ঢাকা, শনিবার, ২৯ চৈত্র ১৪৩০, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৩ শাওয়াল ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

ধরনা মঞ্চ থেকে বাংলাদেশ প্রসঙ্গ তুলে মমতা বিঁধলেন মোদি সরকারকে

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২২৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২, ২০২৪
ধরনা মঞ্চ থেকে বাংলাদেশ প্রসঙ্গ তুলে মমতা বিঁধলেন মোদি সরকারকে

কলকাতা: পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে রাজ্যের বকেয়া অর্থ আদায়ের দাবিতে ধরনায় বসেছেন কলকাতার রেডরোডে। তার ধরনা মঞ্চের ব্যানারে লেখা রয়েছে ‘কেন্দ্রীয় সরকারের বঞ্চনা মানছি না, মানব না’।

শুক্রবার (০২ ফেব্রুয়ারি) সেই ধরনা মঞ্চ থেকে ফের মমতার মুখে বাংলাদেশ প্রসঙ্গ। এদিন কেন্দ্রের মোদী সরকারকে বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, বিশ্বের তথ্য অনুযায়ী, ক্ষুধা তৃষ্ণায় ১২৫টা দেশের নিচে আমরা। লজ্জা করে না তাদের। এ বিষয়ে বাংলাদেশ পর্যন্ত ভারতের ওপরে। লজ্জা করে না তোমাদের। তারা আবার বড় বড় কথা বলে।

পাশাপাশি মমতা বলেছেন, গণ্ডগোল হচ্ছে এক জায়গায়। আর বাংলার বদনাম করে দিচ্ছে আরেক দেশের নাম দিয়ে। সোশ্যাল মিডিয়ায় বাংলাদেশে একটা সমস্যা হলো, আর সোশ্যাল মিডিয়া তা দেখিয়ে দিল আমার বাংলায় হয়েছে। ওদের কাজ শুধু বাংলার নামে বদনাম করা। আসলে তাদের অনেক টাকা আছে। তাই সোশ্যাল মিডিয়ায় তারা অনেক টাকা ইনভেস্ট করে।

এরপর মোদি সরকারের নানা সরকারি প্রকল্পের বিষয়ে, ধরনা মঞ্চ থেকে তুলাধুনা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি তিনি বলেছেন, আপনারা সবাই জানেন, দীর্ঘদিন ধরে বাংলার ওপর বঞ্চনা লাঞ্ছনা চলছে‌। বাংলাকে দিল্লি বড্ড হিংসে করে। বাংলার প্রাপ্য বকেয়া সব টাকা বন্ধ করে দিচ্ছে। এছাড়া গতকাল ভারতে বাজেট পেশ করেছেন অর্থমন্ত্রীর নির্মলা সীতারামন। সেই বাজেটকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন এটা জনবিরোধী বাজেট।

এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে বসে বক্তব্য দেন বলিউড অভিনেতা তথা পশ্চিমবঙ্গের আসানসোল আসনের সাংসদ শত্রুঘ্ন সিনহা। তিনি বলেছেন, ভারতের লোকতন্ত্র রক্ষার পথ দেখাবে বাংলা। তাই বাংলাবাসীর একত্রিত হতে হবে। কোনো বঞ্চনা বা প্ররোচনায় পা যেনে না দেন আপনারা।

পাশাপাশি, তার ভাষণের মাধ্যমে তিনিও কেন্দ্রের মোদি সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন।

দুপুর থেকেই ধরনা মঞ্চে রয়েছেন তৃণমূল প্রধান। আগামী ৪৮ ঘণ্টা তিনি মঞ্চেই কাটাবেন। প্রতিবাদের জন্য কালো রঙ বেছে নিয়েছেন নেত্রী। মুখ্যমন্ত্রী গায়ে জড়িয়েছেন কালো চাদর। তার নারী নেত্রী-মন্ত্রীদের পড়নে কালো রঙের শাড়ি। পুরুষ নেতা-মন্ত্রীদের গায়ে কালো পাঞ্জাবি। ধরনা মঞ্চের পেছনেই দু’টি অস্থায়ী রুম করা হয়েছে। মমতার কথায়, একটিতে তিনি সাংগঠনিক কাজ করবেন, অন্যটিতে প্রশাসনিক কাজ। মমতা বলেছেন, আমি কয়েকদিন ছিলাম না। অনেক ফাইল জমে রয়েছে। তাই আমি মাঝে মাঝে পেছনে গিয়ে ফাইলে সই করে আসব। আর আমার কিছু সাংগঠনিক কাজও রয়েছে।  

আগামী সোমবার (০৫ ফেব্রুয়ারি) দিল্লি যাবেন তিনি। সেখানে সম্ভবত বিজেপি বিরোধী ইন্ডিয়া জোটের বিষয়ে কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে বৈঠক করবেন মমতা। পাশাপাশি বৈঠক হতে পারে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের সঙ্গেও।

বাংলাদেশ সময়: ২১২৩ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০২, ২০২৪
ভিএস/এসআইএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।