ঢাকা, বুধবার, ১৯ আশ্বিন ১৪৩০, ০৪ অক্টোবর ২০২৩, ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৫

আইন ও আদালত

মেয়রের বিরুদ্ধে নিউজ করায় সাংবাদিকের নামে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩২২ ঘণ্টা, মে ২৮, ২০২৩
মেয়রের বিরুদ্ধে নিউজ করায় সাংবাদিকের নামে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

বরগুনা: একটি সংবাদ মাধ্যমে “ঈদ উপহারের নামে টিসিবির পণ্য বিতরণ” শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করায় সংবাদ মাধ্যমটির আমতলী উপজেলা প্রতিনিধি মো. মনিরুল ইসলামের নামে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে।

শনিবার (২৭ মে) দুপুরে বিবাদী মো. মনিরুল ইসলামের ব্যবহৃত মোবাইল ফোন জব্দ করে আমতলী থানা পুলিশ।

এর আগে গত ২১ মে মেয়র মতিয়ার রহমানের ভাগ্নে মো. আবুল কালাম আজাদ বাদী হয়ে বরিশাল সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলার আবেদন করলে ট্রাইব্যুনালের বিজ্ঞ বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) তদন্ত করে ট্রাইব্যুনালে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, বিবাদী মো. মনিরুল ইসলাম আমতলী পৌরসভায় চুক্তিভিত্তিক কর্মচারী (পরিচ্ছন্নতা কর্মী) ছিলেন। তার দায়িত্বে অবহেলা ও অসৎ আচরণের কারণে তাকে চুক্তিভিত্তিক চাকরি থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। এছাড়া বিভিন্ন সময় পৌরসভার মাসিক পানির বিল ও পৌর কর পরিশোধ না করায় গত ১২ জানুয়ারি আমতলী পৌরসভার ওয়াটার সুপার মো. রুবেল মিয়া বিধি মোতাবেক তাকে বিল পরিশোধের জন্য নোটিশ দেন। কিন্তু বিলে উল্লিখিত তারিখের মধ্যে পানির বিল পরিশোধ না করায় গত ১৭ এপ্রিল তার বাসার পানির সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। বিচ্ছিন্ন হওয়ার কারণ হিসেবে বিবাদী পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মো. মতিয়ার রহমানকে অযথা দায়ী করে বিভিন্ন সময় স্থানীয় লোকজনের কাছে মানহানিকর মন্তব্য ও কটূক্তি করে আসছিলেন। বিষয়টি বাদীসহ পরিবারের লোকজন জানতে পেরে মনিরুল ইসলামকে এসব করা থেকে বিরত থাকতে অনুরোধ করেন। এতে সে আরও ক্ষিপ্ত হয়ে গত ২১ এপ্রিল রাত ১০টা ১৯ মিনিটে মো. মনিরুল ইসলাম নিজ নামে একটি সংবাদ মাধ্যমে “ঈদ উপহারের নামে টিসিবির পণ্য বিতরণ” শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করেন।

মামলার বাদী মেয়র মতিয়ার রহমানের ভাগ্নে মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, প্রকাশিত সংবাদটি আদৌ সত্য নয়। মেয়র তার ব্যক্তিগত তহবিল থেকে আলাদা প্যাকেটে তার কর্মী ও স্থানীয় দুস্থ মানুষের মধ্যে ঈদ উপহার (এক প্যাকেট করে সেমাই ও এক প্যাকেট করে দুধ) দেন। একই সময় ডিলারের অনুরোধে তিনি টিসিবির পণ্য বিক্রি কার্যক্রমও উদ্বোধন করেন। যা উপস্থিত সাংবাদিকসহ সবাই জানেন। বিবাদী মনিরুল ইসলাম আগের ক্ষোভ থেকে আমাদের পরিবারকে হেয় করতে অসত্য তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রচার করেছেন। এজন্য তার নামে মামলা দায়ের করেছি।

আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, মামলাটির তদন্তভার আমার ওপর দেওয়া হয়েছে। তদন্তের স্বার্থে শনিবার (২৭ মে) দুপুরে বিবাদী মনিরুল ইসলামের ব্যবহৃত মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৩১৭ ঘণ্টা, মে ২৮, ২০২৩
এসআই
 


 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa