ঢাকা, সোমবার, ২৩ শ্রাবণ ১৪২৯, ০৮ আগস্ট ২০২২, ০৯ মহররম ১৪৪৪

ভারত

ত্রিপুরায় এইডস আক্রান্তদের বেশিরভাগ কলেজ শিক্ষার্থী: মুখ্যমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬২১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১, ২০২১
ত্রিপুরায় এইডস আক্রান্তদের বেশিরভাগ কলেজ শিক্ষার্থী: মুখ্যমন্ত্রী ত্রিপুরায় বিশ্ব এইডস দিবসের অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব -বাংলানিউজ

আগরতলা: বুধবার (১ ডিসেম্বর), বিশ্ব এইডস দিবস। বিশ্বের অন্যান্য স্থানের সঙ্গে এদিন ভারতের ত্রিপুরায়ও  দিনটি উদযাপন করা হয়।

মূল অনুষ্ঠানটি হয় রাজ্যের রাজধানী আগরতলার প্রজ্ঞা ভবনে। ত্রিপুরা এইডস কন্ট্রোল সোসাইটি এবং রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ দপ্তর যৌথভাবে এই আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব বলেন, রাজ্যে প্রতিদিন গড়ে নতুন করে দুই থেকে তিনজন এইচআইভি (এইডস) পজেটিভ শনাক্ত হচ্ছেন। তাদের বেশির ভাগই কলেজ পড়ুয়া এবং প্রতিষ্ঠিত ঘরের সন্তান।

এ সময় তিনি রাজ্যে শিক্ষার্থীদের মধ্যে এইডসের বিষয়ে আরও বেশি করে সচেতনতা বাড়ানোর জন্য স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ দপ্তর এবং এইডস কন্ট্রোল সোসাইটিকে আরও ব্যাপকভাবে কাজ করার এবং ব্যাপকভাবে শনাক্তকরণের জন্য কলেজের সব শিক্ষার্থীর এইচআইভি পরীক্ষা বাধ্যতামূলক করার নির্দেশ দেন। প্রয়োজনে পুলিশের সহায়তা দেওয়ার আহ্বান জানানও তিনি। পাশাপাশি মানুষের মধ্যে এই রোগ সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করার কথা বলেন।

তিনি বলেন, এইচআইভি সংক্রমিত হলে অনেকে প্রথমে তা স্বীকার করেন না, লুকিয়ে রাখেন। এক্ষেত্রে আক্রান্ত না যতটুকু দায়ী, তার চেয়ে আমাদের সমাজের মানুষ বেশি দায়ী। এইডস ছোঁয়াচে নয় জানা সত্ত্বেও মানুষ আক্রান্তকে দূরে সরিয়ে রাখে। এই মানসিকতা দূর এবং অপপ্রচার রোধ করতে হবে।

সারা উত্তর-পূর্ব ভারতে জাতীয় মানের এইচআইভি চিকিৎসা কেন্দ্র এখনও গড়ে উঠেনি উল্লেখ করে তিনি বলেন, ত্রিপুরায় একটি জাতীয় মানের এইচআইভি চিকিৎসা কেন্দ্র গড়ে তোলার চিন্তা ভাবনা করছে সরকার। অত্যাধুনিক এই হাসপাতালটি উত্তর জেলায় স্থাপন করার বিষয়ে ভাবা হচ্ছে। কারণ মিজোরম, মনিপুর ইত্যাদি রাজ্যে এ রোগে আক্রান্তের সংখ্যা বেশি।

অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন রাজ্য সমাজ কল্যাণ এবং সমাজ শিক্ষা দপ্তরের মন্ত্রী সান্তনা চাকমা, তথ্য-সংস্কৃতি দপ্তরের মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী, রাজ্য মহিলা কমিশনের চেয়ারপারসন বর্ণালী গোস্বামীসহ অন্যান্যরা। প্রজ্ঞা ভবনের বাইরে এদিন একটি প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথিরা তা ঘুরে দেখেন।
আগরতলার পাশাপাশি রাজ্যের প্রতিটি জেলাতে এদিন সচেতনতামূলক পদযাত্রার আয়োজন করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৬১৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর, ২০২১
এসসিএন/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa