ঢাকা, রবিবার, ১ বৈশাখ ১৪৩১, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৪ শাওয়াল ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

অভিষেককে জেরা করতে পারবে ইডি-সিবিআই, ২৫ লাখ রুপি জরিমানা

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪০৩ ঘণ্টা, মে ১৮, ২০২৩
অভিষেককে জেরা করতে পারবে ইডি-সিবিআই, ২৫ লাখ রুপি জরিমানা

কলকাতা: প্রয়োজনে তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক তথা মমতার ভাতিজা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে জেরা করতে পারবে ভারতের তদন্তকারী সংস্থাগুলো- এই মর্মে হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় যে আদেশ দিয়েছিলেন, তা বৃহস্পতিবার (১৮ মে) বহাল রাখলেন হাইকোর্টের বিচারপতি অমৃতা সিনহা।  

অর্থাৎ তৃণমুল যুবনেতা কুন্তল ঘোষ কাণ্ডে সিবিআই চাইলে অভিষেককে জেরা করতে পারবে।

সেইসঙ্গে এদিন হাইকোর্ট অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ও কুন্তল ঘোষকে অবিলম্বে ২৫ লাখ রুপি করে জরিমানা দেওয়ার আদেশ দেন।

গত ২৯ মার্চ কলকাতার শহীদ মিনারে তৃণমূলের ছাত্রযুব সমাবেশে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেছিলেন, মদন মিত্র (বর্তমান বিধায়ক) ও কুণাল ঘোষের (দলের মুখপাত্র) মতো নেতারা যখন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার হেফাজতে ছিল, তখন তাদের আমার (অভিষেক) নাম নেওয়ার জন্য চাপ দেওয়া হয়েছিল। ঘটনাচক্রে তার পরদিন ৩০ মার্চ আদালতে কুন্তল ঢোকার সময় দাবি করেছিলেন, শিক্ষক নিয়োগ মামলায় তার মুখ দিয়ে অভিষেকের নাম বলানোর চেষ্টা হচ্ছে। এর জন্য সিবিআই, ইডি কুন্তলের ওপর চাপ সৃষ্টি করছে।

পরে কুন্তলের এই দাবি এবং এ বিষয়ে লিখিত বয়ান সংক্রান্ত মামলা বিচারপতি অভিজিত গঙ্গোপাধ্যায়ের এজলাসে উঠলে তিনি বলেছিলেন, ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে দু’জনের একই ধরনের দাবি কাকতালীয় হতে পারে না। ফলে এই মামলায় তদন্তের নির্দেশ দিয়ে বিচারপতি গঙ্গেপাধ্যায় বলেছিলেন, দরকারে অভিষেককেও জেরা করতে পারবে ইডি ও সিবিআই।  

বৃহস্পতিবার (১৮ মে) বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের সেই নির্দেশ বহাল রেখেই তৃণমূলের সর্বভারতীয় সম্পাদক তথা লোকসভা সাংসদ অভিষেককে জরিমানার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্টের বিচারপতি অমৃতা সিনহা।

বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের এই নির্দেশ দেওয়ার পরই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে জেরা করার জন্য নোটিশ পাঠিয়েছিল সিবিআই। এর বিপক্ষে সুপ্রিমকোর্টে অন্তবর্তী স্থগিতাদেশ চান অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।  

পরে ২৮ এপ্রিল সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দিয়েছিল অভিষেকের বিরুদ্ধে সিবিআই বা ইডির তদন্ত সংক্রান্ত কোনো মামলা হলে, সেগুলোও শুনতে পারবেন না বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়। দেশের শীর্ষ আদালতের সেই নির্দেশে সেদিন বিধ্বস্ত দেখাচ্ছিল বিচারপতিকে। হাইকোর্ট থেকে অনেক রাতে বাড়ি পৌঁছানোর সময় সাংবাদিকদের উদ্দেশে বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় বলেছিলেন, আজ আমার মৃত্যুদিন।

কিন্তু তিনি শুনতে না পারলেও বৃহস্পতিবার (১৮ মে) কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশের পর অভিষেককে জেরার বিষয়ে সিবিআইয়ের সামনে কোনো বাধা থাকল না। এখন দেখার, অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের যে নির্দেশ বিচারপতি অমৃতা সিনহা বহাল রাখলেন, সেই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে এবং পরে সুপ্রিম কোর্টে ফের আবেদন করেন কি না।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৫৮ ঘণ্টা, মে ১৮, ২০২৩
ভিএস/আরএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।