ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ আশ্বিন ১৪৩০, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৫

অর্থনীতি-ব্যবসা

কোন ব্যাংকের কত খেলাপি ঋণ

জাফর আহমদ, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২১০ ঘণ্টা, মে ৩১, ২০২৩
কোন ব্যাংকের কত খেলাপি ঋণ

ঢাকা: ব্যাংকিং খাতের খেলাপি ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে এক লাখ ৩১ হাজার ৬২০ কোটি টাকা। যা মোট ঋণের ৮ দশমিক ৮০ শতাংশ।

এর বাইরে আরও প্রায় অর্ধ কোটি টাকা রয়েছে অবলোপন ঋণ।  

যদিও আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) ধরণা করছে, এই খেলাপি ঋণের পরিমাণ আরও বেশি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের ঋণ বিবরণী অনুযায়ী, বিতরণ করা ঋণের সবচেয়ে বেশি খেলাপি ব্যাংক ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তান। এটি বাংলাদেশে ব্যবসারত বিদেশি ব্যাংক। তালিকায় এরপরই রয়েছে আইসিবি ইসলামী ব্যাংক। ব্যাংকটির খেলাপি ঋণের হার ৮৬ দশমিক ৪৮ শতাংশ। ব্যাংকটি দেশি-বিদেশি যৌথ মালিকানাধীন।

এছাড়া দেশের রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর মধ্যে বেসিক ব্যাংকের খেলাপি ঋণ সর্বোচ্চ। ব্যাংকটির বিতরণ করা ঋণের মধ্যে ৫৮ শতাংশই খেলাপি।

তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের (বিডিবিএল) খেলাপি ঋণের পরিমাণ এক হাজার ৬১ কোটি ৪১ লাখ টাকা; যা ব্যাংকটির মোট বিতরণ করা ঋণের অর্ধেক। চলতি বছরের মার্চ প্রান্তিকে বেসিক ব্যাংকের খেলাপি ঋণের হার উঠেছে ৫৮ দশমিক ৩৭ শতাংশে। টাকার অঙ্কে যা ৭ হাজার ৪৭৫ কোটি ২৮ লাখ টাকা।

রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক খাতের জনতা ব্যাংকের মোট খেলাপি ঋণের পরিমাণ ১৪ হাজার ৮২৩ কোটি টাকা; খেলাপির হার ১৭ দশমিক ‍৪৬ শতাংশ। রূপালী ব্যাংকের খেলাপি ঋণের হার ১৮ দশমিক ১৮ দশমিক ৪৬ শতাংশ; খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৫৮৫ কোটি টাকা। সোনালী ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ১২ হাজার ৫ কোটি ২৫ লাখ টাকা; ব্যাংকটির খেলাপি ঋণের হার ১৪ দশমিক ৬৫ শতাংশ। অগ্রণী ব্যাংকের ১৪ হাজার ৯৪২ কোটি ১২ লাখ টাকা; যা ব্যাংকটির মোট বিতরণ করা ঋণের ২১ দশমিক ৮৯ শতাংশ।  

রাষ্ট্রায়ত্ত খাতের ব্যাংকগুলোর খেলাপি ঋণ স্বাধীনতার পর থেকে ৫০ বছরের বেশি সময় ধরে ক্রমবৃদ্ধির ফল।

বেসরকারি খাতের ব্যাংকগুলোর মধ্যে এবি ব্যাংকের খেলাপি ঋণ ৪ হাজার ৬৯ কোটি টাকা; ব্যাংকটির খেলাপি ঋণের হার ১৪ দশমিক ৬৫ শতাংশ।  

আল আরাফা ইসলামী ব্যাংকের খেলাপি ঋণ ২ হাজার ২৬৫ কোটি টাকা; খেলাপি ঋণের হার ৫ দশমিক ৬৯ শতাংশ।

ব্যাংক এশিয়ার খেলাপি ঋণের পরিমাণ এক হাজার ৫৬৫ কোটি ৫৭ লাখ টাকা; খেলাপির হার ৫ দশমিক ৯২ শতাংশ।  

ব্র্যাক ব্যাংকের খেলাপি ঋণের হার ৩ দশমিক ৭৫ শতাংশ; খেলাপি ঋণের পরিমাণ এক হাজার ৬১৩ কোটি  ৪৪ লাখ টাকা। কমার্শিয়াল ব্যাংকের মোট খেলাপি ঋণের পরিমাণ ১০টি ৪০ লাখ টাকা; ব্যাংকটির খেলাপি ঋণের হার ২ শতাংশ।

ঢাকা ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ এক হাজার ১২২ কোটি টাকা; খেলাপির হার ৪ দশমিক ৭৫ শতাংশ।

ডাচ বাংলা ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ এক হাজার ৮২৮ কোটি টাকা; ব্যাংকটির খেলাপি ঋণের হার ৫ দশমিক ৩২ শতাংশ।

ইস্টার্ন ব্যাংকের মোট খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৯০৭ কোটি টাকা; ব্যাংকটির খেলাপি ঋণের হার ৩ শতাংশ।  

এক্সিম ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ২ হাজার ১১কোটি ৩২ লাখ টাকা; খেলাপির হার ৪ দশমিক ৪৯ শতাংশ।

ফাস্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের খেলাপির ঋণ ২ হাজার ৯৭ কোটি; খেলাপির ঋণের হার ৩ দশমিক ৯৭ শতাংশ।  

 গ্লোবাল ইসলামী ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৩৫৫ কোটি টাকা; খেলাপি ঋণের হার ২ দশমিক ৯৪ শতাংশ।

আইসিবি ইসলামী ব্যাংক মোট খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৬৯১ কোটি টাকা; ব্যাংকটির মোট ঋণের ৮৪ দশমিক ৪৭ শতাংশ।

আইএফআইসি ব্যাংকের খেলাপি ঋণের হার ৬ দশমিক ২৭ শতাংশ; খেলাপি ঋণের পরিমাণ ২ হাজার ২৯৫ কোটি ৪০ লাখ টাকা।

ইসলামী ব্যাংকের খেলাপি ঋণের হার ৪ দশমিক ০৫ শতাংশ; মোট খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৬ হাজার ১০১ কোটি টাকা।  

যমুনা ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৯৬২ কোটি ২১ লাখ টাকা; খেলাপি ঋণের হার ৫ দশমিক ৫০ শতাংশ।

মেঘনা ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৩৫৪ কোটি টাকা; খেলাপি ঋণের হার ৮ দশমিক ৮৯ শতাংশ।  

মার্কেন্টাইল ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ১৩৫৪ কোটি টাকা; ব্যাংকটির খেলাপি ঋণ ৪ দশমিক ৯৩ শতাংশ।

মিডল্যান্ড ব্যাংকের খেলাপি ঋণ ১৬৯ কোটি টাকা; ব্যাংকটির খেলাপি ঋণের হার ৩ দশমিক ৩৬ শতাংশ।   

মধুমতি ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ২১৪ কোটি টাকা; ব্যাংকটির খেলাপি ঋণের হার ৩ দশমিক ৬৫ শতাংশ।

মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ এক হাজার ৪৫২ কোটি টাকা; ব্যাংকটির হার ৫ দশমিক ৮৫ শতাংশ।  

ন্যাশনাল ব্যাংকের মোট খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৭ হাজার ৭৭৪ কোটি টাকা; ব্যাংকটির এ খেলাপি ঋণ মোট ঋণের ১৮ দশমিক ৩৫ শতাংশ।

ন্যাশনাল ক্রেডিট অ্যান্ড কমার্শিয়াল ব্যাংকের (এনসিসি) মোট খেলাপি ঋণের পরিমাণ এক হাজার ৩৩ কোটি টাকা; খেলাপি ঋণের হার ৫ শতাংশ।

এনআরবি ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৩০৬ কোটি  ৮৯ লাখ টাকা; খেলাপি ঋণের হার ৫ দশমিক ৮৮ শতাংশ।

এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৬৭২ কোটি টাকা; ব্যাংকটির মোট ঋণের ৪ দশমিক ৯২ শতাংশ খেলাপি ঋণ।   

ওয়ান ব্যাংকের খেলাপি ঋণের হার ১০ দশমিক ৩২ শতাংশ; ব্যাংকটির খেলাপি ঋণের পরিমাণ ২ হাজার ২৮৩ কোটি ৪৬ লাখ টাকা।  

পদ্মা ব্যাংকের মোট ঋণের ৫৯ দশমিক ২৭ শতাংশ খেলাপি; ব্যাংকটির মোট খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৩ হাজার  ৪২৭ কোটি টাকা।

প্রিমিয়ার ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৯৯৬ কোটি টাকা; খেলাপির হার ৩ দশমিক ৮৪ শতাংশ।

প্রাইম ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ এক হাজার ১২৪ কোটি ২৭ লাখ টাকা; খেলাপির হার ৩ দশমিক ৭৯ শতাংশ।   

পূবালী ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ এক হাজার ২০৮ কোটি টাকা; খেলাপির হার ২ দশমিক ৬৭ শতাংশ।

শাহজালাল ইসলামী ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ এক হাজার ১৩২ কোটি টাকা; খেলাপি ঋণের হার ৪ দশমিক ৯১ শতাংশ।  

সীমান্ত ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৩০ কোটি ৬৬ লাখ টাকা। যা বিতরণ করা মোট ঋণের ২ দশমিক ২৬ শতাংশ।  

সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক এক হাজার ৬৫২ কোটি টাকা; খেলাপির হার ৪ দশমিক ৮৬ শতাংশ।

সাউথ বাংলা অ্যাগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৩৯৭ কোটি টাকা; খেলাপি ঋণের হার ৫ দশমিক ০৫ শতাংশ।

সাউথইস্ট ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ এক হাজার ৫৬২ কোটি টাকা; খেলাপির হার ৪ দশমিক ৬৬ শতাংশ।

স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ এক হাজার ১৬৩ কোটি টাকা; খেলাপির হার ৬ দশমিক ৭৬ শতাংশ।  

দ্য সিটি ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ এক হাজার ৫১৫ কোটি টাকা; খেলাপির হার ৩ দশমিক ৯২ শতাংশ।  

ট্রাস্ট ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ২ হাজার ২০ কোটি টাকা; খেলাপির হার ৬ দশমিক ৭৫ শতাংশ।

ইউনিয়ন ব্যাংকের মোট খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৮৫২ কোটি টাকা; খেলাপির হার ৩ দশমিক ৭৬ শতাংশ।

ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ২ হাজার ৮০৬ কোটি ৫২ লাখ টাকা; ব্যাংকটির মোট ঋণের ৬ দশমিক ১১ শতাংশ খেলাপি।

উত্তরা ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ এক হাজার ২৭২ কোটি টাকা; খেলাপির হার ৮দশিক ৩৪ শতাংশ।

বিদেশি ব্যাংকগুলোর মধ্যে ব্যাংক আল ফালাহর খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৩৩ কোটি ৫৪ লাখ টাকা; খেলাপি ঋণের হার ২ দশমিক ১২ শতাংশ।

সিটি ব্যাংক এনএ-এর খেলাপি ঋণের পরিমাণ ২২ কোটি টাকা; খেলাপির হার এক শতাংশের নিচে।  

কমার্শিয়াল ব্যাংক অফ সিলনের খেলাপি ঋণের হার এক শতাংশের সামান্য উপরে; ব্যাংকটির মোট খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৬৫ কোটি টাকা।  

হাবিব ব্যাংকের খেলাপি ঋণের হার ১১ শতাংশ ছুঁইছুঁই; খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৪৮ কোটি টাকা।  

এইচএসবিসি ব্যাংকের মোট বিতরণ করা ঋণের ৪ শতাংশ খেলাপি। খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৫৮৫ কোটি টাকা লাখ টাকা।

ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তান বাংলাদেশে বিতরণ করা ঋণের প্রায় পুরোটাই খেলাপিতে পরিণত হয়েছে। ব্যাংকটির খেলাপি ঋণের হার ৯৮ শতাংশ। খেলাপি ঋণের পরিমাণ এক হাজার ৩৫৪ কোটি ৭২ লাখ টাকা।  

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের খেলাপি ঋণের হার ৩ দশমিক ৪৩ শতাংশ; খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৮৯৫ কোটি ৯ কোটি টাকা।

স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার ঋণের এক শতাংশ খেলাপি। ব্যাংকটির খেলাপি ঋণের পরিমাণ ১৩ কোটি ৩৮ লাখ টাকা।   

উরি ব্যাংকের খেলাপি ঋণের হার ২ দশমিক ৭০ শতাংশ; ব্যাংকটির খেলাপি ঋণের পরিমাণ ২৫ কোটি ১৩ লাখ টাকা।  

বিশেষায়িত ব্যাংকগুলোর মধ্যে কৃষি ব্যাংকের খেলাপি ঋণের হার ‍১১ দশমিক ২২ শতাংশ; ব্যাংকটির মোট খেলাপি ঋণ ৩ হাজার ২০৯ কোটি টাকা।

প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ২২ কোটি টাকা; খেলাপি ঋণের হার ৭ দশমিক ৮৯ শতাংশ।  

রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের মোট বিতরণ করা ঋণের ২০ দশমিক ৫২ শতাংশ খেলাপি; খেলাপি ঋণের পরিমাণ এক হাজার ৩৯৯ কোটি ৫৭ লাখ টাকা।  

বাংলাদেশ সময়: ১১৩৪ ঘণ্টা, মে ৩১, ২০২৩
জেডএ/এনএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa