ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

নির্বাচন ও ইসি

কেন্দ্রে সিসি টিভি, নারীদের জন্য ৩৩ শতাংশ আসনের সুপারিশ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১০৬ ঘণ্টা, অক্টোবর ১১, ২০১৭
কেন্দ্রে সিসি টিভি, নারীদের জন্য ৩৩ শতাংশ আসনের সুপারিশ ইসির সঙ্গে সংলাপে ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি

ঢাকা: সুষ্ঠু, অবাধ ও গ্রহণযোগ্য জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে সিসি টিভি বসানোর সুপারিশ করেছে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি। একইসঙ্গে দলটি নারীদের জন্য সংসদে ৩৩ শতাংশ আসন রেখে সরাসরি ভোটের ব্যবস্থার কথাও বলেছে।

আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে বুধবার (১১ অক্টোবর) নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সঙ্গে সংলাপে বসে দলটি এমন সুপারিশ করেছে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংলাপে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির কার্যকরী সভাপতি মিসেস আমেনা আহমেদ এর নেতৃত্বে ১৮ সদস্যের প্রতিনিধি দল সংলাপে অংশ নেয়।

আমেনা আহমেদ বলেন, আমরা মনে করি এক কঠিন চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সম্পন্ন করার দায়িত্ব নিয়েছে ইসি। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য আমরা প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে সিসি ক্যামেরা বসানোর সুপারিশ করেছি। এছাড়া সেনা মোতায়েনের প্রয়োজন হলে যেন স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে তাদের মোতায়েন করা হয় তার কথা বলেছি।

বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির লিখিত ১৬ দফা সুপারিশগুলোর মধ্যে রয়েছে-সংবিধান অনুযায়ী বর্তমান সরকারের অধীন নির্বাচন অনুষ্ঠান; সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের বাধা চিহ্নিত করে প্রয়োজনীয় আইন সংস্কার; সবার জন্য সমান সুযোগ তৈরি; স্বাধীনতা বিরোধীদের নির্বাচনের অযোগ্য ঘোষণা; সন্ত্রাস, মাস্তানির দৌরাত্ম্য বন্ধ করতে আইন প্রণয়ন; নির্বাচনী ব্যয় তদারকিতে তদন্ত কমিটি; জামানত ১০ হাজার টাকার মধ্যে রাখা; অনলাইনে মনোনয়নপত্র জমাদান, প্রবাসীদের ভোটের অধিকার নিশ্চিত; নির্বাচন সংশ্লিষ্ট প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নির্বাচনকালীন নির্বাচন কমিশনের অধীনস্থ করা; ইসির জনবল বৃদ্ধি ও ইসির জন্য বরাদ্দ বৃদ্ধি। এছাড়া আচরণ বিধি ও আইন অমান্য করলে কমপক্ষে ১ বছর কারাদণ্ডের বিধান; সংখ্যালঘু ও সাংবাদিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত, প্রতি ভোটকেন্দ্রে (৪০ হাজার প্রায়) সিসি ক্যামেরা স্থাপন; টিভি চ্যানেল ও সাংবাদিকদের পর্যবেক্ষক নিয়োগের ব্যবস্থা করা; ভোটের ফলাফল ইসির ওয়েবসাইটে প্রকাশ; প্রার্থীর হলফনামা এনবিআর ও দুর্নীতি দমন কমিশনের মাধ্যমে যাচাই-বাছাইকরণ; বিতর্কিত নন এমন ব্যক্তিদের নিয়োগ; না ভোটের বিধান; নারী আসন ৩৩ শতাংশে উন্নীত করে সরাসরি ভোটের ব্যবস্থা; গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ বাংলায় প্রকাশ ও ভোটারদের সচেতন করতে বিভিন্ন প্রচারমূলক কর্মসূচি গ্রহণ; প্রয়োজনে স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে সেনাবাহিনী মোতায়েনের সুপারিশও করছে দলটি।

বাংলাদেশ সময়: ১৬২৫ ঘণ্টা, অক্টোবর ১১, ২০১৭
ইইউডি/আরআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa