ঢাকা, রবিবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৬ মে ২০২৪, ১৭ জিলকদ ১৪৪৫

ইসলাম

বৃহস্পতিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আঞ্চলিক ইজতেমা শুরু

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৫৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২, ২০১৫
বৃহস্পতিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আঞ্চলিক ইজতেমা শুরু ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ব্রাহ্মণবাড়িয়া: বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তিতাস নদীর পাড়ে শুরু হতে যাচ্ছে আঞ্চলিক ইজতেমা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নয়টি উপজেলা থেকে প্রায় পাঁচ লাখ মুসল্লি এখানে জমায়েত হবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন সংশ্লিষ্টরা।



ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার নাটাই দক্ষিণ ইউনিয়নের শালগাঁও-কালিসীমা চৌদ্দ মৌজা ঈদগাঁ মাঠে এ ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবে।

ইজতেমার জিম্মাদার বিরাসার মার্কাজ মসজিদের খতিব মাওলানা আনিছুর রহমান বাংলানিউজকে জানান, এবারের ইজতেমা হচ্ছে ভিন্ন পদ্ধতিতে। দেশের ৬৪টি জেলাকে দুই ভাগে বিভক্ত করে ৩২টি জেলায় ইজতেমা আঞ্চলিকভাবে অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম পর্যায়ে এ বছর ১৬টি জেলায় ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবে। আগামী বছরের শুরুতে অপর ১৬টি জেলায় অনুষ্ঠিত হবে। এরই ধারাবাহিকতায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৩, ৪ ও ৫ ডিসেম্বর প্রথম পর্যায়ের আঞ্চলিক ইজতেমা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এজন্য শালগাঁও-কালিসীমা স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠসহ চৌদ্দ মৌজা ঈদগাঁ মাঠে প্রস্তুতি কাজ চলছে।

তিনি জানান, মুসল্লিদের ওজু-গোসলের সুবিধার্থে মাঠের পাশে তিতাস নদীর বেড়িবাঁধের উপর তিন শতাধিক পানির কল স্থাপন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয়ে শনিবার যোহরের আগে আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে ইজতেমার আসর শেষ হবে।

ঢাকার কাকরাইল জামে মসজিদ থেকে আগত তাবলীগের শীর্ষস্থানীয় মুরুব্বীরা ইজতেমায় বয়ান করবেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকুল চন্দ্র বিশ্বাস বাংলানিউজকে জানান, ইজতেমায় নিরাপত্তার জন্য ছয়শ’ পুলিশ, নৌ-পুলিশ ও সাদা পোশাকে ১০০ পুলিশের পাশাপাশি র্যাব সদস্যরা টহল দেবে।

এছাড়া ইজতেমা মাঠ ও মাঠের চারপাশে ১০০টি ক্লোজ সার্কিট (সিসি) ক্যামেরাও বসানো হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০২, ২০১৫
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।