ঢাকা, মঙ্গলবার, ১ ভাদ্র ১৪২৯, ১৬ আগস্ট ২০২২, ১৭ মহররম ১৪৪৪

অর্থনীতি-ব্যবসা

ডিজিটাল গঠনে এসডিজি ট্রেকার যুগান্তকারী পদক্ষেপ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৩০০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৪, ২০১৮
ডিজিটাল গঠনে এসডিজি ট্রেকার যুগান্তকারী পদক্ষেপ এসডিজি ট্রেকার বিষয়ক কনসালটেশন কর্মশালায় অতিথিরা। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে এসডিজি ট্রেকার একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। তারা বলেন, কাউকে পিছিয়ে রেখে নয়, এ প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে এসডিজি ট্রেকার কাজ করবে। এসডিজি পরিবীক্ষণে ডাটা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। 

সামগ্রিকভাবে টেকসই উন্নয়নের জন্য সঠিক নীতি নির্ধারণ এবং সম্পদের সুষ্ঠু বন্টন নিশ্চিতকল্পে তথ্য নির্ভর নীতি-নির্ধারণে অনলাইন তথ্য ভাণ্ডার নিশ্চিত করাই মূলত এসডিজি ট্রেকারের মূল উদ্দেশ্য। এটি একটি কার্যকর মাধ্যম হিসেবে বাংলাদেশ ছাড়াও বহির্বিশ্বেও সমাদৃত হচ্ছে।

 

রোববার (২৩ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) ভবনের অডিটোরিয়ামে এসডিজি ট্রেকার বিষয়ক কনসালটেশন কর্মশালায় এ তথ্য জানানো হয়।  

তথ্য ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব সৌরেন্দ্র নাথ চক্রবর্ত্তীর সভাপতিত্বে কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসান।  

এছাড়া কর্মশালাটিতে উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালক ড. কৃষ্ণাগায়েন এবং এ-টু-আই-এর প্রকল্প পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান (অতিরিক্ত সচিব), বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালক ড. কৃষ্ণাগায়েন ও এ-টু-আই-এর প্রকল্প পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান।

এ-টু-আই এবং বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) যৌথ উদ্যোগে এ কর্মশালার আয়োজন করা হয়।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসান বলেন, জাতিসংঘ ঘোষিত সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এমডিজি) অর্জনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে অগ্রদূত হিসেবে বিবেচনা করা হয়। বাংলাদেশের এ অর্জন সারাবিশ্বে প্রশংসিত হয়েছে। এমডিজির মতো টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বা এসডিজি অর্জনে বাংলাদেশ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এ লক্ষ্যে সবাইকে সঙ্গে নিয়ে একত্রে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।

তথ্য ও পরিসংখ্যান বিভাগের সচিব সৌরেন্দ্র নাথ চক্রবর্ত্তী বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে এসডিজি ট্রেকার একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ হিসেবে বিবেচনা করা যায়। বিবিএস এবং তথ্য ও পরিসংখ্যান বিভাগ এসডিজি ট্রেকারের মাধ্যমে উন্নয়ন পর্যবেক্ষণে এ-টু-আই-এর সঙ্গে কাজ করে যাবে। সব মন্ত্রণালয়ের সহায়তা এক্ষেত্রে একান্ত কম্য।  

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালক ড. কৃষ্ণাগায়েন বলেন, বিবিএস প্রয়োজন অনুযায়ী বিভিন্ন সভা-কর্মশালা আয়োজনের মাধ্যমে এসডিজি বিষয়ে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও অধিদফতরের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে কার্যক্রম শুরু করেছে।  

এ-টু-আই-এর প্রকল্প পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ট্রেকারটি আমাদের জন্য সম্পূর্ণ নতুন। আমরা বিভিন্ন স্ট্যাকহোল্ডারদের কাছ থেকে এর বিভিন্ন বিষয়ে মতামত নিচ্ছি। ইতোমধ্যে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক-শিক্ষা বিশেষজ্ঞদের নিয়ে কর্মশালা চলমান রয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন দেশ তাদের দেশের প্রয়োজন অনুযায়ী এসডিজি ট্রেকারটি ব্যবহার করার জন্য এ-টু-আই-এর সঙ্গে যোগাযোগ করছে এবং আমরা সহায়তা করছি।  

বাংলাদেশ সময়: ২১৫৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৩, ২০১৮
জিসিজি/আরবি/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa