ঢাকা, শনিবার, ১ কার্তিক ১৪২৮, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

নির্বাচন ও ইসি

সহিংসতা-বর্জনের মধ্য দিয়ে ইউপি ভোট শেষ, চলছে গণনা

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৩৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২১
সহিংসতা-বর্জনের মধ্য দিয়ে ইউপি ভোট শেষ, চলছে গণনা ফাইল ফটো

ঢাকা: সহিংসতা, ভোট বর্জনের মধ্যে দিয়ে শেষ হলো প্রথম ধাপের স্থগিত ১৬০ ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) ও ষষ্ঠ ধাপের স্থগিত নয় পৌরসভার ভোট। এখন চলছে ভোট গণনা।

ইসি সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার জানিয়েছেন, সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) সকাল ৮টায় পূর্বঘোষিত সময় অনুযায়ী ভোটগ্রহণ শুরু হয়। শেষ হয়েছে বিকেলে ৪টায়। মাঠ পর্যায় থেকে যে খবর পেয়েছি, তাতে ভোটার উপস্থিতি ভালো ছিল। কয়েকটি জায়গায় সমস্যা সৃষ্টি হওয়ায় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এখন গণনা চলছে। শেষ হলে বলা যাবে কত শতাংশ ভোট পড়েছে।

ইসি সচিব রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় জানিয়েছিলেন, শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ হবে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাদের সে বিষয়ে আশ্বস্ত করেছে। কিন্তু তার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই নোয়াখালীর হাতিয়াসহ বেশ কিছু স্থানে সহিংস ঘটনার সৃষ্টি হয়।

ভোট শুরুর পর সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মহেশখালী উপজেলার কুতুবজোম ইউনিয়নে একটি ভোটকেন্দ্রের বাইরে গোলাগুলিতে নিহত হন একজন।

ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের নয়াপাড়ায় একটি ভোটকেন্দ্রের বাইরে আওয়ামী লীগ প্রার্থী শেখ কামাল ও বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী মোশারফ হোসেন খোকনের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধলে অন্তত ৩০ জন আহত হন। এতে আবুল কালাম (৪০) নামে ওই ব্যক্তি নিহত হন।

এদিকে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কুতুবদিয়া উপজেলার বড়ঘোপ ইউনিয়নে পিলটকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের বাইরে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধলে আব্দুল হালিম (৩৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত ও বেশ কয়েকজন আহত হন।

অন্যদিকে বাগেরহাট জেলার ফকিরহাট উপজেলার শুভদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আব্দুল আউয়াল (আনারস প্রতীক) ভোট বর্জন করেছেন। ব্যালট পেপার ছিঁড়ে ফেলা, নৌকায় জোর করে সিল মারা, এজেন্টদের মারধরসহ নানা অভিযোগে সকাল সোয়া ১০টায় তিনি ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন।  

প্রথম ধাপে ৩৭১টি ইউপিতে ও ষষ্ঠ ধাপে ১১টি পৌরসভায় ভোটগ্রহণ হওয়ার কথা ছিল গত ২১ জুন। কিন্তু করোনার কারণে ১৬৭টি ইউপি ও নয় পৌরসভার ভোট স্থগিত করে ইসি। পরিস্থিতি উন্নতি হওয়ায় গত ২ সেপ্টেম্বর ১৬১ ইউপি ও নয় পৌরসভায় ২০ সেপ্টেম্বর ভোটগ্রহণের পুনঃতারিখ দেয় সংস্থাটি। ছয় ইউপিতে আইনি জটিলতা ও এক ইউপিতে আদালতের নির্দেশে ভোট আটকে রাখা হয়েছে।

ইসি সচিব জানিয়েছেন, ১৬০ ইউপির মধ্যে ৪৪টিতে প্রার্থিরা চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। আর নয়টি পৌরসভার মধ্যে তিনটিতে মেয়র প্রার্থিরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

ইউপি ভোটে চেয়ারম্যান পদে ৫০০ জন, সাধারণ সদস্য পদে ৬ হাজার ২৮৬ জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১ হাজার ৯৪৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। আর পৌরসভার মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ২৭ প্রার্থী।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩৩ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২১
ইইউডি/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa