ঢাকা, সোমবার, ২ কার্তিক ১৪২৮, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

ক্রিকেট

ডাচরা জিতল ছয় উইকেটে

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২০২ ঘণ্টা, মার্চ ১৭, ২০১৪
ডাচরা জিতল ছয় উইকেটে

সিলেট: টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের নতুন দল সংযুক্ত আরব আমিরাত জয়ের দেখা পেল না। সোমবার সিলেট বিভাগীয় স্টেডিয়ামে টম কুপারের অলরাউন্ডিং পারফরমেন্সে সাত বল বাকি থাকতে ছয় উইকেটে জিতেছে নেদারল্যান্ডস।

এদিন বি গ্রুপের অন্য ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে তিন উইকেটে হারায় আয়ারল্যান্ড।

সংযুক্ত আরব আমিরাত: ১৫১/১০ (১৯.৫ ওভার)
নেদারল্যান্ডস: ১৫২/৪ (১৮.৫ ওভার)
ফল: নেদারল্যান্ডস জয়ী ছয় উইকেটে

জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে স্টিফান মিবার্গের ঝড়ো ফিফটি দারুণ কার্যকরী ছিল। ৩২ বলে সাত চার ও দুই ছয়ে হাফ সেঞ্চুরি হাঁকানো এই ওপেনার আউট হয়েছেন ৫৫ রানে। এর আগে তার সঙ্গে ৬৯ রানের জুটি গড়ে আউট হন মাইকেল সোয়ার্ট (২৬)।

ওয়েসলি বারেসিকে নিয়ে ৩৬ রানের জুটি গড়েন টম কুপার। বারেসি ২৪ রানে সাজঘরে ফেরার পর অধিনায়ক পিটার বোরেন বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। ৩ রান করেন তিনি। শেষ পর্যন্ত বড় ভাইয়ের সঙ্গে থেকে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন বেন কুপার। ৮ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়েন তারা। ছয় রানে বেন কুপার এবং টম কুপার ২৬ বলে চারটি চার ও একটি ছয়ে ৩৪ রানে টিকে ছিলেন।

আমিরাতের কামরান শাহজাদ বল হাতে দুটি উইকেট পান।

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ১২ রানে দুই ওপেনারকে হারিয়ে বিপদে পড়েছিল আমিরাত। তবে খুররম খান ও স্বপ্নীল পাতিলের ইনিংস সেরা ৬৭ রানের জুটিতে পথে ফিরে তারা। টম কুপার দলীয় ১১তম ওভারে দুজনকেই সাজঘরে ফিরিয়ে ব্রেকথ্রু আনেন। আমিরাত অধিনায়ক খুররমের ব্যাটে আসে দ্বিতীয় সেরা ৩১ রান, ২৫ বলে চারটি বাউন্ডারি তার ইনিংসে।

২৩ রান করেন পাতিল। পঞ্চম উইকেটে রোহান মোস্তফা ও সায়মন আনোয়ার ৪৭ রানের প্রতিরোধমূলক জুটি গড়েন। সায়মন সর্বোচ্চ ৩২ রান করেন ১৯ বলে চারটি চার ও একটি ছয়ে। ২০ রানে রান আউট হন রোহান।

আমিরাতের ব্যাটিং অর্ডারের লেজ গুটিয়ে দেন আহসান মালিক। তিন ওভার পাঁচ বলে সবচেয়ে বেশি তিন উইকেট পান তিনি। দুটি করে নেন কুপার ও গুগটেন।

বাংলাদেশ সময়: ২২৩৪ ঘণ্টা, ১৭ মার্চ ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa