ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ মাঘ ১৪২৮, ২৭ জানুয়ারি ২০২২, ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

ফিচার

ইতিহাসের এই দিনে

ড. হুমায়ুন আজাদের জন্ম

ফিচার ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮২৯ ঘণ্টা, এপ্রিল ২৭, ২০১৭
ড. হুমায়ুন আজাদের জন্ম ড. হুমায়ুন আজাদ

ঢাকা: ইতিহাস আজীবন কথা বলে। ইতিহাস মানুষকে ভাবায়, তাড়িত করে। প্রতিদিনের উল্লেখযোগ্য ঘটনা কালক্রমে রূপ নেয় ইতিহাসে। সেসব ঘটনাই ইতিহাসে স্থান পায়, যা কিছু ভালো, যা কিছু প্রথম, যা কিছু মানবসভ্যতার অভিশাপ-আশীর্বাদ।

তাই ইতিহাসের দিনপঞ্জি মানুষের কাছে সবসময় গুরুত্ব বহন করে। এই গুরুত্বের কথা মাথায় রেখে বাংলানিউজের পাঠকদের জন্য নিয়মিত আয়োজন ‘ইতিহাসের এই দিন’।


 
২৮ এপ্রিল, ২০১৭, শুক্রবার। ১৫ বৈশাখ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ। একনজরে দেখে নিন ইতিহাসের এই দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যু দিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়।

ঘটনা
•    ১৯২০ - আজারবাইজানকে সোভিয়েত ইউনিয়নের সঙ্গে যুক্ত করা হয়।
•    ২০০১- ডেনিশ টিটো পৃথিবীর সর্বপ্রথম মহাকাশ পর্যটকের মর্যাদা লাভ করেন।

জন্ম
•    ১৭৫৮ - যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি জেমস মন্‌রো।
•    ১৯৩৭ - ইরাকের সাবেক প্রেসিডেন্ট সাদ্দাম হুসাইন। যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর হাতে পাকড়াও হয়ে ফাঁসিতে ঝোলার আগে ১৯৭৯ সাল থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত ইরাক শাসন করেন তিনি।
•    ১৯৪৭ - প্রখ্যাত লেখক অধ্যাপক ড. হুমায়ুন আজাদ। তিনি ছিলেন একাধারে কবি, ঔপন্যাসিক, গল্পকার, সমালোচক, গবেষক, ভাষাবিজ্ঞানী, কিশোর সাহিত্যিক এবং রাজনীতিক ভাষ্যকার। দেশের প্রধান প্রথাবিরোধী এবং বহুমাত্রিক লেখক হিসেবে মনে করা হয় তাকে। হুমায়ুন আজাদ ধর্ম, মৌলবাদ, প্রতিষ্ঠান ও সংস্কারবিরোধিতা, নারীবাদ, রাজনৈতিক এবং নির্মম সমালোচনামূলক বক্তব্যের জন্য ১৯৮০’র দশক থেকে ব্যাপক পাঠকগোষ্ঠীর দৃষ্টি আর্কষণ করতে সক্ষম হন। গতানুগতিক চিন্তাধারা তিনি সচেতনভাবে পরিহার করতেন। তার ‘নারী’, ‘দ্বিতীয় লিঙ্গ’ এবং ‘পাক সার জমিন সাদ বাদ’ গ্রন্থ তিনটি আলোচনার ঝড় তোলে। তার মোট প্রকাশিত গ্রন্থের সংখ্যা ৭০টির বেশিও। সাহিত্যে অনন্য অবদানের জন্য ১৯৮৬ সালে তাকে বাংলা একাডেমি পুরস্কার এবং ২০১২ সালে সামগ্রিক সাহিত্যকর্ম এবং ভাষাবিজ্ঞানে বিশেষ অবদানের জন্যে মরণোত্তর একুশে পদক প্রদান করা হয়। তাঁর রচিত কিশোরসাহিত্য ‘আব্বুকে মনে পড়ে’ জাপানি ভাষায় অনূদিত হয় ২০০৩ সালে। যা ভাবতেন তা-ই সাহসের সঙ্গে লিখতেন ফলে হুমায়ুন আজাদ অনেকেরই বিরাগভাজন হন। এক পর্যায়ে তিনি মৌলবাদীদের হামলায় মারাত্মকভাবে আহত হয়ে প্রায় পঙ্গু হয়ে পড়েন। হুমায়ুন আজাদ ২০০৪ সালের ১২ আগস্ট জার্মানির মিউনিখ শহরে মৃত্যুবরণ করেন।
•    ১৯৮২ - জনপ্রিয় ভারতীয় বাংলা অভিনেত্রী কোয়েল মল্লিক।
•    ১৯৪৬ - বাংলাদেশের একজন চলচ্চিত্র অভিনেতা উজ্জ্বল।

মৃত্যু
•    ১৯৪৫ - দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধকালে ইতালির সর্বাধিনায়ক বেনিতো মুসোলিনি। তিনি ছিলেন জার্মানির স্বৈরশাসক অ্যাডলফ হিটলারের সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ কোনো দেশের নেতা।

বাংলাদেশ সময়: ০০২০ ঘণ্টা, এপ্রিল ২৮, ২০১৭
এইচএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa