ঢাকা, বুধবার, ২০ আশ্বিন ১৪২৯, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

অর্থনীতি-ব্যবসা

বার্জার-আইএবি আর্কিটেকচার অ্যাওয়ার্ডের জন্য প্রকল্প আহ্বান

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০৩ ঘণ্টা, আগস্ট ১০, ২০২২
বার্জার-আইএবি আর্কিটেকচার অ্যাওয়ার্ডের জন্য প্রকল্প আহ্বান বার্জার ও আইএবি আর্কিটেকচার অ্যাওয়ার্ডের জন্য প্রকল্প আহ্বান অনুষ্ঠানে আগত অতিথিরা। ছবি: জি এম মুজিবুর

ঢাকা: বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশের উদ্যোগে ইনস্টিটিউট অব আর্কিটেক্টস বাংলাদেশের (আইএবি) সহযোগিতায় বার্জার অ্যাওয়ার্ড ফর এক্সিলেন্স ইন আর্কিটেকচারের (বিএইএ) অ্যাওয়ার্ডের জন্য প্রকল্প আহ্বান করা হয়েছে।

বুধবার (১০ আগস্ট) রাজধানীর গুলশান ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এ প্রকল্প আহ্বান করা হয়।



সংবাদ সম্মেলনে আইএবির সভাপতি স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন বলেন, উৎকর্ষের দিকে এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে এ ধরনের অ্যাওয়ার্ড স্থপতিদের অনুপ্রাণিত করে। ইনস্টিটিউট অব আর্কিটেক্টস স্থাপত্য ক্ষেত্রে মেধাবীদের কাজের স্বীকৃতি দিতে বার্জার প্রবর্তিত এমন অসাধারণ আয়োজনে অংশ হতে পেরে আমি আনন্দিত।

বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রুপালী চৌধুরী বলেন, সেরা কাজগুলো তৈরিতে আমাদের স্থপতিরা নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন, কিন্তু অনেক সময়ই তাদের সৃষ্টিশীল কাজগুলো স্বীকৃতি পায় না। যোগ্য স্থপতিদের মেধা ও পরিশ্রমকে স্বীকৃতি দিতে বার্জার অ্যাওয়ার্ড ফর এক্সিলেন্স ইন আর্কিটেকচার (বিএইএ) প্রবর্তন করা হয়েছে।

বার্জারের সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং এর সিনিয়র জেনারেল ম্যানেজার মো. মোহসিন হাবিব চৌধুরী বলেন, ২০০৩ সাল থেকে বার্জার স্থাপত্য ক্ষেত্রে সেরা কাজগুলোকে স্বীকৃতি দিয়ে আসছে। এ স্বীকৃতি দানের ২০ বছর হয়েছে। এ সময়ে আমরা বিভিন্ন বিভাগে মেধাবী স্থপতিদের স্বীকৃতি দিয়েছি। ভবিষ্যতেও স্থপতিদের অনুপ্রেরণা দেওয়ার ক্ষেত্রে আমাদের এ উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে।

সংবাদ সম্মেলনে অ্যাওয়ার্ডের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের জানান স্থপতি কাজী এম আরিফ। এ সময় তিনি প্রখ্যাত শিল্পী মো. হামিদুজ্জামানের নকশাকৃত অ্যাওয়ার্ড ট্রফি উন্মোচন করেন।

বিএইএ অ্যাওয়ার্ডকে দেশের স্থাপত্যের ক্ষেত্রে সম্মানজনক ও স্বীকৃত অ্যাওয়ার্ড হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ইনস্টিটিউট অব আর্কিটেক্টস বাংলাদেশের (আইএবি) সহযোগিতায় বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ ২০০৩ সালে এ পুরস্কার প্রবর্তন করে।

স্থাপত্যের সেরা কাজগুলোকে স্বীকৃতি দিতে বার্জার পেইন্টস ‘বার্জার ইয়াং আর্কিটেক্টস’ অ্যাওয়ার্ড চালু করে, যা পরে ২০০৭ সালে ‘বার্জার অ্যাওয়ার্ড ফর এক্সিলেন্স ইন আর্কিটেকচার (বিএইএ)’ নামকরণ করা হয়। এ বছর এ অনুষ্ঠানের ১০ম সংস্করণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। গত ২০ বছর ধরে এটি দেওয়া হচ্ছে, যা স্থাপত্য ক্ষেত্রে একটি ঐতিহাসিক ও উল্লেখযোগ্য অর্জন।

বার্জার অ্যাওয়ার্ড ফর এক্সিলেন্স ইন আর্কিটেকচার ‘বার্জার আর্কিটেক্টস’ অ্যাওয়ার্ড ও ’বার্জার ইয়াং আর্কিটেক্টস’ অ্যাওয়ার্ড দু'টি বিভাগে পুরস্কৃত করার উদ্যোগ হিসেবে শুরু করা হয়। যার মধ্যে আবাসিক ও অনাবাসিক দু'টি ক্যাটাগরি রয়েছে। এ অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান পরিচালনায় গত ডিসেম্বরে বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেড ও ইনস্টিটিউট অব আর্কিটেক্টস বাংলাদেশের সঙ্গে একটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সই হয়। এমওইউ এর অধীনে উভয় প্রতিষ্ঠান দেশের স্থপতিদের সেরা কাজের জন্য তাদের স্বীকৃতি দিতে কাজ করে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন পিপিইজেড'র প্রধান সাব্বির আহমেদ, চ্যানেল এনগেজমেন্টের প্রধান এ এম এম ফজলুর রশিদ এবং প্রতিষ্ঠানটির প্রোলিংকসের প্রধান মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম।

বাংলাদেশ সময়: ১৮০২ ঘণ্টা, আগস্ট ১০, ২০২২
এমকে/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa