ঢাকা, শনিবার, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০, ০২ মার্চ ২০২৪, ২০ শাবান ১৪৪৫

স্বাস্থ্য

বোনের দেওয়া লিভারে সুস্থ হলেন ভাই

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৫১ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২৩
বোনের দেওয়া লিভারে সুস্থ হলেন ভাই

ঢাকা: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্টের মাধ্যমে ছোট বোন মোছা. শামীমা আক্তারের (৪৩) দেওয়া লিভার নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন বগুড়ার মো. মন্তেজার রহমান (৫৩) নামে এক ব্যক্তি।

বুধবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সকালে এ তথ্য জানিয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের হেপাটোবিলিয়ারি, প্যানক্রিয়েটিক ও লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্ট সার্জারি বিভাগ।

এর আগে মঙ্গলবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে কেবিন ব্লকের চারতলায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ, মুজিব শতবর্ষ লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্ট প্রোগ্রামের অংশ হিসেবে সম্পন্ন করা লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্টের রোগী মো. মন্তেজার রহমান সুস্থ হওয়ায় তার হাতে ফুল দিয়ে বিদায় জানান।

এ সময় অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদের সঙ্গে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. ছয়েফ উদ্দিন আহমদ, সার্জারি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ হোসেন, হেপাটোবিলিয়ারি, প্যানক্রিয়েটিক ও লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্ট সার্জারি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ মোহছেন চৌধুরী, অধ্যাপক ডা. বিধান চন্দ্র দাস, আবাসিক চিকিৎসক (আরপি) সহকারী অধ্যাপক ডা. তৌফিক আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উপস্থিত সবাই মো. মন্তেজার রহমান ও তার বোন মোসা. শামীমা আক্তারসহ সব রোগীর জন্য প্রার্থনাও করেন।

বগুড়া জেলার মো. মন্তেজার রহমান লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্টেশনের রোগী ছিলেন। তিনি নন-বি, নন-সিজনিত ‘অ্যান্ড স্টেজ লিভার ডিজিজে’ আক্রান্ত ছিলেন। মো. মন্তেজার রহমানকে লিভারদান করেন তার ছোট বোন মোসা. শামীমা আক্তার।

১ জানুয়ারি তাদের লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্টের সফল অস্ত্রোপচার করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের হেপাটোবিলিয়ারি, প্যানক্রিয়েটিক ও লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্ট সার্জারি বিভাগের চিকিৎসকরা। ১২ ঘণ্টাব্যাপী লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্টেশন অস্ত্রোপচারে সহযোগিতা করে এশিয়ান ইনস্টিটিউট অব গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজি, ভারতের লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্ট সার্জন ও অ্যানেসথেসিয়া টিম।

মোছা. শামীমা আক্তারের দেহ থেকে সুস্থ লিভারের ৬০ শতাংশ কেটে নেওয়া হয়। মো.মন্তেজার রহমানের সিরোটিক লিভারের পুরোটাই কেটে বের করা হয়। এরপর শামীমা আক্তারের দেহ থেকে কেটে নেওয়া সুস্থ লিভারের ৬০ শতাংশ জোড়া দেওয়া হয়।

লিভারদাতা শামীমা আক্তারের লিভারটি ধীরে ধীরে রি-জেনারেট করবে। এটি লিভার নামক অঙ্গটির একটি বিশেষত্ব। এর আগে গত মাসেই লিভারদাতা মোসা. শামীমা আক্তারকে বাড়িতে পাঠানো হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১২৪৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৮, ২০২৩
আরকেআর/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।