ঢাকা, সোমবার, ১৩ আষাঢ় ১৪২৯, ২৭ জুন ২০২২, ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

অর্থনীতি-ব্যবসা

এক দশকে ৪১ লাখের বেশি আর্থিক প্রতিষ্ঠান বেড়েছে

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭০৯ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩১, ২০১৫
এক দশকে ৪১ লাখের বেশি আর্থিক প্রতিষ্ঠান বেড়েছে

ঢাকা: এক দশকের ব্যাবধানে দেশে নানা ধরনের আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা বেড়েছে ৪১ লাখ ১০ হাজার ৪২১টি। ২০০৩ সালে বাংলাদেশে বাংলাদেশে স্থায়ী প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ছিল ৩৭ লাখ ৮ হাজার ১৪৪টি।

২০১৩ সালে এ সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৭৮ লাখ ১৮ হাজার ৫৬৫টি।
 
বৃহস্পতিবার (৩১ ডিসেম্বর) রাজধানীর বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর সদর দফতরে এক অনুষ্ঠানে অর্থনৈতিক শুমারি’২০১৩ এর চূড়ান্ত রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়। প্রকাশিত রিপোর্টে এ সব তথ্য উঠে এসেছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্না, অর্থনীতিবিদ ড. ওয়াহিদুজ্জামান, পরিসংখ্যান বিভাগের সচিব কানিজ ফাতেমা প্রমূখ।
 
রিপোর্টে আরও দেখানো হয়, ২০০৩ সালে প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা বৃদ্ধির হার ছিল ৭১ শতাংশ, ২০১৩ সালে তা হয়েছে ১১০ দশমিক ৮৫ শতাংশ।

মোট প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে কুটিরশিল্পে প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। সকল শিল্পের মধ্যে কুটিরশিল্পের সংখ্যা ৬৮ লাখ ৪২ হাজারর ৮৮৪টি। এছাড়া ক্ষুদ্রশিল্প ৮ লাখ ৫৯ হাজার ৩১৮টি, মাইক্রোশিল্প ১ লাখ ৪০ হাজার ৭টি, মাঝারিশিল্প ৭ হাজার ১০৬টি এবং বৃহৎশিল্প ৫ হাজার ২৫০টি।
প্রতিষ্ঠান ও কর্মরত জনবলের পরিমাণ বিবেচনায় ঢাকা বিভাগ অপ্রতিদ্বন্দ্বী। এ বিভাগে ২৫ লাখ ৪১ হাজার ৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ৯৩ লাখ ৯৫ হাজার ৬৮৮ জন জনবল রয়েছে। এর পরের অবস্থান চট্টগ্রাম বিভাগ। এই বিভাগে ১৩ লাখ ২৭ হাজার ৬২৯টি প্রতিষ্ঠানে ৩৩ লাখ ৯৬ হাজার ১১৫ জন জনবল রয়েছে। সব থেকে কম জনবল রয়েছে বরিশাল বিভাগে ২০ লাখ ৪৪ হাজার ৫৫২ জন, যেখানে প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ৩ লাখ ৬৮ হাজার ১২৯টি।
 
সামগ্রিক অর্থনীতিতে গ্রামীণ অর্থনীতির ভূমিকা দিন দিন বাড়ছে। শহরের অর্থনীতির পাশাপাশি গ্রামীণ অর্থনীতি চাঙ্গা হচ্ছে। শুমারি’২০১৩ অনুযায়ী সামগ্রিক অকৃষিমূলক অর্থনীতির মধ্যে পল্লী এলাকার অবদান ছিল ৬২ দশমিক ৬১ শতাংশ। বর্তমানে এ হার বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে ৭১ দশমিক ৪৮ শতাংশ।
 
প্রতিষ্ঠান প্রধান হিসেবে নারীদের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৩ সালে মোট প্রতিষ্ঠানের মধ্যে নারী প্রধান প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা হয়েছে ৫ লাখ ৬৩ হাজার ৩৬৮টি। ২০০৩ সালে এ সংখ্যা ছিল মাত্র ১ লাখ ৩ হাজার ৮৫৮টি। এক দশকে প্রতিষ্ঠানের প্রধান হিসেবে নারীদের সংখ্যা ৫ গুণেরও বেশি হয়েছে।
 
অন্যদিকে এক দশকে কর্মসংখ্যান দ্বিগুণেরও বেশি হয়েছে। ২০১৩ সালে মোট ২ কোটি ৪৫ লাখ ৮৫০ জনবল বিভিন্ন অকৃষিমূলক অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে নিয়োজিত ছিলেন যার পরিমাণ ২০০৩ সালে ছিল মাত্র ১ কোটি ১২ লাখ ৭০ হাজার ৪২২ জন। অর্থাৎ গত এক দশকে কর্মসংস্থান ১১৭ দশমিক ৩৯ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৭০৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩১, ২০১৫
এমআইএস/এএসআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa