ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯, ১১ আগস্ট ২০২২, ১২ মহররম ১৪৪৪

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি

বড়পুকুরিয়া খনি শ্রমিকদের অবস্থান কর্মস‍ূচি ঘোষণা

উপজেলা করসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯০৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৮, ২০১৬
বড়পুকুরিয়া খনি শ্রমিকদের অবস্থান কর্মস‍ূচি ঘোষণা বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

স্থায়ী নিয়োগের দাবিতে দিনাজপুরের পার্বতীপুরে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ১ হাজার ৪১ জন শ্রমিক ১৪ ডিসেম্বর থেকে অবস্থান কর্মস‍ূচির ঘোষণা দিয়েছে।

পার্বতীপুর (দিনাজপুর): স্থায়ী নিয়োগের দাবিতে দিনাজপুরের পার্বতীপুরে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ১ হাজার ৪১ জন শ্রমিক ১৪ ডিসেম্বর থেকে অবস্থান কর্মস‍ূচির ঘোষণা দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৮ ডিসেম্বর) দুপুরে খনির প্রধান ফটকের সামনের রাস্তায় সাংবাদিক সম্মেলন করে এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি রবিউল ইসলাম রবি খান।

এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন-সংগঠনের উপদেষ্টা পার্বতীপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান হাফিজুল ইসলাম প্রামাণিক, খনি শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আবু সুফিয়ান, সাবেক সভাপতি ওয়াজেদ আলী প্রমুখ।  

সংবাদ সম্মেলনে খনি শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি রবিউল ইসলাম রবি বলেন, দীর্ঘ ২০ বছর ধরে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এক হাজারেরও বেশি শ্রমিক কয়লা খনিতে কাজ করে আসছেন। তাদের দৈনিক মজুরি দেওয়া হয় সারফেজে ২৯৭ টাকা এবং ভূ-গর্ভে ৩৫০ টাকা মাত্র। মাসে একজন শ্রমিক ১৮-২০ দিনের বেশি কাজ করতে পারেন না। ফলে মাস শেষে তাদের বেতন দেওয়া হয় ৬ হাজার থেকে ৭ হাজার টাকা। এই টাকা দিয়ে পরিবার নিয়ে তারা অনেক কষ্টে দিনযাপন করছেন।

তিনি বলেন, ২০১১ সালে খনি কর্তৃপক্ষ বলেছিল খনির এমএন্ডপি ঠিকাদারের সঙ্গে পরবর্তী চুক্তির সময় তাদের চাকরি স্থায়ী করা হবে। খনির বর্তমান এমএন্ডপি চায়না ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সিএমসি-এক্সএমসির সঙ্গে আগামী ২০১৭ সালের আগস্ট মাসে চুক্তি শেষ হবে। ইতোমধ্যে খনি কর্তৃপক্ষ এমএন্ডপি ঠিকাদার নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরু করেছে। কিন্তু শ্রমিকদের চাকরি স্থানীয়করণের বিষয়ে কোন উদ্যোগ গ্রহণ করেননি।

তিনি আরও বলেন, গত জুন থেকে ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত ৫টি চিঠি দিয়ে খনি কর্তৃপক্ষকে প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী শ্রমিকদের দাবি বাস্তবায়নের জন্য আহ্বান জানানো হয়। কিন্তু খনি কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের দাবির বিষয়ে কর্ণপাত করছে না। আগামী ১৩ ডিসেম্বরের মধ্যে দাবি মেনে নেওয়া না হলে পরদিন ১৪ ডিসেম্বর বেলা দেড়টা থেকে অবস্থান কর্মস‍ূচি শুরু করা হবে।

এর আগে বেলা ১১টার দিকে সেখানে এক শ্রমিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন-সংগঠনের উপদেষ্টা পার্বতীপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান হাফিজুল ইসলাম প্রামাণিক, খনি শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আবু সুফিয়ান, সাবেক সভাপতি ওয়াজেদ আলী, শ্রমিক নেতা শাহীন, সাইফুল্লাহ এরশাদ, রাহেনুল প্রমুখ।

সমাবেশে শ্রমিক ইউনিয়নের উপদেষ্টা পার্বতীপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান হাফিজুল ইসলাম প্রামাণিক শ্রমিকদের ন্যায্য দাবির প্রতি একাত্মতা ঘোষণা করে দাবি আদায়ে শ্রমিকদের সঙ্গে থাকার অঙ্গীকার করেন।

পরে খনির ব্যবস্থাপনা পরিচালক বরাবর ১৪ ডিসেম্বর অবস্থান কর্মসূচির ঘোষণা সম্মলিত একটি স্মারকলিপি দেওয়া হয়।

খনির মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন) শরিফুল ইসলাম স্মারকলিপি পাওয়ার বিষয়টি বাংলানিউজকে নিশ্চিত করেছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৫০১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৮, ২০১৬
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa