ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ মাঘ ১৪২৮, ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

নির্বাচন ও ইসি

বাল্যবিয়ে রোধে কাজ করবেন তৃতীয় লিঙ্গের কোকিলা মেম্বার

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৫৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩, ২০২১
বাল্যবিয়ে রোধে কাজ করবেন তৃতীয় লিঙ্গের কোকিলা মেম্বার তৃতীয় লিঙ্গের ইউপি সদস্য কোকিলা বেগম

মাগুরা: বাল্য বিয়ে রোধ, শিক্ষার বিস্তার, মাদক বিক্রি বন্ধসহ সমাজে পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকে নিয়ে কাজ করবেন শালিখা উপজেলার শতখালী ইউনিয়নের নব নবনির্বাচিত  শরশুনা গ্রামের তৃতীয় লিঙ্গের কোকিলা মেম্বার।

গত ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে তিন নারীকে হারিয়ে প্রায় ১ হাজার ১০০ ভোটের ব্যবধানে সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন  শরশুনা গ্রামের  সালাম মোল্যার সন্তান তৃতীয় লিঙ্গের কোকিলা বেগম।

সমাজে মেয়েদের অল্প বয়সে বিয়ে হয়ে যায়। যে কারণে তারা চরম স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়েন। এছাড়া সমাজে পিছিয়ে পড়া সাধারণ মানুষ, বয়স্ক ও বিধবা ভাতাসহ নানা বিষয়ে কাজ করে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের (হিজড়া) প্রতি অন্যদের যে মনোভাব সেটি দূর করে বৈষম্য নিরসন করতে চান তিনি।
কোকিলা বলেন, হিজড়াদের অনেকেই নানাভাবে উপহাস করেন। অথচ সুযোগ পেলে তারাও মানুষের কল্যাণে কাজ করতে পারেন। আমি ইউপি মেম্বার হিসেবে নিজের সাধ্যের মধ্য থেকে এ বৈষম্য দূর করতে কাজ করতে চাই। পাশাপাশি গ্রামের মেয়েরা নানাভাবে বঞ্চনার শিকার। বঞ্চিত ও পিছিয়ে থাকা সেই সব নারীদের জন্যও কাজ করে যেতে চাই।

তিনি বলেন, ২০১৩ সালে দেশে হিজড়া সম্প্রদায়কে তৃতীয় লিঙ্গের স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। এ কারণে তারা মূলধারার মানুষের পাশাপাশি কাজের সুযোগ পেয়েছেন।

শতখালী গ্রামের স্থানীয় বাসিন্দা শান্ত বিশ্বাস বলেন, একজন তৃতীয় লিঙ্গে মানুষ  হয়েও সব শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে কোকিলার ভাল সম্পর্ক রয়েছে। আমাদের এলাকার ছোট থেকে বড় সব মানুষ কাকে খুব ভালবাসে। আগে তিনি বাড়ি বাড়ি ঘুরে শিশুদের কোলে নিয়ে নেচে গেয়ে আনন্দ দিয়ে জীবন চালাতেন। মেম্বার হওয়ার পর থেকে তার জীবন ও পেশায় পরিবর্তন আসতে শুরু করেছে।

স্থানীয় বাসিন্দা গোলাম হোসেন বলেন, কোকিলার আর্থিক অবস্থা ভাল ছিল না। গ্রামের মানুষের সহায়তায় তার সংসার চলতো। কিন্তু সে গ্রামের সাধারণ মানুষকে নানাভাবে উপকার করেছে। যে কারণে গ্রামের মানুষ তাকে এক প্রকার জোর করে নির্বাচনে দাঁড় করিয়ে দেয়। কোকিলা অনেক ভোট ও মানুষের ভালবাসা পেয়ে মেম্বার নির্বাচিত হয়েছেন। তার জন্য শুভ কমনা রইল।

নির্বাচনে জয়লাভের পর কোকিলা ভোটারদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে তার নির্বাচনী এলাকায় বাড়ি বাড়ি ঘুরে বেড়াচ্ছেন। ভোটারা তাকে পেয়ে খুব খুশি। সবাইকে তাকে টাকা উপহার দিচ্ছেন। সেই টাকা আবার মালা বানিয়ে গলা পরে বাড়ি বাড়ি ঘুরছেন তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৫৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৩, ২০২১
এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa