ঢাকা, বুধবার, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৮ মে ২০২২, ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩

স্বাস্থ্য

সংক্রমণ বাড়লেও স্বাস্থ্যবিধিতে অনীহা 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৫৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৭, ২০২২
সংক্রমণ বাড়লেও স্বাস্থ্যবিধিতে অনীহা 

ঢাকা: করোনার প্রাদুর্ভাব নিয়ে দীর্ঘ সময় পার করার পর পরিস্থিতি যখন স্বাভাবিক হতে শুরু করলো ঠিক তখনই আবার নতুন করে এলো করোনার ওমিক্রন ধরন। নতুন করে করোনার সংক্রমণ ব্যাপক হারে বাড়লেও স্বাস্থ্যবিধি মানতে অনীহা দেখা যাচ্ছে বেশির ভাগ মানুষের মধ্যে।

সক্রমণ রোধে সরকারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে। তবে মানুষজন তা খুব একটা পরোয়া করছে না। মাস্ক পরতে উৎসাহিত করা এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য বারবার বলা হলেও বেশির ভাগ মানুষের মুখে মাস্ক পাওয়া যাচ্ছে না। আবার অনেকের মুখে নয়, থুতনিতে রয়েছে মাস্ক। এছাড়া অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি মানতেও রয়েছে মতপার্থক্য।

সোমবার (১৭ জানুয়ারি) রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে এমন চিত্র। করোনার সংক্রমণ রোধে গণপরিবহনে আসন সংখ্যার সমান যাত্রী বহনে নিজেদের প্রতিশ্রুতি রক্ষা করছে না পরিবহন সংশ্নিষ্টরা। সব আসন পূর্ণ করার পর অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহনের চিত্রও দেখা গেছে অধিকাংশ বাসে।

সরকারি নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী রাজধানীর কয়েকটি স্থানে অভিযান চালিয়ে জরিমানা করলেও চালক-হেলপার-যাত্রীদের মধ্যে সচেতনতা বাড়ছে না। যাত্রীদের বেশির ভাগের মুখে মাস্ক দেখা গেলেও অনেকেরই তা ছিল থুতনির নিচে। একই চিত্র ছিল চালক ও হেলপারদের মধ্যেও।

দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজার, শাহবাগ, পল্টন ও গুলিস্তান এলাকায় একাধিক রুটের বাসের ভেতরে অনেক যাত্রীকেই দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। আর হেলপারকে দেখা যায় মাস্কটি থুতনির নিচে নামানো। অনেককে আবার মাস্ক ছাড়াও দেখা গেছে।

চালক হাফিজুর রহমান জানান, যাত্রীরা জোর করে উঠে পড়লে কিছু করার থাকে না। আর আসন সংখ্যার সমান যাত্রী পরিবহনে মালিকরা প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন কিনা তারা জানেন না। এ জন্যই অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহন করছেন।

রাজধানীতে ভিড়ের মধ্যেই গাদাগাদি করে যাত্রীদের বাসে উঠতে দেখা গেছে। গণপরিবহন, অফিস-আদালত, বিনোদন কেন্দ্র সব খোলা থাকায় স্বাভাবিকভাবেই ভিড় রয়েছে সবখানে। আর সবখানেই দেখা গেছে স্বাস্থ্যবিধি মানায় অনীহা।

বিশেষজ্ঞদের মতে, করোনার নতুন ধরন আগের ধরনের চেয়ে বেশি হারে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে। এমন অবস্থায় জনসাধারণের অবস্থান থেকে প্রত্যেকেরই নিজের ও পরিবারের সুরক্ষায় স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কে সচেতন থাকতে হবে। অনেকে টিকা নিয়েছে ভেবে স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না, তাদের মনে রাখা দরকার যে, টিকা নিলেই সম্পূর্ণ নিরাপদ—এটি ভাবার কোনো সুযোগ নেই। অনেকে টিকা নিয়েও আক্রান্ত হচ্ছেন। তাই এখানে স্বাস্থ্যবিধি মান্য করাটাই সবচেয়ে মুখ্য বিষয়। প্রত্যেক নাগরিককে সচেতন হতে হবে এবং পাশাপাশি স্বাস্থবিধি মানার বিষয়ে প্রশাসনের তদারকিও বৃদ্ধি করতে হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২০৫৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৭, ২০২২
এইচএমএস/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa