ঢাকা, শনিবার, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৩ আগস্ট ২০২২, ১৪ মহররম ১৪৪৪

শিক্ষা

খুবিতে ৩ দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সম্মেলন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৫২ ঘণ্টা, জুলাই ১, ২০২২
খুবিতে ৩ দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সম্মেলন

খুলনা: খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান, প্রকৌশল ও প্রযুক্তিবিদ্যা স্কুলের আয়োজনে  ‘International Conference on STEM and the 4th Industrial Revolution 2020’ শীর্ষক একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলন শুরু হয়েছে।  

শুক্রবার (১জুলাই)  সকাল দশটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য জগদীশচন্দ্র বসু অ্যাকাডেমিক ভবনের সাংবাদিক লিয়াকত আলী মিলনায়তনে  আয়োজনে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আলমগীর।

তিনি বলেন, দ্রুত পরিবর্তনশীল বিশ্বে নানা চাহিদার সঙ্গে সঙ্গে চ্যালেঞ্জও উদ্ভূত হচ্ছে। জীবনধারায় ব্যাপক পরিবর্তন আসছে। প্রযুক্তির সংশ্লেষ ও অনুসঙ্গে মানুষের কর্মপরিবেশ, ব্যক্তি ও জীবন সংস্কৃতিতে পট পরিবর্তিত হচ্ছে। এ অবস্থায় মানবিক মূল্যবোধকে সমুন্নত রেখেই প্রযুক্তি ও পরিবর্তনকে জীবনধারার সঙ্গে খাপ খাওয়াতে হবে।

প্রধান অতিথি বলেন, বিশ্ব পরিস্থিতি এতোটাই পরিবর্তনশীল যে, আমরা শিক্ষানীতি ও কৌশল প্রণয়ন করে বাস্তবায়ন করতে যেয়ে যে সময় অতিবাহিত করছি, তার মধ্যেই আবার নতুন প্রয়োজন, চাহিদা ও পরিবর্তন উদ্ভূত হচ্ছে। গত এক যুগ আগে যে শিক্ষানীতি প্রণীত হয়েছিল, ইউজিসি যে উচ্চশিক্ষার কৌশল কয়েকবছর আগে প্রণয়ন করেছিল তার মধ্যেই আবির্ভূত হয়েছে ৪র্থ শিল্প বিপ্লব। ফলে এসব কৌশল ও নীতিকে সময়োপযোগী করার তাগিদ এসেছে।  

তিনি বলেন, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় দেশের অন্যতম একটি সম্ভাবনাময় উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে।

চিফ প্যাট্রন হিসেবে বক্তব্য রাখেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন। তিনি বলেন, এই আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজন অত্যন্ত সময়োপযোগী হয়েছে। কেন না আমরা এখন ৪র্থ শিল্প বিপ্লবের মধ্য দিয়ে যাচ্ছি। এ বিষয়ে আমাদের জানার দরকার, এর প্রেক্ষিত কী ও করণীয় কী সেটাও জানা দরকার। উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবর্তিত বিশ্ব পরিস্থিতিতে নতুন নতুন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় গবেষণা এবং অন্যদিকে দক্ষ জনশক্তি তৈরি করা প্রয়োজন।  

তিনি প্রধান অতিথিসহ দুজন কি নোট স্পিকার এবং এ সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী দেশি-বিদেশি গবেষক, শিক্ষক, প্রতিনিধিদের বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

সম্মেলনে প্যাট্রন হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. হোসনে আরা। তিনি এ সম্মেলনকে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলে আখ্যায়িত করে সম্মেলনের সাফল্য কামনা করেন।

সম্মেলনের উদ্বোধন পর্বে মূল নিবন্ধ উপস্থাপন করেন শাহাজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষক, বরেণ্য শিক্ষাবিদ প্রফেসর ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবাল ও যুক্তরাষ্ট্রের দ্য ইউনিভার্সিটি অব টেক্সাস অ্যাট অস্টিনের বার্টলেট কক রিজেন্ট প্রফেসর ইমেরিটাস প্রফেসর ড. স্টিভেন এ. মুর।  

প্রফেসর ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবাল ১ম-৩য় শিল্প বিপ্লবের বিভিন্ন অর্জন-অনার্জন, ৪র্থ শিল্প বিপ্লব, প্রযুক্তি, মানবিকতা, শিক্ষা ও গবেষণার বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন।  

প্রফেসর ড. স্টিভেন এ. মুর ভার্চ্যুয়ালি সংযুক্ত হয়ে জ্ঞানতত্ত্বের মতো গুরুত্বপূর্ণ দিকের বিভিন্ন দিক উল্লেখ করেন। একই সঙ্গে তিনি ৪র্থ শিল্প বিপ্লবের সঙ্গে মানবিক মূল্যবোধের দিকটি গুরুত্বের সঙ্গে তুলে ধরেন।

সম্মেলনের উদ্বোধন পর্বে সভাপতির বক্তব্য রাখেন আয়োজক কমিটির সভাপতি বিজ্ঞান, প্রকৌশল ও প্রযুক্তিবিদ্যা স্কুলের ডিন প্রফেসর ড. আফরোজা পারভীন।  

বিশেষ করে এই সম্মেলন আয়োজনে উৎসাহ, প্রেরণা দিয়ে মুখ্য ভূমিকা রাখার জন্য উপাচার্যকে ধন্যবাদ জানান।  

স্বাগত বক্তব্য রাখেন আয়োজক কমিটির সদস্য-সচিব প্রফেসর ড. মো. হায়দার আলী বিশ্বাস। সম্মেলনের মুখ্য বিষয়াদি তুলে ধরেন সম্মেলনের টেকনিক্যাল প্রোগ্রাম কমিটির সভাপতি প্রফেসর ড. মো. শামীম আহসান।

সম্মেলনের উদ্বোধনপর্বে আয়োজক কমিটির প্রদত্ত সম্মান ক্রেস্ট প্রধান অতিথি ইউজিসি সদস্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আলমগীর ও প্রফেসর ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবালের হাতে তুলে দেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন।  

এই আন্তর্জাতিক সম্মেলনে বাংলাদেশসহ যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, জার্মানি, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, সৌদি আরব, ভারত ও নেপালের ৬১টি ইনস্টিটিউট থেকেও প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৫২ ঘণ্টা, ০১ জুলাই, ২০২২ 
এমআরএম/এসআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa