ঢাকা, রবিবার, ১ বৈশাখ ১৪৩১, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৪ শাওয়াল ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

ত্রিপুরার রক্তের চাহিদা পূরণ হয় স্বেচ্ছায় রক্তদানের মাধ্যমে: মুখ্যমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৩৬ ঘণ্টা, আগস্ট ১৩, ২০২৩
ত্রিপুরার রক্তের চাহিদা পূরণ হয় স্বেচ্ছায় রক্তদানের মাধ্যমে: মুখ্যমন্ত্রী

আগরতলা (ত্রিপুরা): ত্রিপুরা বিধানসভা নির্বাচনের সময় রাজ্যের রক্তের কিছুটা সংকট দেখা দিয়েছিল। তাই নির্বাচনের পরেই রাজ্যের সাধারণ মানুষের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছিল রক্তদান করার জন্য।

এ আহ্বানে সাড়া দিয়ে এগিয়ে আসেন সমাজের সর্বস্তরের মানুষ, ফলে রাজ্যের রক্তের ঘাটতি পূরণ হয়। এ রাজ্যের মানুষের প্রয়োজনীয় রক্তের বেশিরভাগ আসে স্বেচ্ছায় রক্তদানের মধ্য দিয়ে।

রোববার (১৩ আগস্ট) সাপ্তাহিক ছুটির দিনে রক্তদান কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে এ কথা বলেন ত্রিপুরা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী অধ্যাপক ডা. মানিক সাহা।

তিনি বলেন, ২০২২-২০২৩ অর্থবছরে রাজ্যের যে পরিমাণ রক্ত স্বেচ্ছায় রক্তদানের মাধ্যমে সংগৃহীত হয়েছিল তার চেয়ে বেশি পরিমাণ রক্ত ২০২৩-২০২৪ অর্থবছরের রক্তদান কর্মসূচির মাধ্যমে সংগ্রহ করা হবে।

 এদিন রাজধানী আগরতলার অরুন্ধতী নগর এলাকার নিবেদিতা সংঘের উদ্যোগে রক্তদান কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এ কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী অধ্যাপক ডা. মানিক সাহা। আরও উপস্থিত ছিলেন আগরতলা পৌর নিগমের মেয়র দীপক মজুমদার, বিজেপি সদর শহরাঞ্চল জেলা কমিটির সভাপতি অসীম ভট্টাচার্যসহ নিবেদিতা সংঘের কর্মকর্তারা।

মুখ্যমন্ত্রী মানিক সাহা আরও বলেন, সাধারণ মানুষের জরুরি প্রয়োজনের কথা চিন্তা করে যেমন সরকার সবসময় পর্যাপ্ত পরিমাণ রক্ত মজুদ রাখছে। পাশাপাশি স্বাস্থ্য পরিষেবারও ব্যাপক উন্নতি করেছে বর্তমান সরকার। রাজ্যে এখন অনেক জটিল অপারেশন থেকে শুরু করে কঠিন রোগের চিকিৎসা ভালোভাবে হচ্ছে। এখন চিকিৎসার জন্য অন্য রাজ্যে যাওয়ার সংখ্যা অনেক কমে এসেছে। আগামী দিনেও চিকিৎসা পরিষেবা আরও উন্নতি হবে। সেই সঙ্গে তিনি আহ্বান জানান সবার জন্য নিয়মিতভাবে রক্তদান কর্মসূচিতে এগিয়ে আসতে।

এদিন রক্তদান কর্মসূচিতে নিবেদিতা সংঘের সদস্যদের পাশাপাশি স্থানীয় এলাকার বাসিন্দারা রক্তদানে এগিয়ে আসেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩৬ ঘণ্টা, আগস্ট ১৩, ২০২৩
এসসিএন/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।