ঢাকা, শনিবার, ৮ মাঘ ১৪২৮, ২২ জানুয়ারি ২০২২, ১৮ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

শিক্ষা

রাবিতে ছাত্র-শিক্ষক নির্যাতন দিবস পালিত

জনাব আলী, রাবি প্রতিনিধি | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২১৯ ঘণ্টা, আগস্ট ৩০, ২০১২
রাবিতে ছাত্র-শিক্ষক নির্যাতন দিবস পালিত

রাবি: মামলা প্রত্যাহার ও নির্যাতিতদের সংর্বধনার মধ্যে দিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) পালিত হলো- ‘ছাত্র-শিক্ষক নির্যাতন দিবস’।

দিবসটি উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে সিনেট ভবনের পাদদেশ থেকে নির্যাতিত শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের অংশগ্রহণে একটি শোভাযাত্রা বের হয়।



শোভাযাত্রাটি ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক পদক্ষিণ শেষে আবার সিনেট ভবনের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

এর পর সিনেট ভবনে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপউপাচার্য অধ্যাপক নূরুল্লাহর সভাপতিত্বে ২০০৭ সালের আগস্টের ছাত্র বিক্ষোভের স্মৃতিচারণ ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, সেই সময়ে গ্রেফতার-শিক্ষক বর্তমান রাবি উপাচার্য অধ্যাপক আব্দুস সোবহান, ছাত্র উপদেষ্টা গোলাম সাব্বির সাত্তার তাপু, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক চিত্তরঞ্জন মিশ্র, মলয় কুমার ভৌমিক, সাখাওয়াত হোসেন প্রমুখ।

আগস্ট বিক্ষোভের স্মৃতিচারণ করে উপাচার্য অধ্যাপক আব্দুস সোবহান বলেন, ‘তত্ত্বাবধায়ক সরকার দেশের গণতন্ত্রকে হত্যা করতে চেয়েছিল। আর এর পরিপ্রেক্ষিতে ঢাবির শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আমরা একাত্মতা ঘোষণা করেছিলাম; যার ফলে যে আন্দোলন হয়েছিল, তারই সুফল বর্তমানের গণতান্ত্রিক সরকার। ‘

তৎকালীন কারাবন্দি শিক্ষক অধ্যাপক মলয় কুমার ভৌমিক বলেন, ‘আর কোনোদিন যেন এ রকম ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হয়! শিক্ষক হিসেবে আমরা আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সেলে যে নির্যাতনের শিকার হয়েছি, তাদের বিচার আজও করা সম্ভব হয়নি। ‘

তিনি বলেন, ‘এ ঘটনায় সংসদীয় তদন্ত কমিটির যে সুপারিশ করা হয়েছে, সরকার যেন সে বিষয়ে জোরালো পদক্ষেপ গ্রহণ করে। ‘

স্মৃতিচারণ শেষে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উদ্যাগে অধ্যাপক আব্দুস সোবহান, অধ্যাপক সাইদুর রহমান (যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত), অধ্যাপক মলয় কুমার ভৌমিক, অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান, অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার তাপু, অধ্যাপক সেলিম রেজা নিউটন, অধ্যাপক দুলাল চন্দ্র বিশ্বাস (পিআইবির মহাপরিচালক) অধ্যাপক সাখাওয়াত হোসেন, কর্মকর্তা সাদেকুল ইসলাম, কর্মচারী আতিউর রহমান আতা, শিক্ষার্থীদের মধ্যে আব্দুল্লাহ সরকার রনি ও আয়েন উদ্দীনকে সংবর্ধনা ও ক্রেস্ট দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, ২০০৭ সালের ২২ আগস্ট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ওপর তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সেনাসদস্যদের হামলার ঘটনায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা যে আন্দোলন করেছিলেন, তার পরিপ্রেক্ষিতে ৫ জন শিক্ষক এবং ৫ জন শিক্ষার্থীকে আটক করা হয়েছিল।

এছাড়া ৮ জন শিক্ষক, ২ জন কর্মকর্তা ও ১১ শিক্ষার্থীর নাম উল্লেখ করে প্রায় ৫ শতাধিক অজ্ঞাতপরিচয় শিক্ষার্থীদের নামে ৪টি মামলা দায়ের করা হয়েছিল। এর মধ্যে ৩টি মামলা খারিজ হলেও একটি মামলা এখনো ঝুলন্ত রয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ২২০৯ ঘণ্টা, আগস্ট ৩০, ২০১২
সম্পাদনা: আশিস বিশ্বাস, অ্যাসিস্ট্যান্ট আউটপুট এডিটর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa