ঢাকা, বুধবার, ৪ কার্তিক ১৪২৮, ২০ অক্টোবর ২০২১, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয় পার্টি

‘প্রধানমন্ত্রী দেশকে বিব্রতকর অবস্থা থেকে মুক্তি দিয়েছেন’

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২১৯ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৯
‘প্রধানমন্ত্রী দেশকে বিব্রতকর অবস্থা থেকে মুক্তি দিয়েছেন’ জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানকে ফুলের শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন নেতাকর্মীরা। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: রাজাকারের তালিকা প্রত্যাহার করে প্রধানমন্ত্রী দেশ ও জাতিকে বিব্রতকর অবস্থা থেকে মুক্তি দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের।

বৃহস্পতিবার (১৯ ডিসেম্বর) দুপুরে চেয়ারম্যানের বনানী অফিসে লিয়াকত হোসেন খোকাকে প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টির সভাপতি নির্বাচিত করায় নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁও উপজেলা বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্য ও সংরক্ষিত আসনের ইউপি সদস্যরা জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানকে ফুলের শুভেচ্ছা জানাতে গেলে তিনি একথা বলেন।

গোলাম মোহাম্মদ কাদের বলেন, রাজাকারের তালিকা নিয়ে ১৬ ডিসেম্বর সাংবাদিকরা আমাকে প্রশ্ন করেছিল।

তখন বলেছিলাম তালিকা না দেখে কোনো মতামত দেবো না। তবে সার্বিকভাবে আমরা এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছিলাম, কারণ এটার বিপক্ষে আমাদের অবস্থান নেই।  

তিনি বলেন, এ তালিকার তথ্য-উপাত্ত দেখে মনে হলো প্রথমেই রাজাকারের তালিকা গ্রহণযোগ্যতা হারালো। এটা সারা জাতির মধ্যে দ্বিধা এবং বিভ্রান্তি সৃষ্টি করেছে। পুরো জাতিকে একটা বিব্রতকর অবস্থায় ফেলে দিয়েছে। আমরা চেয়েছিলাম তালিকাটা প্রত্যাহার করলে ভালো হয়। গতকাল প্রধানমন্ত্রী রাজাকারের তালিকা প্রত্যাহার করতে বলেছেন, আমরা এ উদ্যোগকে স্বাগত জানাই।  

তিনি আরও বলেন, রাজাকারের তালিকা প্রত্যাহার করে প্রধানমন্ত্রী দেশ ও জাতিকে বিব্রতকর অবস্থা থেকে মুক্তি দিয়েছেন। আমরা আশা করবো এ ধরনের কার্যক্রম নেওয়ার আগে প্রয়োজনীয় যাচাই-বাছাই করা হবে। রাজাকারের তালিকা যেন হয় তথ্যভিত্তিক। কোনো রকম ব্যক্তিগত, গোষ্ঠীগত ও দলগত স্বার্থ বিবেচনায় যেন রাজাকারের তালিকা করা না হয়। এ তালিকা যেন পরবর্তী প্রজন্মের জন্য ঐতিহাসিক দলিল হয়।

জাতীয় পার্টির মহাসচিব ও বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গা বলেন, জাতীয় পার্টি ঐক্যবদ্ধ। জাতীয় পার্টির মতো ঐক্য আর কোনো দলেই নেই। তাই জাতীয় পার্টি এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। জাতীয় পার্টি পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের আদর্শ বুকে ধারণ করে দেশ ও দেশের মানুষের কল্যাণে রাজনীতি করবে। কোনো অপশক্তিই জাতীয় পার্টির জয়রথ বাধাগ্রস্ত করতে পারবে না।

সভাপতির বক্তব্যে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও স্বেচ্ছাসেবক পার্টির সভাপতি লিয়াকত হোসেন খোকা বলেন, পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ আমাদের কাছে পিতৃতুল্য। আমরা পল্লীবন্ধুর মতোই দেশের হতদরিদ্র মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করে যাবো।

২৮ ডিসেম্বর জাতীয় পার্টির জাতীয় সম্মেলন সফল করতে নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান লিয়াকত হোসেন খোকা।

অনুষ্ঠানে জাতীয় পার্টি নেতা মিজানুল ইসলাম লিটু ও নজরুল ইসলামের নেতৃত্বে জাতীয় পার্টির প্রায় ৩০ নেতা-কর্মী চেয়ারম্যানের হাতে ফুল তুলে দেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, সুনীল শুভ রায়, এস.এম. ফয়সল চিশতী, লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী, অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, উপদেষ্টা মোহাম্মদ নোমান, নুরুল আজহার, ভাইস চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম জহির, জহিরুল আলম রুবেল, যুগ্ম মহাসচিব সুলতান আহমেদ সেলিম, সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য মুনিম চৌধুরী বাবু, মো. হেলাল উদ্দিন, হুমায়ুন খান, আহাদ চৌধুরী শাহীন, এম.এ. রাজ্জাক খান।  

বাংলাদেশ সময়: ১৭২০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৯
এসএমএকে/এফএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa