো তবে, তারা স্টেকহোল্ডার রেজিস্ট্রার বা আনরেজিস্ট্রার সব রাজনৈতিক দল কে এই বিলের খসড়া পৌঁছে দিয়ে সব দলের মতামতের ভিত্তিতে বিল উত্থাপন করতো। সংলাপের নামে যে সার্চ কমিটির মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন গঠনের আইন সংসদে পাস করাতে চায় তা অবৈধ সরকারের আরেকটি মধ্যরাতের নির্বাচনের প্রস্তুতি। যা পুনরায় জনগণের ভোটাধিকার হরণ করবে। আমরা এই সংসদে উত্থাপিত প্রস্তাবিত বিল সম্পূর্ণভাবে প্রত্যাখ্যান করি।
 
গণফোরাম নেতারা আরও বলেন, অবাক করার মত বিষয় সার্চ কমিটির মাধ্যমে গঠন করা গত দুটি নির্বাচন কমিশন গঠনের বৈধতাও দেওয়া হচ্ছে এই আইনে। কিন্তু আমরা জানি ইতোপূর্বে ২০১৪ ও ২০১৮ এর নির্বাচনে সার্চ কমিটির মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়েছিল তার একটি ছিল বিনা ভোটের নির্বাচন অপরটি ছিল মধ্যরাতের নির্বাচন। এখানে কোনোভাবেই জনগণের প্রতিনিধিত্বের সরকার গঠিত হয়নি। প্রায় এক দশক ধরে জনগণের টুটি চেপে ন্যায়বিচার ও গণতন্ত্র ভূলুণ্ঠিত করে দুঃশাসন প্রতিষ্ঠা করেছে যেখানে দেশের সমগ্র জনসাধারণ নিরাপত্তাহীনতায় ভুগেছেন। পুনরায় এই সংসদে উত্থাপিত বিল রাষ্ট্র ও জনগণের জন্য ভয়ংকর হুমকিস্বরূপ।

তারা বলেন, আমরা গণফোরাম বিশ্বাস করি এই অবৈধ সরকারের অধীনে জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটবে এমন সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন কখনোই সম্ভব নয়। তাই নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কোনো বিকল্প নেই। এই লক্ষ্যে জাতীয় ঐক্যমতের সরকারই একমাত্র সমাধান।

বাংলাদেশ সময়: ০০৩৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৫, ২০২২
এমএইচ/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa