ঢাকা, শনিবার, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩ শাবান ১৪৪৫

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি

পরমাণু শক্তিচালিত আইসব্রেকারের জন্য অত্যাধুনিক রিয়্যাক্টর তৈরি রাশিয়ার

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৫৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৯, ২০২৩
পরমাণু শক্তিচালিত আইসব্রেকারের জন্য অত্যাধুনিক রিয়্যাক্টর তৈরি রাশিয়ার

ঢাকা: রুশ রাষ্ট্রীয় পরমাণু শক্তি করপোরেশন রোসাটম তাদের নতুন প্রজন্মের ইউনিভার্সাল নিউক্লিয়ার আইসব্রেকারের জন্য অধিক উন্নত ও দক্ষ আরআইটিএম-২০০ রিয়্যাক্টর ব্যবহার করে উল্লেখযোগ্য ফলাফল অর্জনে সক্ষম হয়েছে। এমনই একটি রিয়্যাক্টর ভেসেল তৈরির কাজ সম্প্রতি রসাটমের যন্ত্রপ্রকৌশল শাখার অধীনস্থ পাদলস্ক কারখানায় সম্পন্ন হয়েছে।



শনিবার (৯ ডিসেম্বর) রোসাটমের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয় ৷

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, চুকোতকা নিউক্লিয়ার আইসব্রেকারে এ রিয়্যাক্টর ভেসেলটি স্থাপন করা হবে। চুকোতকা আইসব্রেকারের জন্য নির্মিত প্রথম রিয়্যাক্টরটি চলতি বছরের অক্টোবর মাসে সরবরাহ করা হয়েছে। পরবর্তী কাজের জন্য, সদ্য নির্মিত দ্বিতীয় রিয়্যাক্টরটি চলতি বছরের শেষ নাগাদ এটি সেন্ট পিটার্সবার্গের বাল্টিক শিপইয়ার্ডে স্থানান্তর করা হবে।

২০১২ সাল থেকে পাদলস্ক কারখানায় ইউনিভার্সাল নিউক্লিয়ার আইসব্রেকারের জন্য ১০টি পারমাণবিক রিয়্যাক্টর তৈরি হয়েছে। এই রিয়্যাক্টরগুলো আর্কটিকা, সিবির, উরাল, ইয়াকুতিয়া এবং চুকোতকা আইসব্রেকারে বসানো হয়েছে বা হবে।

রোসাটমের মহাপরিচালক আলেক্সি লিখাচেভ এ প্রসঙ্গে বলেন, আমাদের নতুন ইউনিভার্সাল নিউক্লিয়ার আইসব্রেকারে আরআইটিএম-২০০ রিয়্যাক্টরগুলো তাদের প্রমাণ করতে পেরেছে। এই রিয়্যাক্টরগুলোর ওপর নির্ভর করে নর্থ সি-রুটে চলাচল অনেকটাই সহজ ও কার্যকরী করা সম্ভব হয়েছে। চুকোতকার বাইমন্সক অঞ্চলে বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য ভাসমান পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো এবং একই সঙ্গে ইয়াকুতিয়া অঞ্চলে বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য স্থল বিদ্যুৎকেন্দ্র গুলোর ‘হার্ট’ হিসেবে কাজ করবে এ জাতীয় রিয়্যাক্টরগুলো।

রোসাটম যন্ত্রপ্রকৌশল শাখার প্রধান ইগর কতভ জানান যে, মূলত জাহাজে ব্যবহৃত আরআইটিএম- ২০০ রিয়্যাক্টরগুলোর কর্মদক্ষতা বিশ্বে সর্বোচ্চ। এই রিয়্যাক্টরগুলো ব্যবহারকারী আইসব্রেকারগুলোর গতি এবং বরফ কাটার সক্ষমতা অনেকাংশেই বেশি।

রাশিয়ার ইউনিভার্সাল নিউক্লিয়ার আইসব্রেকারগুলোতে যে পাওয়ার ইউনিট রয়েছে তার প্রতিটিতে স্থাপন করা হয়েছে দুটি আরআইটিএম- ২০০ রিয়্যাক্টর, এর প্রতিটির উৎপাদন ক্ষমতা ১৭৫ মেগাওয়াট। আরআইটিএম- ২০০ রিয়্যাক্টরের ডিজাইনার এবং ইন্টার্নালগুলো প্রস্তুত ও সরবরাহকারি প্রতিষ্ঠান হলো আফ্রিকান্তভ ওকেবিএম। জিওপাদলস্ক এর দায়িত্ব হলো রিয়্যাক্টর ভেসেল নির্মাণ এবং পরীক্ষামূলক অ্যাসেম্বলি।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৫৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৯, ২০২৩
এসকে/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।