ঢাকা, সোমবার, ১১ আশ্বিন ১৪২৯, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২৮ সফর ১৪৪৪

অর্থনীতি-ব্যবসা

মানুষ কষ্টে আছে, সেটা অস্বীকার করার কিছু নেই: বাণিজ্যমন্ত্রী

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৩৪ ঘণ্টা, আগস্ট ১৪, ২০২২
মানুষ কষ্টে আছে, সেটা অস্বীকার করার কিছু নেই: বাণিজ্যমন্ত্রী

রংপুর: জিনিসপত্রের দাম বাড়ায় সাধারণ মানুষ কষ্টে আছে, সেটা অস্বীকার করার কিছু নেই বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

তিনি বলেন, অর্থনৈতিক মন্দা এখন বিশ্বজুড়ে।

তাই সারা বিশ্বেই নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বেড়েছে। এর প্রভাব পড়েছে আমাদের দেশেও। ফলে সাধারণ মানুষ কষ্টে আছে, সেটা অস্বীকার করার কিছু নেই। মানুষের কষ্ট বেড়েছে, সেই কষ্ট যাতে না থাকে, সে জন্য সরকার কাজ করে যাচ্ছে।

বিশ্ববাজারে তেলের দাম কমেছে, তবে আমাদের দেশে ডলারের দাম বেড়ে যাওয়ায় প্রভাব পড়েছে তার ওপর, শিগগির ট্যারিফ কমিশনের সঙ্গে বসে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

রোববার (১৪ আগস্ট) সকালে তিন দিনের সফরে রংপুরে এসে নগরীর সেন্ট্রাল রোডের বাসভবনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।  
মন্ত্রী বলেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বাড়ায় মানুষের কষ্ট হচ্ছে। সারা পৃথিবীতেই দাম বেড়েছে, ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধসহ বিভিন্নভাবে দাম বেড়েছে তার প্রভাব এ দেশেও পড়েছে। তবে মানুষের কষ্ট লাঘবে সরকার চেষ্টা করে যাচ্ছে।

জীবিত অবস্থায় বেহেশত পাওয়া যায় না উল্লেখ করে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, জিনিসপত্রের দাম বাড়লে মানুষের কষ্ট হবে। তবে দেশের মানুষ বেহেশতে আছে, আমি তা জানি না। বেহেশত-দোজখ তো মানুষ মারা গেলে বুঝতে পারে।

বিএনপি-জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের চলমান আন্দোলন কর্মসূচি প্রসঙ্গে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বৈশ্বিক সংকটকে পুঁজি করে গণতান্ত্রিকভাবে আন্দোলন করা হলে সরকার বাধা দেবে না। কিন্তু মানুষকে কষ্ট দিয়ে আন্দোলনের নামে হিংসাত্মক কিছু করা হলে দেশের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাদের ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করবে।

তিনি আরও বলেন, জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় ছিল, বিএনপিও ছিল। এ কারণে তাদের আচরণও গণতান্ত্রিক হওয়া উচিত। তাহলে দেশে গণতান্ত্রিক চর্চাটা অব্যাহত থাকবে। নয়তো উন্নয়ন ও গণতন্ত্র চর্চার ধারাবাহিকতা ব্যাহত হবে।

টিপু মুনশি বলেন, বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কা হয়ে যাচ্ছে এ কথাটি সঠিক নয়। রাজনীতির খাতিরে হয়তো কোনো কোনো রাজনৈতিক দল এটি বলছে। আশপাশের অনেক দেশের তুলনায় আমাদের অর্থনৈতিক অবস্থা ভালো রয়েছে।

বিশ্ববাজারে ভোজ্য তেলের দাম কমলেও দেশে ডলারের দাম বেড়েছে। এর ফলে দেশে আমদানিনির্ভর নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়ছে। বিশ্ববাজারের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ দাম নির্ধারণে ট্যারিফ কমিশন কাজ করছে। এ ছাড়া বৈশ্বিক বাজারে দাম কমার ফলে দেশের বাজারেও পণ্যের দামের কিছুটা প্রভাব পড়া শুরু করেছে।

বাণিজ্যমন্ত্রী আরও বলেন, দেশ থেকে যদি ডলার পাচার করা হয়ে থাকে, তবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। আমাদের ডলার সংকটের কারণে সারা পৃথিবীজুড়ে ডলারের দাম বেড়েছে তা আমরা বলতে পারি না। আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত, পাকিস্তানেও ডলারের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।
এ সময় রংপুর মহানগর, জেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩০ ঘণ্টা, আগস্ট ১৪, ২০২২
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa