ঢাকা, রবিবার, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯, ০৩ জুলাই ২০২২, ০২ জিলহজ ১৪৪৩

ক্রিকেট

আবাহনীকে হারালো মুশফিকের প্রাইম দোলেশ্বর

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৩৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০১৪
আবাহনীকে হারালো মুশফিকের প্রাইম দোলেশ্বর ছবি: শোয়েব মিথুন/ বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঢাকা: সুপার লিগের গুরুত্বপুর্ন ম্যাচে আবাহনী লিমিটেডকে চার উইকেটে হারিয়ে শিরোপা লড়াই নিজেদের টিকিয়ে রেখেছে প্রাইম দোলেশ্বর। কুয়াশার কারণে ম্যাচের দৈর্ঘ্য পাঁচ ওভার কমিয়ে ৪৫ ওভারে নামিয়ে আনা হয়।



টসে জিতে প্রাইম দোলেশ্বরের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ফিল্ডিং বেছে নেন। প্রথমে ব্যাট করে আবহনী নয় উইকেটে ২০১ রান সংগ্রহ করে।

আবাহনীর দেয়া ২০২ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে বিপদে পরলেও ডেভিড ম্যালানের হিসেবি ব্যাটিংয়ের কল্যানে শেষ পর্যন্ত জয় পেয়েছে মুশফিকুর রহিমের দল।

স্কোর আবাহনী লিমিটেড ২০১/৯ লিটন কুমার ৪৪, রকিবুল হাসান ৪১,  সানজামুল ৩৭/২(৪৫ ওভার) ও প্রাইম দোলেশ্বর ২০৫/৫ ডেভিড ম্যালান ৮৭, ইলিয়াস সানি ৩৬, আল আমিন ৫১/৪ (৪৩.১ওভার)

২০২ রানের মামুলি টার্গেটে ব্যাট করতে আল আমিনের তোপের মুখে প্রাইম দোলেশ্বর ৩০ রানের মধ্যেই মেহেদি, মুমিনুল এবং মুশফিকের উইকেট হারিয়ে চরম বিপদে পরে যায় মুশফিকুর রহিমের দল। তবে আবাহনীকে গুরুত্বপুর্ন ব্রেক থ্রু এনে দেন নাসির হোসেন। দলীয় ৫৬ রানের মাথায় রনি নাসিরের বলে এলবি ডাব্লিউ হলে চতুর্থ উইকেট হারায় প্রাইম দোলেশ্বর।

তবে প্রাইমের ইংলিশ রিক্রট ডেভিড ম্যালান এবং আসিফ আহমেদ এই বিপর্যয়ে দলের হাল ধরেন। পঞ্চম উইকেটে এই দুই ব্যাটসম্যান ৭০ রানের পার্টনারশিপ করে প্রাইম দোলেশ্বরকে ম্যাচে ফিরিয়ে আনেন। কিন্তু দলীয় ১২৬ রানে আবারো আল আমিন ব্রেক থ্রু এনে দেন। আসিফ আল আমিনের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিলে পঞ্চম উইকেট হারায় প্রাইম দোলেশ্বর। এরপর ডেভিড ম্যালান এবং ইলিয়াস সানি আবারো হাল ধরেন।

এর আগে আবাহনীর ইনিংসের শুরু থেকেই প্রাইম দোলেশ্বরের বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিং এবং আবাহনীর ব্যাটসম্যানদের হিসেবে ব্যাটিং ম্যাচটিকে আকর্ষণীয় করে তোলে।

দলীয় ২৭ রানের মাথায় আবাহনীর ওপেনার আব্দুল মজিদের উইকেট তুলে নেন হাবিবুর রহমান। তবে দলীয় ৬৬ রানে লিটন দাস এবং ৭৩ রানের মাথায় ফরহাদ হোসেন আউট হলে বিপদে পরে যায় শিরোপা প্রত্যাশি আবাহনী।

তবে চতুর্থ উইকেটে রকিবুল হাসান এবং নাসির হোসেন ৪৭ রানের পার্টনারশিপ গড়ে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করলেও দলীয় ১৩০ রানের মাথায় সানজামুল নাসির উইকেটে তুলে নিলে বড় ধাক্কায় খায় আবাহনী।

দলীয় ১৫৪ রানের মাথায় লঙ্কান রিক্রুট চামারা সিলভা আউট হয়ে গেলে আবাহনীর বড় সংগ্রহের সম্ভাবনা শেষ হয়ে যায়।

বাংলাদেশ সময়: ১৭২০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa