ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৯ শাবান ১৪৪৫

বিনোদন

সারেগামাপা নিয়ে বিতর্ক, দর্শকদের কটাক্ষের পাল্টা জবাব

বিনোদন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৪০ ঘণ্টা, এপ্রিল ২০, ২০২১
সারেগামাপা নিয়ে বিতর্ক, দর্শকদের কটাক্ষের পাল্টা জবাব পুরষ্কার হাতে অর্কদীপ মিশ্র ও ইমনের সঙ্গে অর্কদীপ মিশ্র

ভারতীয় বাংলা টেলিভিশন চ্যানেল জি বাংলার সংগীতের রিয়্যালিটি শো সারেগামাপা ২০২০-এর বিজয়ী নিয়ে তুমুল বিতর্ক চলছে।  

রিয়্যালিটি শো’টির চূড়ান্ত পর্বে পাঁচ প্রতিযোগীকে হারিয়ে জয়ী হয়েছেন অর্কদীপ মিশ্র।

পিছনে ফেলেছেন জ্যোতি, নীহারিকা, অনুষ্কা, রক্তিম, বিদীপ্তাকে।

কিন্তু এই ফল মানতে নারাজ দর্শকরা! চ্যাম্পিয়ন হিসাবে অর্কদীপকে পছন্দ করছে না নেটিজেনদের একটা বড় অংশ। জনতার ভোট নয়, বিচারকের দেওয়া নম্বর অনুসারেই বিজয়ী নির্বাচিত হয়েছেন অর্কদীপ, তাই স্বাভাবিকভাবেই অর্কদীপের পাশাপাশি দর্শকদের নিশানায় বিচারকরাও।

কেউ কেউ অভিযোগ করছেন, ‘টাকা দিয়ে সেরা হয়েছে অর্কদীপ’, ‘বিচারকরা অস্বচ্ছ, অযোগ্য’- এমন মন্তব্যে উত্তাল সামাজিক মাধ্যম। ক্ষুব্ধ জনতা বিচারকদের নামের পাশে ‘বজ্জাত’, ‘চোর’ তকমা দিচ্ছেন অনেকে।

শো’টির বিচারকের আসনে ছিলেন শ্রীকান্ত আচার্য, জয় সরকার, আকৃতি কক্কর, মিকা সিংয়ের মতো স্বনামধন্য সংগীতশিল্পীরা। এছাড়া গ্র্যান্ড ফিনালেতে উপস্থিত ছিলেন মুম্বাইয়ের সংগীত জগতের তিন নক্ষত্র- শংকর মহাদেবন, শান ও কেকে।  

অনেকেই ভেবেছিলেন, ‘সারেগামাপা’-এ সেরা হবেন অনুষ্কা। কিন্তু তা না হওয়ায় সামাজিক মাধ্যমে সেই ক্ষোভ উপচে পড়ছে। তবে যেভাবে সকলে বিজয়ী অর্কদীপের যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিলেন, তা যথেষ্ট অসংবেদনশীল বলেই মনে করছেন শিল্পীমহলের একটা বড় অংশ।  

এই নিয়ে অভিযোগের আঙুল উঠেছে ভারতের জাতীয় পুরস্কার জয়ী গায়িকা ও অর্কদীপের মেন্টর ইমন চক্রবর্তীর দিকেও। সেসব কমেন্ট দেখে একইসঙ্গে হতাশ ও ক্ষুব্ধ ইমন।

ফেসবুক লাইভে এসে সমালোচনার কড়া জবাব দিয়ে ইমন বলেন, ‘একটি ছেলে প্রথম হলো তা নিয়ে এতো সমালোচনা কেন? অর্কদীপের বদলে অন্য কেউ বিজয়ী হলেও একইরকম পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হতো। অর্ক প্রথম না হয়ে নীহারিকা প্রথম হলো- এই যে আপনাদের এতো বক্তব্য সেটা থাকত। অনেকের মনে হতো, নীহারিকা কেন প্রথম হল?’

নেটিজেনদের কটাক্ষের জবাবে জয় সরকারপত্নী ও সংগীতশিল্পী লোপামুদ্রা মিত্র সামাজিক মাধ্যমে লেখেন, ‘গত ২০ বছর আমি জয় সরকারের মতো একজন আদ্যোপান্ত গানবাজনা প্রেমিক মানুষের সঙ্গে থাকি। তাকে চিনি হাড়ে-মজ্জায়। ছেলেটির (অর্কদীপ) কী দোষ? ওর উপর কতটা মানসিক চাপ পড়ছে, ওর যন্ত্রণা একবারও ভেবে দেখছেন? প্রথম হয়ে সে যেন ফাঁসির আসামী! জেতাটাকে উপভোগ করতে পারছে না বেচারা’।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৪০ ঘণ্টা, এপ্রিল ২০, ২০২১
জেআইএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।