ঢাকা, বুধবার, ২০ আশ্বিন ১৪২৯, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

স্বাস্থ্য

ঘুষ কেলেঙ্কারি

গ্ল্যাক্সোস্মিথের অর্থদণ্ড, কর্মকর্তাদের কারাদণ্ড

স্বাস্থ্য ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৪৮ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৪
গ্ল্যাক্সোস্মিথের অর্থদণ্ড, কর্মকর্তাদের কারাদণ্ড

ঢাকা: রোগীর ব্যবস্থাপনাপত্রে (প্রেসক্রিপশন) নিজেদের ওষুধ সুপারিশ করার জন্য চিকিৎসকদের ঘুষ দেওয়ায় যুক্তরাজ্যভিত্তিক ফার্মাসিউটিক্যাল জায়ান্ট গ্ল্যাক্সোস্মিথক্লিন-কে (জিএসকে) ৪৯ কোটি মার্কিন ডলার জরিমানা করা হয়েছে। একইসঙ্গে প্রতিষ্ঠানটির চীন শাখার সাবেক প্রধানসহ কয়েকজন কর্মকর্তাকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।



গ্ল্যাক্সোস্মিথের ঘুষ লেনদেনের অভিযোগ আদালতে প্রমাণিত হওয়ার পর শুক্রবার এ দণ্ড দেওয়া হয়।

চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো জানায়, নিজেদের ওষুধ সুপারিশ করার জন্য চিকিৎসক ও হাসপাতালকে ঘুষ দেওয়ার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ফার্মাসিউটিক্যাল জায়ান্টটিকে অর্থদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এছাড়া, গ্ল্যাক্সোস্মিথের চীন শাখার সাবেক প্রধান মার্ক রেইলিকে তিন বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। গ্ল্যাক্সোস্মিথের অন্য কর্মকর্তাদেরও বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এসবের পাশাপাশি চীনে গ্ল্যাক্সোস্মিথের ব্যবসা চার বছরের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

সংবাদ সংস্থা সিনহুয়া জানায়, দক্ষিণ মধ্যাঞ্চলীয় চীনের হুনান প্রদেশের চ্যাংশায় স্থাপিত বিশেষ আদালতে একদিনের বিচার প্রক্রিয়া শেষে অপরাধী প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে এ দণ্ড দেওয়া হয়।

গ্ল্যাক্সোস্মিথের বিরুদ্ধে ঘুষ লেনদেনের অভিযোগ ওঠার পর গত বছরের জুলাইয়ে তদন্তের ঘোষণা দেয় চীনা কর্তৃপক্ষ। দেশটিতে ব্যবসারত কোনো প্রতিষ্ঠানের এ ধরনের ঘুষ কেলেঙ্কারির খবরে তোলপাড় শুরু হয়।

অভিযোগের ওঠার পর গ্ল্যাক্সোস্মিথ জানায়, চীন সরকার ও এর জনগণের প্রতি দুঃখ প্রকাশ করে একটি বিবৃতি দিয়েছে তারা।

গ্ল্যাক্সোস্মিথের প্রধান নির্বাহী স্যার অ্যান্ড্রু উইটি এক বিবৃতিতে বলেন, এটা গ্ল্যাক্সোস্মিথের জন্য হতাশার ব্যাপার।

সংবাদ মাধ্যমগুলো বলছে, গ্ল্যাক্সোস্মিথ কর্তৃপক্ষ এ ধরনের দায় এড়ানো বিবৃতি দিয়ে গেলেও দিনে দিনে এমন অভিযোগ বেড়েই চলেছে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে।

গত জুনেই আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমগুলো জানায়, ওষুধে ভেজাল থাকার দায়ে যুক্তরাষ্ট্রের ৪৪টি অঙ্গরাজ্য ও কলম্বিয়া জেলার ক্ষতিগ্রস্তদের প্রায় ৮১৪ কোটি ৩৯ লাখ ৭৭ হাজার টাকা (প্রায় সাড়ে ১০ কোটি মার্কিন ডলার) জরিমানা দিয়েছে গ্ল্যাক্সোস্মিথ।

শ্বাসরোগ নিরাময়ের ‘অ্যাডভেয়ার’ ও মানসিক বিষাদ দূরকারী ‘প্যাক্সিল’ ও ‘ওয়েলবুট্রিন’ ওষুধে ভেজালের দায়ে এ জরিমানা গুণতে হয় গ্ল্যাক্সোস্মিথকে।

অবশ্য, ওষুধে ভেজালের এ অভিযোগে জরিমানার কথা অস্বীকার করে গ্ল্যাক্সোস্মিথের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, আগেকার কিছু বিষয় মীমাংসার লক্ষ্যে একটি চুক্তি সই হয়েছে। চুক্তি অনুযায়ীই এই অর্থ পরিশোধ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৪৯ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa